পটুয়াখালী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পটুয়াখালী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
পটুয়াখালী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়.jpg
অবস্থান
পটুয়াখালী জেলা,বরিশাল বিভাগ
 বাংলাদেশ
তথ্য
ধরনসরকারি স্কুল
নীতিবাক্যজাগো নারী, জাগো বহ্নিশিখা
প্রতিষ্ঠাকাল১৯১৯ (1919)
বিদ্যালয় বোর্ডমাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, বরিশাল
বিদ্যালয় জেলাপটুয়াখালী
সেশনজানুয়ারি–ডিসেম্বর
প্রধান শিক্ষকরফিকুল ইসলাম
শ্রেণী৩য়–১০ম
লিঙ্গমেয়ে
বয়স০৭ থেকে ১৭ পর্যন্ত
ভাষার মাধ্যমবাংলা
ক্রীড়াফুটবল, ক্রিকেট

পটুয়াখালী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় বাংলাদেশের পটুয়াখালী জেলার একটি স্বনামধন্য ও ঐতিহাসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

প্রাতিষ্ঠানিক রূপরেখা[সম্পাদনা]

প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

স্কুলে দুটি অধিবেশনে (শিফ্‌ট) শিক্ষাদান করা হচ্ছে যথা: প্রভাতী অধিবেশন(মর্নিং শিফট) এবং দিবাকালীন অধিবেশন(ডে শিফট)। সকাল ৭.৩০ থেকে প্রভাতী অধিবেশন এবং দুপুর ১২.২০ থেকে দিবা অধিবেশনের কার্যক্রম শুরু হয়। । আবার প্রতিটি শিফটের প্রতি শ্রেণীর ছাত্রী এর পরিমান অনুযায়ী শাখায় ভাগ করা হয়েছে। মূলত শাখা যষ্ঠ শ্রেণী থেকে শুরু। অভিজ্ঞ এবং দক্ষ শিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে স্কুলটিতে উচ্চমানের শিক্ষা প্রদান করা হয়।

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

১০১ বছরের প্রাচীন বিদ্যালয়টি। বর্তমানে বিদ্যালয়ে প্রশাসনিক ভবন সহ (প্রধান ভবন) একাডেমিক ভবনের সংখ্যা ৪টি।

শিক্ষা সুবিধাসমূহ[সম্পাদনা]

এই বিদ্যালয়ে ৩টি বিজ্ঞানাগার, ১টি গ্রন্থাগার, ২টি কম্পিউটার ল্যাবরেটরি, ১টি মিলনায়তন রয়েছে। বিদ্যালয়ে প্রতিবছর শিক্ষার্থীদের শিক্ষাসফরের ব্যবস্থা করা হয়।

সহশিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

প্রতিবছর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়ে থাকে। এছাড়াও রয়েছে,

  • বিজ্ঞান ক্লাব
  • বিতর্ক ক্লাব
  • বাংলাদেশ গার্লস গাইড
  • বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট

ফলাফল[সম্পাদনা]

প্রতিবছরই এ বিদ্যালয়টি খুব ভালো ফলাফল অর্জন করে আসছে। ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় এ বিদ্যালয়ের পাশের হার ছিল ১০০ শতাংশ।

ভর্তি প্রক্রিয়া[সম্পাদনা]

প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে ৩য় ও ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়ে থাকে।

বেতন[সম্পাদনা]

সরকারি স্কুল হওয়ায় বেতন খুবই কম। সাথে টিফিনের জন্য অতিরিক্ত খরচ নেয়া হয়।

শিক্ষার্থীদের পোশাক[সম্পাদনা]

৩য় থেকে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীদের পোশাক নীল ফ্রক ও সাদা পায়জামা। ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণিদের পোশাক নীল জামা, সাদা পায়জামা ও সাদা ওরনা। সাথে রয়েছে সাদা জুতো, সাদা ক্রস বেল্ট ও নীল বেল্ট।

খেলাধুলা[সম্পাদনা]

খেলাধুলার ক্ষেত্রে অত্র স্কুলের উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহণ আছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]