পাঞ্জাব মেইল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Punjab Mail

দ্যা ১২১৩৭/১২১৩৮ পাঞ্জাব মেইল ইন্ডিয়ান রেলওয়ের সেন্ট্রাল রেলওয়ে জোন এর একটি সুপারফাস্ট এক্সপ্রেস ট্রেন৷ ট্রেনটি ভারতের মুম্বাই ও ফিরোজপুর এর মধ্যে চলাচল করে থাকে৷ ট্রেনটি মুম্বাই সিএসটি হতে ফিরোজপুর যাওয়ার পথে ১২১৩৬ নং ট্রেন এবং ফিরোজপুর হতে পুনরায় মুম্বাই সিএসটিতে ফিরে আসতে ১২১৩৮ নং ট্রেন হিসাবে পরিচালিত হয়ে থাকে৷ মুম্বাই ও ফিরোজপুর এর মধ্যে দৈনিক নিয়মিত চলাচলকারী দুটি ট্রেন এর মধ্যে এটি একটি৷ অপর ট্রেনটি হচ্ছে ফিরোজপুর জনতা এক্সপ্রেস৷

ইতিহাস[সম্পাদনা]

এটি ভারতের মধ্যে চলাচলকারী ট্রেন এক্সপ্রেসগুলোর মধ্য অন্যতম প্রাচীন একটি এক্সপ্রেস৷ এক্সপ্রেসটি ১৯১২ সাল হতে( ১০৫ বছর) ভারতের অভ্যন্তরে চলাচল করে আসছে৷ ধারণা করা হয় এক্সপ্রেসটির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয় ১৯১২ সালের ১ জুন৷ তখন ট্রেনটি পরিচিত ছিলো পাঞ্জাব লিমিটেড হিসাবে এবং প্রাথমিকভাবে ট্রেনটি ব্রিট্রিশ কর্মকর্তা, সিভিল সার্জেন্ট এবং তাদের পরিবারবর্গকে ব্যালার্ড পিয়ার হতে পেশোয়ার এবং দিল্লি ও ভারতের উত্তর পশ্চিম সীমান্তে পরিবহন করত৷ এই এক্সপ্রেস ট্রেনটি অপর একটি ট্রেন দ্যা গ্রান্ড ট্রাঙ্ক এক্সপ্রেস, যা ১৯২৯ সালের ১ জানুয়ারী হতে চলাচল করে, তা হতেও পুরাতন৷ ১৯১৪ সালে পাঞ্জাব মেইল এর যাত্রা শুরুর স্টেশন পরিবর্তন করে ভিক্টোরিয়া টার্মিনাস এ নিয়ে যাওয়া হয় এবং পরবর্তী সময়ে ১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পরে পুনরায় ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের ফিরোজপুরে নিয়ে আসা হয়৷

কোচসমূহ[সম্পাদনা]

বর্তমানে দ্যা ১২১৩৭/১২১৩৮ পাঞ্জাব মেইল এর ১টি এসি ফার্স্ট ক্লাস কাম এসি ২ টিয়ার কোচ, ১ টি এসি ২ টিয়ার কোচ, ১ টি এসি ২ কাম এসি ৩ টিয়ার কোচ, ৫ টি এসি ৩ টিয়ার কোচ, ১০ টি স্লীপার ক্লাস কোচ, ৩ টি সাধারণ আনরিজার্ভড কোচ এবং ১ টি প্যানট্রি কার রয়েছে৷

ভারতের অধিকাংশ ট্রেন সার্ভিসের ক্ষেত্রেই অবশ্য প্রয়োজনের উপর নির্ভর করে ভারতীয় রেলওয়ে ট্রেনের কোচ কম্বিনেশনের উপর যে কোনও পরিবর্তন আনতে পারে৷

পাঞ্জাব মেইল অবশ্য একটি রেলওয়ে মেইল কোচও পরিবহন করে থাকে৷ আর এ কারণেই এক্সপ্রেসটির নামের সাথে মেইল শব্দটি যু্ক্ত হয়েছে৷[১]

সার্ভিস[সম্পাদনা]

পাঞ্জাব মেইল ১২১৩৭ নং ট্রেনটি ৩৪ ঘন্টা ০০ মিনিটে ১৯৩০ কিলোমিটার(৫৬.৭৬ কিমি/ঘন্টা) পথ অতিক্রম করে এবং পাঞ্জাব মেইল ১২১৩৮ নং ট্রেনটি ৩৩ ঘন্টা ৫৫ মিনিটে ১৯৩০ কিলোমিটার(৫৬.৯০ কিমি/ঘন্টা) পথ অতিক্রম করে৷

ইন্ডিয়ান রেলওয়ের নিয়মানুসারে যেহেতু ট্রেনটির গড় গতি ৫৫ কিমি/ঘন্টা(৩৪ মাইল/ঘন্টা), তাই এটিকে সুপারফাস্ট এক্সপ্রেস ট্রেন এর মধ্যে অন্তর্ভূক্ত করা হয়৷

ব্যবহৃত ইঞ্জিন[সম্পাদনা]

পূর্বে ট্রেনটিকে ৩ টি লোকোমোটিভ পরিচালনা করত৷ একটি ডুয়েল ট্রাকশন ডাব্লিউসিএএম ৩ ইঞ্জিন ট্রেনটিকে মুম্বাই সিএসটি হতে ইগতপুরি পর্যন্ত নিয়ে যেত৷ এরপর ঘাজিয়াবাদ হতে একটি ডাব্লিউএপি ৪ ইঞ্জিন ট্রেনটিকে নয়া দিল্লি পর্যন্ত নিয়ে যেত এবং শেষ পর্যন্ত একটি ডাব্লিউডিপি ৪ ইঞ্জিন ট্রেনটিকে ভগত কি কথি হতে বাকি পথ নিয়ে গিয়ে এর শেষ স্টেশন ফিরোজপুর ক্যান্টনমেন্ট এ পৌঁছাতো৷

সেন্ট্রাল রেলওয়ে ২০১৫ সালের ৬ জুন এর এসি-ডিসি কনভারশন সম্পন্ন করার পর বর্তমানে ট্রেনটি মুম্বাই সিএসটি হতে একটি ডাব্লিউএপি ৪ ইঞ্জিন দ্বারা নয়া দিল্লি পর্যন্ত পরিচালিত হয় এবং একটি ডাব্লিউডিপি ৪ লোকোমোটিভ দ্বারা ভগত কি কথি হতে এর শেষ গন্তবব্যস্থল ফিরোজপুর ক্যান্টনমেন্ট পর্যন্ত পরিচালিত হয়৷

উল্লেখ[সম্পাদনা]

  1. "Punjab Mail"। IRFCA। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

এক্সটার্নাল লিংক[সম্পাদনা]