নোলা (পোষা প্রাণীর জন্য)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কাঠ, দড়ি এবং কার্পেট দিয়ে তৈরি স্ক্র্যাচিং পোষ্ট


নোলা একধরনের খেলনা যা মূলত চাবানোর জন্য ব্যবহার করা হয়। মানব শিশুর প্রথম দাঁত উঠবার সময় তাদের মাড়িতে অস্বস্তিবোধ হয়ে থাকে যা কমাবার জন্য তাদেরকে এই খেলনা দেয়া হয়ে থাকে; যা তারা চিবিয়ে স্বস্তি বোধ করে।

এটিরই আরেকটি ধরন খেলনা হিসেবে তা পোষা প্রাণীদেরকেও দেয়া হয়। মানুষের মাঝে কামড়াবার প্রবণতা কম কাজ করলেও, বাসার পোষা প্রাণী যেমন কুকুর-বিড়ালদের এই প্রবণতা স্বভাবগত। তারা হালকা কামড় দিয়ে বা চেটে দিয়ে তাদের ভালোবাসা প্রকাশ করে থাকে। আবার অবসর সময়ে আয়েশ করে কোনো কিছু কামড়াবার দ্বারা ভালো বোধ করে।

এগুলো কামড়াবার দ্বারা তাদের অলস সময় আনন্দের সাথে অতবাহিত হয়।[১] এবং দাঁত, মাড়ি ও চোয়াল সুগঠিত হয়।[২] শুধু কুকুর এবং বিড়ালের জন্যই নয়, এই ধরনের খেলনা পোষা খরগোশ, গিনিপিগ এবং পাখিদেরকেও দেয়া হয় তাদের প্রয়োজনীয় খেলনা হিসেবে।

আদর্শ পোষা প্রাণীর আনন্দ এবং সুস্বাস্থ্যের জন্য নোলা খুবই উপযোগী একটি খেলনা। এর দ্বারা পোষা প্রাণীকে এটিও শেখানো হয় যে কোনটি সে কামড়াতে পারবে এবং কোনটি তার কামড়ানো নিষিদ্ধ বা উচিত নয়।[৩]

শক্ত চামড়া[সম্পাদনা]

পোষা কুকুর শক্ত চামড়ার তৈরি নোলা দিয়ে খেলছে

সাধারণত বড় প্রাণীর প্রক্রিয়াজাত চামড়া দিয়ে এই ধরনের নোলা তৈরি করা হয়। এই শ্রেণীর নোলা সাধারণত মাংসাশী পোষা প্রাণীর জন্য তৈরি। নিরামিষাশী প্রাণী যেমন গিনিপিগ অথবা খরগোসের ক্ষেত্রে না দেয়াই উত্তম। কারণ প্রাণীর চামড়া দিয়ে তৈরি এবং তারা নিরামিষাশী হওয়াতে পরিপাক তন্ত্রের সমস্যা হতে পারে।[৪]

হাড্ডি[সম্পাদনা]

সাধারণত গরু বা মহিষ-এর বড় হাড্ডি, যা গোশত আলাদা করবার পরে অথবা রান্না করে খাবার পর থেকে যায়।

বিড়ালরা এইধরনের নোলা সাধারণত পছন্দ করে না। কিন্তু কুকুর এই ধরনের নোলা পেলে হিতাহিত জ্ঞানশূন্য হয়ে পড়ে এবং অনেক সময় নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা চাবাতেই থাকে। তাতে কিছু ক্ষতিকর দিক দেখা দেয়, যেমন অনেক সময় দাঁত-মাড়ি বা ঠোঁট কেটে ফেলে ও রক্ত বের হয়ে যায়। আবার শেয়ার করতে চায় না এবং দীর্ঘক্ষণ বাধা না দেয়ার ফলে যা ইচ্ছে তাই করবে এরকম বোধ জন্মে মনস্তাত্ত্বিক ভাবে একরোখা হয়ে উঠতে পারে। তবে প্রথমদিকে রক্ত বের হলেও এটি কুকুরদের দাঁতকে সুগঠিত করে তোলে। এবং কুকুরদের জন্য অনেক জরুরি একটি বস্তু।

কাঠ[সম্পাদনা]

খেলনা দিয়ে খেলার সময় একটি বিড়াল

কাঠের নোলা কাঠ বা গাছের হতে প্রাপ্ত দ্রব্যাদি দিয়ে তৈরি হয়। এবং উপরের স্তরটি উজ্জ্বল রঙের ভেজিটেবল ডাই দিয়ে রঙিন করা থাকতে পারে। এই ধরনের খেলনা সাধারণত খরগোস, গিনিপিগ এবং কুকুরের বেশ পছন্দের। বাছাইকৃত গাছের কাঠ হতে তৈরি ও প্রক্রিয়াজাত করা থাকে বিধায়, যারা জানেন না কি ধরনের গাছের কাঠ দেয়া উচিত তাদের জন্য এটি বেশ সহজ সমাধান।

বাচ্চা কুকুরকে হাড্ডি দিলে যদি সেটির কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তারা নিজেদের আহত করে তাহলে একটি মোটা ও শুকনো কাঠের টুকরো গোশতের সাথে পানি দিয়ে অনেকক্ষণ সিদ্ধ করে তারপর তা রোদে শুকিয়ে, কুকুরকে দেয়া যেতে পারে। তাতে তার দাঁত, চোয়াল ও মাড়ী মজবুত হবে এবং পরবর্তীতে শক্ত কিছু দিলে আহত হবে না। এছাড়াও সাধারণ কাঠের টুকরো বা গাছের ডাল কেটে দেয়া যায়। তবে কামড় দেয়াতে স্বাদ মুখে কাগবে বলে সব ধরনের গাছের ডাল দিয়ে খেলবে না। সে যদি তা দিয়ে না খেলে তাহলে সরিয়ে ফেললেই হবে।

কাগজ[সম্পাদনা]

আঠা বা বিষাক্ত পদার্থহীন কাগজ দিয়ে তৈরি। এই ধরনের নোলা তুলনামূলক সস্তা ও সহজলভ্য, তবে তাড়াতাড়ি ছিঁড়ে বা নষ্ট হওয়াতে কম দীর্ঘস্থায়ী। একটি বহুল ব্যবহৃত কাগজের নোলা হচ্ছে টয়লেট পেপারের মাঝে অবস্থিত মোটা কাগজের টিউব। খবরের কাগজ বান্ডিল কিংবা অব্যবহৃত মোটা বইও নোলা হিসেবে দেয়া যেতে পারে। সাধারণত বিড়ালরা কাগজের খেলনা বেশি পছন্দ করে। বিড়ালরা এটিকে কামড়াবার চাইতে নিজেদের নখ ঘষবার কাজটিই বেশি করে থাকে। এছাড়া কাগজের বল বানিয়ে দিলেও তা বিড়ালদের অনেক আনন্দ দেয়।

খনিজ[সম্পাদনা]

এটি মূলত পাথর বা খনিজের তৈরি ও বিভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে। বিভিন্ন আকৃতির ও রঙের হয়ে থাকে। সুন্দর ফলের আকৃতির পাওয়া যায় অথবা কোন আইসক্রিমের মতন ডিজাইনেরও পাওয়া যায়। এই ধরনের খনিজ নোলা মূলত পোষা প্রাণীদের আয়োডিন ও এই জাতীয় চাহিদা পূরণ করতে সহায়তা করে। আবার পাখিরা এই ধরনের পাথরে ঘষে ও ঠোকর দিয়ে নিজেদের নখ ও ঠোঁট ঠিক রাখে।

খরগোশ এবং গিনিপিগের জন্য এই ধরনের খেলনা তাদের খাদ্যের বা আয়োডিনের ঘাটতি দূর করে। জমাটবদ্ধ খনিজ লবনের নোলা দিলে তারা খেলার পাশাপাশি সেটি চেটে নিজেদের শরীরের লবনের চাহিদা মেটায়।

দড়ি[সম্পাদনা]

পোষা বিড়াল দড়ি প্যাচানো স্ট্যান্ডের সাথে বাঁধা খেলনা দিয়ে খেলছে।

মূলত নাইলন অথবা পাটের দড়িতে গিঁট দিয়ে বা বলের মতন আকৃতিতে এরকম নোলা তৈরি করা হয়। এই ধরনের নোলা কুকুর এবং বিড়ালের বিশেষ পছন্দ। এক বা দুই ফুট উচ্চতার কিছুকে পাটের দড়ি দিয়ে পেঁচিয়ে বিড়ালের জন্য স্ক্রাচিং পোষ্ট তৈরি করে দিলে তাতে বিড়াল নিজের নখ ঘষে নখকে ঠিক রাখতে পছন্দ করে।

রাবার[সম্পাদনা]

পোষা কুকুর রাবারের তৈরি কং নামক নোলা নিয়ে খেলছে।

রাবারের নোলা মূলত কুকুরদের জন্যই বেশি কার্যকর। খরগোস কিংবা গিনিপিগদের রাবারের নোলা দিলে তারা তা পছন্দ করে; ঠিকই তবে খুব অল্প সময়েই কেটে কুটিকুটি করে কেটে ফেলে। বাজারে বিভিন্ন ধরনের রাবারের নোলা পাওয়া যায়। এদের একপ্রকারের ভেতরটা ফাঁকা রাখা হয় এবং তাতে খাবার দেয়ার ব্যবস্থা থাকে। কং নামে পরিচিত বিশেষ আকৃতির রাবারের নোলা ব্যাপক জনপ্রিয়।

নোলা এর ব্যাপারে সতর্কতা[সম্পাদনা]

কার্পেট জাতীয় বস্তু দিয়ে কুকুর-বিড়ালের জন্য তৈরি স্ক্র্যাচিং প্যাড

ওরা বুড়ো হয়ে গেলেও ওদের মানসিকতা বাচ্চাদের মতনই থেকে যায়। প্রকৃতিতে স্বাধীনভাবে বড় হলে তারা নিজেদের পছন্দ মতন ভালো-খারাপটা দেখে ও বুঝে নিতে পারে। কিন্তু আটকে রেখে বা লোকালয়ে পালন করলে পশুপাখিরা সেই সুবিধা হতে বঞ্চিত হয় ও অনেক কিছুই বুঝতে পারে না।

একটি নিডল নোজ বা পিঞ্চ নোজ প্লায়ার্স

অনেক সময় হাড্ডি বা ছোটো কিছু চাবাতে গেলে তা কুকুর-বিড়ালের দাঁতের ফাঁকে আটকে যেতে পারে। আবার অনেক সময় তাদের মুখের ভেতরের অংশে উপরের দিকেও আটকে যায়। যার ফলে তারা সেটিকে বের করতে না পেরে দিশেহারা হয়ে যায় ও অস্থির হয়ে পড়ে। এরকম হলে তাদের সাথে কথা বলে, আদর করে শান্ত করে সেটিকে বের করে দিতে হয়। এই কাজের সময় মুখের ভেতর হাত না দিয়ে, আটকে যাওয়া জিনিসটিকে ধরার জন্য বাসায় একটি Needle-nose অথবা Pinch-nose pliers নামে পরিচিত প্লায়ার্স থাকা জরুরী।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Dog chew toy (United States Patent 5477815)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. How to Prevent Puppy Chewing Problems[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. Lynn Smith, Chandra (২০০৯-০৪-১৯)। "Use chew toys, leash to help train puppies"। The Evening Sun। ২০০৯-০৯-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৫-০২ 
  4. Parent, Lucia E.; Lucia Roesel-Parent (২০০৩)। Beagles: Everything about Purchase, Care, Nutrition, Handling, and। Barron's Educational Series। পৃষ্ঠা 23। আইএসবিএন 0-7641-2002-6