নুমেয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নুমেয়া
Nouméa
কম্যুন
নুমেয়া শহরকেন্দ্র ও নুমেয়া ক্যাথেড্রাল (মহাগির্জা)
নুমেয়া শহরকেন্দ্র ও নুমেয়া ক্যাথেড্রাল (মহাগির্জা)
নুমেয়া Nouméa প্রতীক
প্রতীক
নতুন ক্যালেডোনিয়াতে নুমেয়া শহরের অবস্থান(লাল রঙ)
নতুন ক্যালেডোনিয়াতে
নুমেয়া শহরের অবস্থান(লাল রঙ)
স্থানাঙ্ক: ২২°১৬′৩৩″ দক্ষিণ ১৬৬°২৭′২৯″ পূর্ব / ২২.২৭৫৮° দক্ষিণ ১৬৬.৪৫৮০° পূর্ব / -22.2758; 166.4580স্থানাঙ্ক: ২২°১৬′৩৩″ দক্ষিণ ১৬৬°২৭′২৯″ পূর্ব / ২২.২৭৫৮° দক্ষিণ ১৬৬.৪৫৮০° পূর্ব / -22.2758; 166.4580
দেশ ফ্রান্স
সুই জেনেরিস সমবেতনয়া ক্যালিডোনিয়া
প্রদেশদক্ষিণ প্রদেশ
(প্রদেশের রাজধানী)
সরকার
 • মেয়র (২০১৪–বর্তমান) সোনিয়া লাগার্দ
আয়তন[১]৪৫.৭ কিমি (১৭.৬ বর্গমাইল)
 • মূল শহর১৬৪৩ কিমি (৬৩৪ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (আগস্ট ২০১৪ জনগণনা[২])৯৯,৯২৬
 • জনঘনত্ব২২০০/কিমি (৫৭০০/বর্গমাইল)
 • মূল শহর১,৭৯,৫০৯
 • মূল শহরের জনঘনত্ব১১০/কিমি (২৮০/বর্গমাইল)
জাতিগত বন্টন
 • 1996 censusশ্বেতাঙ্গ ৫০.৯%
কানাক ২২.৯%
পলিনেশীয় ১২.৩%
অন্যান্য ১৩.৯%
আইএনএসইই/ডাক কোড98818 /98800
উচ্চতা০–১৬৭ মি (০–৫৪৮ ফু)
(avg. ২০ মি অথবা ৬৬ ফু)
নিউ ক্যালেডোনিয়ার ভূমি রেজিস্টার (ডিআইটিটিটি) তথ্য, যার ভেতর হ্রদ এবং পুকুর ১ বর্গকি.মি. (০.৩৮৬ বর্গ মাইল বা ২৪৭ একর) এর অধিক এবং সেইসাথে পাশাপাশি নদীর মোহনা।

নুমেয়া (ফরাসি: Nouméa) দক্ষিণ-পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত ফরাসি সামুদ্রিক অঞ্চল ও দ্বীপপুঞ্জ নতুন ক্যালিডোনিয়া বা নুভেল কালেদোনির মূল দ্বীপ গ্রঁদ তের-এর দক্ষিণ-পশ্চিম কোণে একটি উপদ্বীপে অবস্থিত শহর, বন্দর ও আঞ্চলিক রাজধানী। ১৮৫৪ সালে পর-দ্য-ফ্রঁস (Port-de-France) নামে এটিকে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। এটি নু দ্বীপ (Nou) এবং একটি প্রবাল প্রাচীর দ্বারা সুরক্ষিত একটি উৎকৃষ্ট গভীর জলের পোতাশ্রয়ের কিনারে অবস্থিত। নুমেয়ার মূল ঘাটটি ৪৪২ মিটার দীর্ঘ। শহরের পেছনে কিছু অনুচ্চ পাহাড় অবস্থিত। বর্তমানে শহরটি অঞ্চলটির প্রধানতম প্রশাসনিক ও বাণিজ্যিক কেন্দ্র। শহরে অনেক আধুনিক ভবন, একটি বড় উন্মুক্ত বাজার এবং সন্তু যোসেফের ক্যাথেড্রাল নামের একটি পুরাতন প্রস্তরনির্মিত গির্জা আছে। আরও আছে ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠিত নতুন ক্যালিডোনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় (অতীতে যেটি ফরাসি প্রশান্ত মহাসাগরীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশ ছিল), স্থানীয় সামুদ্রিক জীবদের প্রদর্শনকারী একটি প্রবাল মৎস্যাধার বা অ্যাকুয়ারিয়াম (Aquarium des Lagons আক্যুয়রিয়ম দে লাগোঁ), ইয়াতে জলপ্রপাতের কাছে অবস্থিত একটি জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র এবং নিকটস্থ দুইয়ঁবো বিন্দুতে অবস্থিত একটি নিকেল পরিশোধন কারখানা। নুমেয়া দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সবচেয়ে শিল্পপ্রধান শহরগুলির একটি।

নুমেয়ার সংস্কৃতিতে ফরাসি ও স্থানীয় কানাক সংস্কৃতির মেলবন্ধন ঘটেছে। এর সমুদ্র সৈকতগুলি পর্যটকদের কাছে সুপরিচিত। নুমেয়াতে ১৯৭১ সালে প্রতিষ্ঠিত চারু ও দারুকলার জাতীয় সংগ্রহশালা ও বার্নহাইম গ্রন্থাগারটি উল্লেখযোগ্য সাংস্কৃতিক স্থান। ১৯৯৫-৯৮ সালে নির্মিত জঁ-মারি জিবাউ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি আদিবাসী নতুন ক্যালিডোনীয় কানাকদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও উপস্থাপনের জন্য নিবেদিত; এটি শহরের ঠিক পূর্বে একটি উপদ্বীপের উপরে অবস্থিত প্রধানতম সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান। ইতালীয় স্থপতি রেনজো পিয়ানো ঐতিহ্যবাহী কানাক স্থাপত্যের দ্বারা উদ্বুদ্ধ হয়ে কেন্দ্রটির নজরকাড়া নকশাটি প্রণয়ন করেন। ম্যুজে দ্য লা নুভেল কালেদোনি-তে (Musée de Nouvelle-Calédonie "নতুন ক্যালিডোনিয়া জাদুঘর") সমগ্র প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বিভিন্ন নিদর্শনের সমাহার ঘটেছে।

শহরটিকে দুইটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সেবা প্রদান করছে, তোনতুতা এবং ম্যাজেন্টা বিমানবন্দর।

ফরাসিরা ১৮৫৩ সালে নুমেয়া শহরটি দখলে নেয়। এটি ১৮৬৪ থেকে ১৮৯৭ সাল পর্যন্ত ফরাসি অপরাধীদের উপনিবেশ ছিল। ২য় বিশ্বযুদ্ধে মার্কিন বিমানবাহিনীর একটি ঘাঁটিকে জায়গা করে দেবার পর থেকে শহরটির দ্রুত উন্নতি হয়।

নুমেয়া শহরে প্রায় ১ লক্ষ লোকের বাস। নুমেয়া, ল্য মোঁ-দর, দাঁবেয়া ও পাইতা শহরগুলি নিয়ে গঠিত বৃহত্তর নুমেয়া পৌর এলাকাতে ১ লক্ষ ৮০ হাজার লোক বাস করে, যা সমগ্র নতুন ক্যালিডোনিয়ার জনগণের দুই-তৃতীয়াংশ। এদের মধ্যে ইউরোপীয়, পলিনেশীয় (ওয়ালিসীয়, ফুতুনীয়, তাহিতীয়), ইন্দোনেশীয়, ভিয়েতনামীয়, মেলানেশীয়, নি-ভানুয়াতু এবং আদিবাসী কানাক সম্প্রদায় আছে। এরা প্রায় সবাই ফরাসি ভাষাতে কথা বলতে ও লিখতে-পড়তে পারে। এক-পঞ্চমাংশ লোক আদিবাসি কানাক ভাষাগুলিতে কথা বলে।

নুমেয়ার তাপমাত্রা এপ্রিল থেকে নভেম্বর পর্যন্ত উষ্ণ এবং ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত উত্তপ্ত প্রকৃতির। সেপ্টেম্বর-অক্টোবর মাসে শুষ্ক মৌসুম। সেপ্টেম্বর থেকে জানুয়ারি মাস পর্যটকদের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয়। এপ্রিল মাসে উদযাপিত মিষ্টি আলু বা ইয়াম উৎসব একটি গুরুত্বপূর্ণ বার্ষিক অনুষ্ঠান যেখানে কার্নিভাল, শোভাযাত্রা, গণসঙ্গীত পরিবেশনা, ইত্যাদির আয়োজন করা হয়। জুলাই মাসের ১৪ তারিখে ফ্রান্সের জাতীয় দিবস বা বাস্তিই দিবস পালন করা হয়, যেসময় আতশবাজি, সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশিত হয়। আগস্ট মাসের নুমেয়া কার্নিভালটি এর বর্ণিল ও বিশেষ থিম বা বিষয়ভিত্তিক রাজপথ শোভাযাত্রার জন্য পরিচিত।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Tableaux de l'économie calédonienne, Chapitre 1 : TERRITOIRE-ENVIRONNEMENT" (PDF)। ISEE। ২০১২। ১৩ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ১৪ অক্টোবর ২০১৩ 
  2. "Recensement de la population 2014 - Populations légales 2014"। ISEE। ১৯ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ নভেম্বর ২০১৪