নুরুন নাহার বকুল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নুরুন নাহার বকুল
নুরুন নাহার বকুল.jpg
২০১৯ এ নুরুন নাহার বকুল
জন্ম (1971-01-01) জানুয়ারি ১, ১৯৭১ (বয়স ৪৮)
বাসস্থানমতলব দক্ষিণ
জাতীয়তাবাংলাদেশি
শিক্ষাস্নাতক স্নাতকোত্তর
পেশাশিক্ষকতা
প্রতিষ্ঠানপ্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর
পরিচিতির কারণজাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রাথমিক শিক্ষক
আদি নিবাসচাঁদপুর
উপাধিশিক্ষাবিদ
দাম্পত্য সঙ্গীমোঃ ওয়ালী উল্যাহ ঢালী
সন্তাননাজমুল হোসাইন বাঁধন
নাহিন ফেরদাউস হৃদয়
নূরে তাহসিন অনন্য
পিতা-মাতা
  • মুক্তার আহমেদ (পিতা)
  • রাজিয়া আহমেদ (মাতা)
পুরস্কারজাতীয় শিক্ষা পদক-২০১৪

নুরুন নাহার বকুল (১ জানুয়ারি ১৯৭১) জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকা-২০১৪ হিসেবে শিক্ষা পদক প্রাপ্ত একজন শিক্ষাবিদ ও লেখক।[১] তিনি উপজেলা পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ প্রাথমিক শিক্ষিকা হিসেবে উপজেলা পর্যায়ে পরপর ৪ বার, জেলা পর্যায়ে ৩ বার ও বিভাগীয় পর্যায়ে দুই বার পুরস্কার ও স্বীকৃতি পেয়েছেন।

পারিবারিক জীবন[সম্পাদনা]

নুরুন নাহার বকুল চাঁদপুর জেলার মতলব দক্ষিণ উপজেলার কলাদী গ্রামের ডাক্তার পাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। পিতা মুক্তার আহমেদ বৃহত্তর মতলবের বিশিষ্ট দলিল লিখক ছিলেন, মা রাজিয়া আহমেদ গৃহিনী ছিলেন। আট ভাইবোনের মধ্যে তিনি পঞ্চম। তারেদ পরিবারে দুই বোন শিক্ষকতায় পেশা নিয়োজিত। তিনি দশম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় মায়ের ইচ্ছায় মোঃ ওয়ালী উল্যাহ ঢালীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। দাম্পত্য জীবনে তিনি ৩ সন্তানের জননী।

শিক্ষা ও কর্ম জীবন[সম্পাদনা]

এ শিক্ষাবিদ নিজের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ও শিক্ষকতা দুটো একত্রেই চালু রাখেন। ১৯৮৯ সালে মতলবগঞ্জ জেবি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, ১৯৯৩ সালে একই কলেজ থেকে এইচএসসি ও ১৯৯৬ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি ২০১৪ সালে অনিয়মিত শিক্ষার্থী হিসেবে চাঁদপুর সরকারি কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন। করেন। এরমধ্যে ১৯৯০ সালে মতলব দক্ষিণ উপজেলার নারায়ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদানের মধ্য দিয়ে শিক্ষকতা পেশা শুরু করেন। এরপর একই বছরের সেপ্টেম্বরে নওগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করেন। ১৯৯৪-২০০২ পর্যন্ত কয়েক দফা সিপাইকান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ভাঙনের কবলে পড়লে তিনি ওই বিদ্যালয়টিকে নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা করে বেড়িবাঁধের অভ্যন্তরে স্থানান্তরের ব্যবস্থা করে এলাবাসীর নিকট সমাদৃত হন। ২০০৫ সালে মতলব মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

এ শিক্ষাবিদ ২০১১ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত মতলব দক্ষিণ উপজেলা পর্যায়ে চারবার, ২০১২ সাল থেকে ২০১৪ সালে চাঁদপুর জেলা পর্যায়ে তিনবার, ২০১৩ – ২০১৪ সালে চট্টগ্রাম বিভাগীয় পর্যায়ে দুই বার এবং ২০১৪ সালে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষিকা হিসেবে প্রধানমন্ত্রী “শেখ হাসিনার” কাছ থেকে থেকে শিক্ষা পদক ও সনদ গ্রহণ করেন। এছাড়া শিক্ষাক্ষেত্রে বিশেষ অবদান স্বরুপ চাঁদপুর রোটারী ক্লাব থেকে ২০১২ ও ২০১৩ সালে পরপর দুইবার, শাহাজউদ্দিন ফাউন্ডেশন থেকে ২০১১ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত চারবার, ২০১৪ সালে শিক্ষা ও চাকুরি ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য বেগম রেকেয়া দিবসে জয়িতা পুরস্কার পান।

লেখক[সম্পাদনা]

নুরুন নাহার বকুল অবসর সময়ে লেখালেখি করেন। ২০১১ সালে কবিতার বই নবদ্যূতি প্রকাশ হয়। ২০১৩ সালে একক সম্পাদনায় স্মরণিকা চিরন্তন প্রকাশ করেন। এছাড়া তিনি বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় শিক্ষা বিষয়ক কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ, ফিচার ইত্যাদি লিখে যাচ্ছেন। সেরা লেখক হিসেবে বিভিন্ন সংস্থা থেকে একাধিকবার পুরস্কার পেয়েছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকা"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুন ২০১৯