নীল মসজিদ (মাজার-ই-শরীফ)

স্থানাঙ্ক: ৩৬°৪২′৩০″ উত্তর ৬৭°০৬′৪০″ পূর্ব / ৩৬.৭০৮৩৩° উত্তর ৬৭.১১১১১° পূর্ব / 36.70833; 67.11111
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নীল মসজিদ
রওজে-এ-শরিফ
Blue Mosque in the northern Afghan city in 2012.jpg
২০১২ সালে নীল মসজিদ
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিইসলাম
উৎসবনওরোজ[১]
অবস্থান
অবস্থানমাজার-ই-শরিফ, বাল্‌খ প্রদেশ, আফগানিস্তান
ভৌগোলিক স্থানাঙ্ক৩৬°৪২′৩০″ উত্তর ৬৭°০৬′৪০″ পূর্ব / ৩৬.৭০৮৩৩° উত্তর ৬৭.১১১১১° পূর্ব / 36.70833; 67.11111
স্থাপত্য
ধরনমসজিদ
স্থাপত্য শৈলীইসলামী
সম্পূর্ণ হয়১৪৮১

নীল মসজিদ, যা হযরত আলীর মাজার নামেও পরিচিত, হচ্ছে আফগানিস্তানের উত্তর বালখ প্রদেশের মাজার-ই-শরিফের কেন্দ্রে অবস্থিত একটি মসজিদ

এই স্থানে অনেক তীর্থযাত্রী বার্ষিক নওরোজ (পার্সিয়ান নববর্ষ) উদ্‌যাপন করে। বার্ষিক জাহেন্দা বালা অনুষ্ঠানে হযরত আলীর সম্মানে একটি পবিত্র পতাকা উত্তোলন করা হয়। নতুন বছরে ভালো ভাগ্য লাভের জন্য অনেকে পতাকাটি স্পর্শ করে।[২][৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সেলজুক রাজবংশের সুলতান আহমেদ সানজার এই স্থানে এই পর্যন্ত জানা প্রথম মাজারটি নির্মাণ করেছিলেন। এটি প্রায় ১২২০ সালের দিকে চেঙ্গিস খান আক্রমণ করার সময় ধ্বংস করা বা মাটির বাঁধের আড়ালে লুকিয়ে রাখা হয়। পঞ্চদশ শতাব্দীতে তৈমুরি সুলতান হুসেন বায়কারাহ মির্জা এখানে বর্তমান নীল মসজিদটি নির্মাণ করেছিলেন। এটি এখন পর্যন্ত মাজার-ই-শরীফের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন এবং ধারণা করা হয় যে শহরের নামের (নোবেল মাজার, হজরত-ই-আলী শরীফের কবর) উৎস এই মাজার থেকে।

১৯১০-এর দশকের একটি নকশায় দেখা যায় যে মসজিদে এর আগে একটি ছোট প্রাচীরের প্রান্ত ছিল, যা পরে পার্কের জায়াগা তৈরি করার জন্য ভেঙে ফেলা হয়। যদিও সেটার দ্বারগুলো এখনও মাজারের প্রবেশপথ হিসাবে ব্যবহার করা হয়।[৪]

কয়েক বছর ধরে আফগান রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় নেতাদের বিভিন্ন আকারের সমাধিগুলো যুক্ত হচ্ছে। যা বর্তমানে মাজারের আকৃতির পরিবর্তন করছে। এর মধ্যে রয়েছে আমির দোস্ত মুহাম্মদ খান, ওয়াজির আকবর খানের বর্গক্ষেত্র গম্বুজযুক্ত সমাধি এবং আমির শের আলী ও তার পরিবারের জন্য অনুরূপ কাঠামো।[৪]

স্থানীয় এক জনশ্রুতি অনুসারে, আলীকে হজরত আলীর মাজারে দাফন করা হয়েছে। শত্রুরা তার লাশকে অপমান করা থেকে রক্ষা করার জন্য আলীকে এখানে একটি সাদা উট নিয়ে এসেছিল বলে জানা যায়। তবে বেশিরভাগ মুসলিমই ধারণা করেন যে আলীকে ইরাকের নাজাফের ইমাম আলী মসজিদে কবর দেওয়া হয়েছে। আলীর কবর বলে খবর প্রচারণাটা ইসলামী সাম্রাজ্যে সমাধিটি সুরক্ষিত ও সম্মানিত করা হবে নিশ্চিতকরণের জন্য একটি কল্পকাহিনী হতে পারে।[৫]

গ্যালারি[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. https://www.wondermondo.com/shrine-of-ali-mazar-i-sharif-blue-mosque/
  2. "Janda Bala, flag raising, marked in Balkh"www.pajhwok.com। ২০২০-০৩-২৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৮ 
  3. "Thousands celebrate Nowruz in Mazar-i-Sharif"UNAMA (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১০-০৩-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৮ 
  4. "Mazar-e Sharif, Afghanistan"। ArchNet। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৪ 
  5. Glassé, C. (২০০৩)। The New Encyclopedia of Islam