নুরুল হক (ক্যাপ্টেন)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

নুরুল হক
নুরুল হক.jpg
বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রধান
কাজের মেয়াদ
৭ এপ্রিল ১৯৭২ – ৬ নভেম্বর ১৯৭৩
প্রধানমন্ত্রীশেখ মুজিবুর রহমান
উত্তরসূরীএম এইচ খান
বাংলাদেশের নৌ-পরিবহন মন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
৪ জুলাই ১৯৭৮ – ২৭ নভেম্বর ১৯৮১
রাষ্ট্রপতিজিয়াউর রহমান
উত্তরসূরীএম. মজিদুল হক
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম(১৯৩৬-০১-১২)১২ জানুয়ারি ১৯৩৬
ঢাকা, ব্রিটিশ ভারত (বর্তমান- বাংলাদেশ)
মৃত্যু২৫ জানুয়ারি ২০২১(2021-01-25) (বয়স ৮৫)
সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল, ঢাকা
সমাধিস্থলবনানী সামরিক কবরস্থান, ঢাকা
সামরিক পরিষেবা
শাখাNaval Jack of Pakistan.svgপাকিস্তান নৌবাহিনী
(১৯৫২–৭০)
 বাংলাদেশ নৌবাহিনী
(১৯৭১–৭৩)
কাজের মেয়াদ১৯৫২ থেকে ১৯৭৩
পদক্যাপ্টেন
09.BNF-CPT.svg
কমান্ডনৌবাহিনী প্রধান

অপারেশনস পরিচালক - বাংলাদেশ কোষ্ট গার্ড

কমান্ডার চিটাগাং নেভাল এরিয়া

ক্যাপ্টেন নুরুল হক (১২ জানুয়ারি ১৯৩৬ – ২৫ জানুয়ারি ২০২১) বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রথম স্থায়ী প্রধান ছিলেন। তিনি পাকিস্তান নৌবাহিনীতে কমোডোর পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

নুরুল হক ১৯৩৬ সালের ১২ জানুয়ারি ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৩ সালের ১ মে তিনি তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানের কোয়েটায় প্রি-ক্যাডেট ট্রেনিং স্কুলে ক্যাডেট হিসেবে ভর্তি হন। তারপর একই বছরের অক্টোবরে তিনি পাকিস্তান নেভি ক্যাডেট ট্রেনিং স্কুলে যোগদান করেন। পরবর্তীতে, ১৯৫৪ সালের সেপ্টেম্বর মাসে যুক্তরাজ্যের ডর্থ মাউথে অবস্থিত ব্রিটানিয়া রয়েল নেভাল কলেজে ঈগল ও ট্রাম্প নামক দুটি জাহাজে তার সামরিক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়। ১৯৫৭ সালের ১ জানুয়ারি তিনি যুক্তরাজ্য থেকে কমিশন পান। পরবর্তীকালে, যুক্তরাজ্যের রয়্যাল নেভাল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে ১৯৫৮ সালে বেসিক ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স এবং ১৯৬১ সালে মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং স্পেশালাইজেশন কোর্স সম্পন্ন করেন তিনি।[১][২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

প্রশিক্ষণ শেষে নুরুল হক দেশে ফিরে আসেন এবং তৎকালীন পাকিস্তান নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজের সিনিয়র ইঞ্জিনিয়ার অফিসার, নৌ-ঘাঁটির ইঞ্জিনিয়ার অফিসার, ডেস্ট্রয়ার জাহাজের ইঞ্জিনিয়ার অফিসার, ট্রেইনিং স্কুলের স্টাফ অফিসার ইত্যাদি পদে কাজ করেন।[৩]

দেশ স্বাধীনের পর ৭ এপ্রিল ১৯৭২ সাল থেকে ৬ নভেম্বর ১৯৭৩ সাল পর্যন্ত নৌবাহিনী প্রধান ছিলেন।[৪][৫][৬]

১৯৭৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তিনি বাংলাদেশের নৌ-পরিবহন উপদেষ্টা নিযুক্ত হন। ১৯৭৮ সালের ৪ জুলাই তিনি নৌ-পরিবহন মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন এবং ১৯৮১ সালের ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করেন।[৭]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

২৬ জানুয়ারি ২০২১ সালে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।[৩] জোহরের নামাজের পর নৌ সদর দফতর মসজিদে তার জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয় এবং এরপর তাকে বনানীর সামরিক কবরস্থান সমাহিত করা হয়।[৮]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "দেশের প্রথম নৌপ্রধান ক্যাপ্টেন নুরুল হক আর নেই"এনটিভি। ২০২১-০১-২৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৬ 
  2. "Bangladesh's first chief of naval staff Nurul Huq dies"প্রথম আলো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৬ 
  3. "নৌবাহিনীর প্রথম প্রধান ক্যাপ্টেন নুরুল হক আর নেই"যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৬ 
  4. "Bangladesh Navy"www.navy.mil.bd। ২০১৬-০৭-১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৮-০৯ 
  5. News Review on South Asia and Indian Ocean (ইংরেজি ভাষায়)। Institute for Defence Studies & Analyses.। ১৯৮২-০৭-০১। 
  6. Suhrawardi, Ghulam M. (২০১৫-১২-০২)। Bangladesh Maritime History (ইংরেজি ভাষায়)। FriesenPress। আইএসবিএন 9781460272794 
  7. "বর্তমান ও প্রাক্তন মন্ত্রীবর্গ"নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় (বাংলাদেশ)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০২১ 
  8. "দেশের প্রথম নৌ-প্রধান ক্যাপ্টেন নুরুল হক আর নেই"বাংলা ট্রিবিউন। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

সামরিক দপ্তর
নতুন পদবী বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রধান
১৯৭২–১৯৭৩
উত্তরসূরী
রিয়ার অ্যাডমিরাল এম এইচ খান