নিয়ন আলো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Photograph of a crowded city street at night. The street is in a commercial district; the buildings all have at least several stories, and some are high rise. The buildings have elaborate signs, many of which incorporate neon lighting. There are prominent signs for Madame Tussaud's, Loew's, Empire, AMC 25 Theatre, and Modell's.
টাইমস স্কোয়ার, নিউইয়র্ক সিটির আশেপাশে, ১৯২০-এর দশকের পর থেকে নিয়নের নিখরচায় বিস্তৃত আলোর প্রদর্শনীর জন্য বিখ্যাত
পিকাদিলি সার্কাস, লন্ডন, ১৯৬২

নিয়ন আলো হল উজ্জ্বলভাবে প্রদীপ্ত, বৈদ্যুতিক গ্লাস টিউব বা বাল্বের সমন্বয়ে গঠিত বাতি যেগুলোতে বিরল নিয়ন বা অন্য গ্যাসসমূহ প্রবেশ করানো থাকে। নিয়ন আলোসমূহ এক ধরণের কোল্ড ক্যাথোড গ্যাস ডিসচার্জ লাইট। নিয়ন টিউব হল একটি বদ্ধ গ্লাস নল যেটিতে বেশ কয়েকটি গ্যাসসমূহকে কম চাপে পূর্ণ করা থাকে এবং যার প্রতিটি প্রান্তে একটি ধাতব ইলেকট্রোড থাকে। ইলেকট্রোডের জন্য প্রয়োগ করা উচ্চ শক্তিশালী কয়েক হাজার ভোল্ট টিউবটির গ্যাসকে আয়নিত করে, যার ফলে এটি রঙিন আলো ছড়িয়ে দেয়। আলোর রং নির্ভর করে টিউবের গ্যাসের উপর। নিয়ন লাইটের নাম নিষ্ক্রিয় গ্যাস নিয়নের নামানুসারে রাখা হয় যেটি জনপ্রিয় কমলা আলো প্রদান করে, আবার অন্যান্য গ্যাস এবং রাসায়নিকসমূহ দিয়ে অন্যান্য রং সৃষ্টি করা যায় যেমন, হাইড্রোজেন (লাল), হিলিয়াম (হলুদ), কার্বন ডাই অক্সাইড (সাদা), এবং পারদ (নীল)। নিয়ন টিউবগুলিকে যেকোন শৈল্পিক আকৃতির আকৃতিতে তৈরি করা যায় এবং তা হতে পারে কোন অক্ষর বা ছবি। তাদেরকে প্রধানত বিজ্ঞাপনের জন্য চমকপ্রদ, নানা রং এর প্রদীপ্ত চিহ্নসমূহ তৈরি করার জন্য ব্যবহৃত হত যাদেরকে নিয়ন সাইন বলা হত এবং তা ১৯২০ থেকে ১৯৫০ এর দশকে জনপ্রিয় ছিল।

পরিভাষাটি ক্ষুদ্রাকৃতির নিয়ন দীপ্ত বাতিকেও নির্দেশ করে যেগুলোকে প্রায় নিয়ন টিউব লাইটের সাত বছর পরে ১৯১৭ সালে বিকশিত করা হয়[১]। যদিও নিয়ন টিউব লাইটসমূহ সাধারণত লম্বায় মিটারে হয়ে থাকে, তবুও নিয়ন বাতিসমূহ দৈর্ঘ্যে এক সেন্টিমিটারের চাইতেও ছোট হতে পারে এবং টিউব লাইটের তুলনায় অনেক বেশি অনুজ্জ্বল দ্যুতি ছড়াতে পারে। তাদেরকে ছোট নির্দেশক বাতি হিসেবে এখনও ব্যবহার করা হয়। ১৯৭০ এর দশকে নিয়ন গ্লো ল্যাম্পসমূহ ইলেকট্রনিক্সের সংখ্যাসূচক ডিসপ্লে, ক্ষুদ্র আলংকারিক বাতির জন্য এবং বর্তনীতে সংকেত প্রক্রিয়াকরণ ডিভাইস হিসেবে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হত। যদিও বাতিগুলো এখন সুপ্রাচীন, পরবর্তীতে নিয়ন গ্লো ল্যাম্পের প্রযুক্তিকে সমসাময়িক প্লাজমা পর্দা এবং টেলিভিশনের মধ্যে উন্নীত করা হয়[২][৩]

১৮৯৮ সালে ব্রিটিশ বিজ্ঞানী উইলিয়াম রেমজি এবং মরিস ডব্লিউ ট্র্যাভেস নিয়ন আবিষ্কার করেন। বায়ুমণ্ডল থেকে বিশুদ্ধ নিয়ন পাওয়ার পরে, তারা একটি ইলেকট্রিক্যাল গ্যাস-ডিসচার্জ টিউব ব্যবহার করে তার বৈশিষ্ট্যগুলি অনুসন্ধান করেন যা আজকের নিয়নের লক্ষণগুলির জন্য ব্যবহৃত টিউবের অনুরূপ। জর্জ ক্লড, ফরাসি প্রকৌশলী ও উদ্ভাবক, ১৯১০ সালের ডিসেম্বর মাসের ৩-১৮ তারিখ পর্যন্ত প্যারিস মোটর শোতে আধুনিক রূপে নিয়ন টিউব লাইটিংটি উপস্থাপন করেন[৪][৫][৬]। ক্লড যাকে কখনও কখনও ফ্রান্সের এডিসন বলা হয়,[৭] নতুন প্রযুক্তির উপর তার প্রায় একচেটিয়া আধিপত্য ছিল, যা ১৯২০-১৯৪০ সালের মধ্যে চিহ্ন এবং প্রদর্শনীর জন্য খুব জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। নিয়ন আলো সেই যুগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ সাংস্কৃতিক প্রপঞ্চ ছিল;[৮] ১৯৪০ সালের মধ্যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় প্রতিটি শহরের কেন্দ্রস্থল নিয়ন সাইন সমূহের মাধ্যমে উজ্জ্বল ছিল এবং নিউ ইয়র্ক সিটির টাইমস স্কোয়ারটি নিয়নের বেহিসাবি ব্যবহারের জন্য বিশ্বব্যাপী পরিচিতি লাভ করে[৯][১০]। নিয়ন সাইনগুলি নকশা এবং নির্মাণ করার জন্য সারা বিশ্বে ২০০০টি দোকান ছিল.[১১][১২]। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের (১৯৩৯-১৯৪৫) পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ন সাইনের বিজ্ঞাপনের জনপ্রিয়তা, নিগূঢ়তা এবং মাত্রা হ্রাস পায়, তবে জাপান, ইরান এবং অন্যান্য কিছু দেশে এর ক্রমবর্ধমান উন্নয়ন অব্যাহত থাকে[১১]। সাম্প্রতিক কয়েক দশক ধরে স্থপতি ও শিল্পী, এছাড়াও সাইন ডিজাইনাররা, নিয়ন টিউব লাইটটিংকে তাদের কর্মের একটি অংশ হিসেবে গ্রহণ করেছেন[১১][১৩][১৪]

নিয়ন আলো, ফ্লোরোসেন্ট আলো এর সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত, যা নিয়ন টিউব লাইটের প্রায় ২৫ বছর পরে বিকশিত করা হয়[১২]। ফ্লুরোসেন্ট লাইটে, একটি নলের মধ্যে বিরল গ্যাস দ্বারা নির্গত আলোটি কেবলমাত্র ফ্লুরোসেন্ট উপকরণগুলোকে সক্রিয় করে যা টিউবটির আচ্ছাদনে ব্যবহৃত হয়, পরবর্তীতে সেগুলো তার নিজস্ব রংগুলোতে দ্যুতি ছড়িয়ে টিউবকে দৃশ্যমান করে তোলে এবং সেটি সচরাচর সাদা আভার হয়ে থাকে। ফ্লোরোসেন্টের আবরণ এবং গ্লাসসমূহও নিয়ন টিউব লাইটিং এর বিকল্প, কিন্তু সাধারণত তাদের উজ্জ্বল রং পাওয়ার করার জন্য নির্বাচন করা হয়।

ইতিহাস এবং বিজ্ঞান[সম্পাদনা]

Photograph of glass tube that's been bent to form the connected letters "Ne". The tube is glowing brightly with a red color.
গ্যাস স্রাবের টিউব নিয়ন ধারণকারী, যা প্রথম রামসে এবং ট্রাওয়ার্স দ্বারা প্রদর্শিত হয়েছিল; "নি" হল প্রতীক নিয়নের জন্য, রাসায়নিক উপাদানগুলির মধ্যে একটি।

নিয়ন হল একটি নিষ্ক্রিয় গ্যাস, রাসায়নিক উপাদান এবং নিশ্চল গ্যাস যেটি পৃথিবীর বায়ুমন্ডলের একটি ক্ষুদ্রতর উপাদান। এটি ১৮৯৮ সালে ব্রিটিশ বিজ্ঞানী উইলিয়াম র্যামস এবং মরিস ডব্লিও ট্রাভের্স দ্বারা আবিষ্কৃত হয়। যখন র্যামস এবং ট্রাভার্স বায়ুমণ্ডল থেকে বিশুদ্ধ নিয়ন প্রাপ্তিতে সফলতা লাভ করেছিলেন, তখন তারা ইলেকট্রিক্যাল গ্যাস-ডিসচার্জ টিউব ব্যবহার করে এর বৈশিষ্ট্যগুলি অনুসন্ধান করেন যেটি আজকের নিয়ন সাইনগুলির জন্য ব্যবহৃত টিউবের অনুরূপ। ট্রাভার্স পরবর্তীতে লিখেন, টিউব হতে নির্গত রক্তিম দীপ্ত বর্ণচ্ছটাটি তার নিজের গল্প শোনায় এবং সেটি ছিল কখনো ভুলে না যাওয়ার মতো দৃশ্য[১৫]। গ্যাস ডিসচার্জ (বা "গিসলার" টিউব) থেকে নির্গত আলোর রং পরীক্ষা করার পদ্ধতিটি সেসময় বেশ সুপরিচিত ছিল, যেহেতু গ্যাস ডিসচার্জ দ্বারা নির্গত আলোর রং ("বর্ণালী লাইন") মূলত, একপ্রকার ছাপ যা ভিতরে গ্যাসকে সনাক্ত করে।

নিয়ন আবিষ্কার করার সাথে সাথেই নিয়ন টিউবকে বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি এবং নূতনত্ব হিসেবে ব্যবহার করা শুরু হয়[১৬]। যাইহোক, বিশুদ্ধ নিয়ন গ‍্যাসের অপ্রতুলতা মুর নল সমূহের সাথে সাথে বৈদ্যুতিক গ্যাস-স্রাব আলোর প্রায়োগিক ব‍্যবহার্যতাকে বাধা দেয়, যেগুলোতে সাধারণ নাইট্রোজেন বা কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাসকে ব্যবহার করা হত এবং ১৯০০ সালের প্রথম দিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কিছু বাণিজ্যিক সাফল্য উপভোগ করে[১][১৭]। ১৯০২ সালের পর ফ্রান্সের জর্জ ক্লড এর কোম্পানী এয়ার লিকুইয়েড বাষ্প তরলীকরণ ব‍্যবসার উপজাত হিসেবে নিয়ন শিল্পের উৎপাদন বাড়ানো শুরু করে। ১৯১০ সালের ৩-১৮ ডিসেম্বরে ক্লড প্যারিস মোটর শোতে দুটি বড় (১২-মিটার (৩৯ ফু) লম্বা), উজ্জ্বল লাল নিয়ন টিউব প্রদর্শন করেন[৪][৫]

Photograph of a large painted sign in the form of a cowboy. The cowboy is winking his eye. His left hand is lifted, and he's pointing that thumb towards the building to his right. A lighted cigarette dangles from the corner of his mouth. He's wearing a cowboy hat, boots, and a scarf. Glowing neon tubes highlight the outlines.
ভেগাস ভিক, একটি ৪০ ফুট (১২ মি) লম্বা নিয়ন সাইন। ১৯৫১ সালে লাস ভেগাসের পাইওনিয়ার ক্লাবের জন্য নির্মিত, নেভাদা ইয়াং ইলেকট্রিক সাইন কোম্পানী দ্বারা নির্মিত সাইন, নিয়ন শিল্পে যে জটিল শৈল্পিক প্রভাব অর্জন করা সম্ভব তা প্রকাশ করে।[১৮]

এই নিয়ন টিউবগুলো তাদের সমসাময়িক আকারে ছিল।[১১][১৯][২০] নিয়ন বাতিতে ব্যবহৃত কাঁচের পাইপের জন্য বাইরের ব্যাসের সীমা হল 9 to 25 mm; এর মধ্যে এবং মানসম্মত বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, টিউবে লম্বায় ৩০ মিটার (৯৮ ফু) হতে পারে[২১]। ভিতরের গ্যাসের চাপ ৩-২০ টর (০.৪-৩ কেপিএ) পরিসরের মধ্যে রয়েছে, যা পাইপের আংশিক ভ্যাকুয়ামের সাথে সম্পর্কিত। ক্লড আর‌ও দুটি প্রযুক্তিগত সমস্যার সমাধান করেন যা নিয়ন ও অন্য গ্যাস স্রাবের টিউবগুলির কার্যকরী জীবনকে ছোট করে দিত,[২২] এবং কার্যকরভাবে একটি নিয়ন আলোকসজ্জা শিল্পের জন্ম দেন। ১৯১৫ সালে ক্লডের কাছে গ্যাস স্রাবের জন্য ইলেকট্রোড ডিজাইন আচ্ছাদন করার জন্য একটি মার্কিন পেটেন্ট জারি করা হয়;[২৩] এই পেটেন্টটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১৯৩০ সালের প্রথম দিকে তার কোম্পানি ক্লড নিয়ন লাইটসকে নিয়ন সাইনসমূহের উপর একচেটিয়াভাবে ব‍্যবসা করার ভিত্তি করে দেয়[২৪]

ক্লডের পেটেন্টগুলি আর্গন এবং পারদ বাষ্পের মতো গ্যাসের, নিয়ন দ্বারা সৃষ্ট বিভিন্ন রং তৈরি করার ব্যবহার সম্পর্কে ধারণা দেয়। ১৯২০-এর দশকে ফ্লোরোসেন্ট গ্লাস এবং আবরণকে আরও উন্নত এবং আর্গন গ্যাস বা আর্গন-নিয়ন মিশ্রণের সাথে টিউবগুলির প্রভাব আরও বিস্তৃত করার জন্য তৈরি করা হয়েছিল; সাধারণত, ফ্লোরোসেন্ট আবরণ আর্গন/পারদ-বাষ্প মিশ্রণে ব্যবহৃত হয়, যেগুলো অতিবেগুনি রশ্মি নির্গত করে যা ফ্লোরোসেন্ট আবরণকে সক্রিয় করে[১২]। ১৯৩০-এর দশক পর্যন্ত, নিয়ন টিউব লাইটসমূহের সমন্বয় থেকে উৎপন্ন রং, কিছু সাধারণ অভ্যন্তরীণ আলো অ্যাপ্লিকেশনের জন্য সন্তোষজনক হয়ে ওঠে এবং ইউরোপে কিছু সাফল্য অর্জন করে, কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ব‍্যর্থ হয়[১২]। ১৯৫০ এর দশক থেকে রঙিন টেলিভিশনের জন্য ফসফারের উন্নয়ন, নিয়ন টিউব লাইটের জন্য প্রায় ১০০ টি নতুন রং তৈরি করেছে[১৪]

১৯১৭ সালের কাছাকাছি সময়ে ড্যানিয়েল ম্যাকফারলান মুর, পরবর্তীতে জেনারেল ইলেকট্রিক কোম্পানীতে কাজ করে, ক্ষুদ্র নিয়ন বাতি তৈরি করেন। সাইনসমূহের জন্য ব‍্যবহৃত নিয়ন টিউবের তুলনায় গ্লো ল্যাম্পে একটি খুব ভিন্ন নকশা আছে; পার্থক্যটি এতটাই যথেষ্ট ছিল যে, ১৯১৯ সালে ল্যাম্পের জন্য একটি পৃথক মার্কিন পেটেন্ট জারি করা হয়[২৫]। একটি স্মিথসোনিয়ান প্রতিষ্ঠান ওয়েবসাইট লিখে, "এই ছোট, নিম্ন শক্তির ডিভাইসগুলি "করোনাল হোলস"নামে একটি বাস্তব নীতি ব্যবহার করে। মুর দুটি ইলেকট্রোড একসঙ্গে একটি বাল্বে সংযোগ করে, নিয়ন বা আর্গন গ্যাস যোগ করেন। গ্যাসের উপর নির্ভর করে ইলেকট্রোডগুলো লাল বা নীল রঙে জ্বলে উঠতে পারে, এবং বাতিগুলি কয়েক বছর ধরে টিকে থাকতে পারে। যেহেতু ইলেকট্রোডগুলো কল্পনাযোগ্য প্রায় যে কোন আকৃতি নিতে পারে, তাই তার একটি জনপ্রিয় প্রয়োগ হল কল্পনাপ্রসূত আলংকারিক বাতি। ১৯৭০ এর দশকে এল‌‍ইডির গ্রহণযোগ‍্যতা শুরু হ‌ওয়ার আগ পর্যন্ত গ্লো ল‍্যাম্প বৈদ্যুতিক উপাদান হিসেবে, এবং যন্ত্রপাতির প্যানেলের প্রদর্শক হিসেবে এবং বহু ঘরোয়া যন্ত্রপাতিতে বাস্তবিকভাবে ব্যবহার হয়ে আসছিল"[১]

যদিও কিছু নিয়ন বাতি এখন দুষ্প্রাপ্য, এবং ইলেকট্রনিক্স-এ তাদের ব্যবহারকে অস্বীকার করেছে, তবুও এই প্রযুক্তি শৈল্পিক এবং বিনোদনের প্রেক্ষাপটে বিকশিত হয়েছে[১১][২০]। নিয়ন লাইটিং প্রযুক্তিকে প্লাজমা ডিসপ্লে এবং প্লাজমা টেলিভিশন সেটে ব্যবহার করার জন্য লম্বা টিউব আকৃতি থেকে পাতলা সমতল প্যানেলে রূপদান করা হয়েছে[৩]

নিয়ন টিউব লাইটিং এবং সাইনসমূহ[সম্পাদনা]

ভার্জেনিয়ার ফলস চার্চে নিয়ন সাইন

১৯১০ সালে জর্জ ক্লড যখন নিয়ন টিউব লাইটিং এর চমৎকার বাস্তবিক রূপ প্রদর্শন করেন, তিনি আপাতদৃষ্টিতে কল্পনা করেন যে এটি আলোর একটি রূপ হিসেবে ব‍্যবহৃত হবে, যা নাইট্রোজেন এবং কার্বন ডাই অক্সাইড ডিসচার্জগুলির উপর ভিত্তি করে পূর্বেকার মুর টিউবগুলোতে প্রয়োগ হয়ে আসছিল। প্যারিসের গ্র্যান্ড প্যালিস (গ্র্যান্ড প্যালেস)এ, ক্লডের ১৯১০ সালে নিয়ন আলোর এই বৃহৎ প্রদর্শনী স্থানটি মূলত পেরিস্টাইলএর ন‍্যায় রূপদান করা হয়েছিল[৬]। ক্লড এর সহযোগী, জ্যাকস ফনসেক, সাইনসমূহ এবং এর বিজ্ঞাপনের উপর ভিত্তি করে এর বানিজ্যিক ব্যবসার সম্ভাব্যতা বুঝতে পেরেছিলেন। ১৯১৩ সাল নাগাদ প্যারিসে ওয়ার্মাউন্ডের সিনাজানোতে রাতের আকাশকে আলোকিত করার জন্য একটি বড় সাইন এবং ১৯১৯-এ প্যারিস অপেরা এর প্রবেশপথটি নিয়ন টিউব লাইট দিয়ে সজ্জিত করা হয়েছিল[১১]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ন সাইনসমূহ বিশেষ উৎসাহের সাথে গৃহীত হয়েছিল। ১৯২৩ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেস শহরে আর্ল সি অ্যান্থনি তাঁর প্যাকার্ড গাড়ি এজেন্সির জন্য ক্লডের কাছ থেকে দুটি নিয়ন সাইন কিনেছিলেন; যেগুলো আক্ষরিকভাবে বাণিজ্য বন্ধ করে দিয়েছিল [৪][১১]। ক্লডের মার্কিন পেটেন্টগুলি তাকে নিয়ন সাইনসমূহের উপর একচেটিয়া অধিকার প্রদান করেছিল এবং অ্যান্টনি এর নিয়ন সাইনের সফলতা দেখে, অনেক কোম্পানি নিয়ন সাইন প্রস্তুত করার জন্য ক্লডের সাথে ফ্রাঞ্চাইজি গঠন করেছিল। অনেক ক্ষেত্রে কোম্পানীগুলিকে একটি নির্দিষ্ট ভৌগোলিক এলাকায় নিয়নের চিহ্নগুলির উৎপাদনের জন্য একচেটিয়া লাইসেন্স প্রদান করা হয়; ১৯৩১ সালের মধ্যে, নিয়ন সাইন ব্যবসার মূল্য ছিল ১৬.৯ মিলিয়ন ডলার, যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য শতাংশ ফ্রাঞ্চাইজিং ব‍্যবস্থা দ্বারা ক্লড নিয়ন লাইটস,ইনক কে দেওয়া হয়েছিল। ক্লডের প্রধান প‍্যাটেন্টের মেয়াদ ১৯৩২ সালে শেষ হয়ে গিয়েছিল, যার ফলে নিয়ন সাইনসমূহের উৎপাদন ব‍্যাপকভাবে বৃদ্ধি পায়। ১৯৩৯ সালে শিল্পকারখানার বিক্রয় ছিল $২২.০ মিলিয়ন; ১৯৩১ থেকে ১৯৩৯ পর্যন্ত বিক্রয় বৃদ্ধির পরিমাণ দুই বছরের অনুপাতের তুলনায় অনেক বেশি ছিল[১২]

রুডি স্টার্ন লিখেন, "১৯৩০ এর দশক ছিল নিয়নের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ সৃষ্টিশীল বছর, এটি এমন একটি সময় ছিল যখন অনেক নকশা ও অ্যানিমেশন কৌশল বিকশিত হয়েছিল। ও.জে. গেইডের মতো ব‍্যক্তি এবং, বিশেষত, ডগলাস লি নিয়নের বিজ্ঞাপনকে এমন অবস্থায় নিয়ে গিয়েছিলেন যা জর্জ ক্লড এবং তার সহযোগীরা কখনো কল্পনাও করতে পারেনি। লি, যিনি দর্শনীয় আদি টাইমস স্কয়ার কল্পায়িত এবং তৈরি করেছেন, তিনি এমন ডিসপ্লের উপর গবেষণা করেন যেগুলো গন্ধ, কুয়াশা এবং শব্দকে তাদের মোট প্রভাবের অংশ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে। ত্রিশের দশকে টাইমস স্কোয়ারের বেশিরভাগ চাক্ষুষ উদ্দীপনার কারণ ছিল লি এর গতিময় এবং চিত্তাকর্ষক শিল্প প্রতিভা"[১১]। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এবং অন্যান্য বেশ কয়েকটি দেশের বৃহৎ শহরগুলিতেও নিয়নের সাইনসমূহের বিস্তৃত প্রদর্শনী ছিল। শিকাগো সেঞ্চুরি অব প্রগ্রেস এক্সপোজেশন (১৯৩৩-৩৪), প্যারিস ওয়ার্ল্ড ফেয়ার (১৯৩৭) এবং নিউইয়র্ক ওয়ার্ল্ড ফেয়ার (১৯৩৯)এর মতো ঘটনাবলী নিয়ন টিউবগুলির স্থাপত‍্যিক বৈশিষ্ট্য হিসেবে ব্যাপকভাবে ব্যবহারের জন্য উল্লেখযোগ্য ছিল। স্টার্ন দাবি করেন যে সিনেমা থিয়েটারের জন্য "জমকালো" নিয়ন ডিসপ্লের সৃষ্টি দুটির একটি অনুষঙ্গ, "চলচ্চিত্রে যাওয়ার আনন্দ হল নিয়নের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে যুক্ত হয়ে যাওয়া।"

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে (১৯৩৯-১৯৪৫) সারা বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষকেই নতুন সাইন সংস্থাপন করতে হয়। যুদ্ধের পরে, শিল্প আবার বিকশিত হ‌ওয়া শুরু হয়।. মার্কস থিয়েলেন এই যুগ সম্পর্কে লিখেন, "দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর, সৈন্যদের পুনর্বিন্যাসে সহায়তা করার জন্য সরকারি কর্মসূচি চালু হয়েছিল। এগারি ইনস্টিটিউট (নিউইয়র্ক সিটি) দেশের কয়েকটি স্কুলের মধ্যে একটি ছিল যা নিয়ন-বাণিজ্য রহস্য শেখাত। ১৯৫০-এর দশকের আমেরিকার স্ট্রিমলাইনড নকশা নিয়ন ব্যবহার ছাড়া কল্পনাও করা যাবে না"[১৪]। রিসোর্ট শহর হিসেবে লাস ভেগাস, নেভাদা এর উন্নয়ন নিয়ন সাইনসমূহের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত; টম উলেফ ১৯৬৫ সালে লিখেছিলেন, "লাস ভেগাস পৃথিবীর একমাত্র শহর, যার দিগন্ত, নিউ ইয়র্কের মতো ভবন দিয়ে নির্মিত নয়, অথবা উইলবব্রাম, ম্যাসাচুসেটস মত বৃক্ষ দিয়ে আচ্ছাদিত নয়, বরং সাইন দিয়ে তৈরি। কেউ লাস ভেগাসের রুট ৯১ এর দিকে এক মাইল দূর থেকে তাকিয়ে থাকলে কোনও বাড়ী, কোন গাছ‌ই দেখতে পাবেনা, শুধুমাত্র সাইন‌ই দেখতে পাবে। কিন্তু এরূপ সাইন! তারা বিশাল। তারা পুনরাবর্তিত হয়, তারা স্পন্দিত হয়, তারা আকারে আকাশচুম্বী, যাদের ছাড়া বিদ্যমান শিল্প ইতিহাসের শব্দভাণ্ডার অসহায়"[২৬]

সামগ্রিকভাবে, যদিও নিয়ন ডিসপ্লেগুলি কম ফ্যাশনেবল হয়ে উঠে, এবং কিছু শহর আইন করে তাদের নির্মাণকে নিরুৎসাহিত করে দেয়[২৭]নেলসন আলগ্রেইন ১৯৪৭ সালে তার ছোট গল্প দ্য নিয়ন ওয়াইল্ডারনেস’’ এর সংকলনটি রচনা করেন। মার্গালিট ফক্স লিখেন, "... দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর, নিয়ন সাইনসমূহ ক্রমবর্ধমানভাবে নমনীয় ফ্লোরসেন্ট-আলোকিত বাতি দ্বারা প্রতিস্থাপিত হ‌ওয়ার সাথে সাথে, রঙিন টিউবসমূহকে গ‍্যাসপূর্ণ সর্পিল আকারে রূপদানকারী শিল্পটি হ্রাস পেতে থাকে "[২৮]। একটি অন্ধকার যুগ অন্তত ১৯৭০ এর দশক ধরে চলছিল, যখন শিল্পীরা উদ্দীপনা নিয়ে নিয়ন গ্রহণ করে; ১৯৭৯ সালে রুডি স্টার্ন তার ঘোষণাপত্রে নিয়ন থাকুক’’ প্রকাশ করেন[২৯]। মারকাস থিয়েলেন ২০০৫ সালে জর্জ ক্লডের কাছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পেটেন্টের ৯০ তম বার্ষিকীতে লিখেছিলেন, "নিয়ন প্রযুক্তিকে প্রতিস্থাপন করার পরিবর্তে, স্থাপত্যের প্রয়োগগুলিতে নিয়ন এবং শীতল ক্যাথোড ব্যবহারের চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে, এবং ফাইবারোপিক্স এবং এল‌ইডি- এর মত নতুন কৌশলগুলি সাইন শিল্পের বাজারকে আরো জোরদার করেছে। পেটেন্ট নথিভুক্ত হ‌ওয়ার ৯০ বছর পর পর্যন্ত 'বর্জ্য' পণ্য নিয়ন টিউবের বিবর্তন অসম্পূর্ণ রয়ে যায়।"[১৪]

নিয়ন দীপ্ত বাতি এবং প্লাজমা পর্দাসমূহ[সম্পাদনা]

Sequence of ten photograph of a glass tube. Each photograph is shown for 1 second, and shows a red, glowing numeral. The photographs are presented in the series 0, 1, 2, ..., 9, and then the sequence starts again at 0.
একটি নিক্সি নল এর সংখ্যাসমূহ, যেটি একটি নিয়ন গ্লো ল্যাম্প এবং এটিতে দশটি ইলেকট্রোডকে আকৃতি প্রদানের মাধ্যমে দশটি সংখ্যাসমূহকে প্রদর্শন করা হয়।এই নলটির ডিজিটগুলো ৫/৮ ইঞ্চি (১৬ মিমি) লম্বা।

নিয়ন গ্লো ল‍্যাম্পে, গ‍্যাসের দীপ্তিমান অঞ্চলটি হল পাতলা ‘’ঋণাত্মক আভাযুক্ত’’ অঞ্চল যেটি তৎক্ষণাৎ পার্শ্ববর্তী ঋণাত্নকভাবে চার্জকৃত ইলেকট্রোড (বা ‘’ক‍্যাথোড’’);ধণাত্নক চার্জযুক্ত ইলেক্ট্রোড ("অ‍্যানোড") ক্যাথোডের বেশ কাছাকাছি থাকে। এই বৈশিষ্ট্যগুলি নিয়ন আলোতে অনেক বেশি এবং উজ্জ্বল "ধণাত্নক কলাম" প্রভাশালী অঞ্চল থেকে দীপ্ত বাতিসমূহকে আলাদা করে।[২০] বাতিসমূহের প্রজ্বলিত অবস্থায় শক্তি অপচয় হার খুবই সামান্য (প্রায় ০.১ ওয়াট),[৩০] অতঃপর একে কোল্ড-ক‍্যাথোড লাইটিং আখ‍্যা দেয়া হয়।

নিয়ন বাতিসমূহের কিছু প্রয়োগ হল:[৩০]

  • পাইলট ল্যাম্পগুলি যা একটি যন্ত্র বা যন্ত্রের মধ্যে বৈদ্যুতিক শক্তির উপস্থিতি নির্দেশ করে (যেমন, একটি বৈদ্যুতিক কফি পাত্র বা বিদ্যুত সরবরাহ)।
  • আলংকারিক (বা "মূর্তি") বাতি যেখানে ক্যাথোডকে একটি ফুল, পশু, ইত্যাদি আকারে রূপায়িত করা হয়। এই বাতিগুলোর মধ্যে থাকা মূর্তিগুলোতে সাধারণত বিভিন্ন রং অর্জনের জন্য ফসফোরসেন্ট রঙে আঁকা হয়।
  • সক্রিয় ইলেকট্রনিক সার্কিটসমূহ যেমন, ইলেকট্রনিক ওসিলেটর, টাইমার, মেমরি উপাদান, ইত্যাদি।
  • নিক্সি নল যেমন জটিল ইলেকট্রনিক প্রদর্শনী (ছবিতে দেখুন)
Photograph of a flat panel displaying an aquarium; the aquarium has several fish swimming around, a gravel bottom, and decorative rocks and plants.
২০০৭ সালের একটি প্লাজমা টেলিভিশন সেট। সেটটিতে ছবিতে হাজার হাজার রঙিন পিক্সেল তৈরি করা হয় ক্ষুদ্র নিয়ন দীপ্ত বাতি দ্বারা যা ফসফারকে উত্তেজিত করে।

একটি নিয়ন বাতির, ঋণাত্নক আভা অঞ্চলটির ক্ষুদ্র আকার এবং বৈদ্যুতিক সার্কিটগুলিতে শোষিত নমনীয় ইলেকট্রনিক বৈশিষ্ট্যগুলির কারণে এই প্রযুক্তির গ্রহণযোগ্যতা পূর্ববর্তী প্লাজমা পেনেল ডিসপ্লের জন্য গ্রহণ করা হয়েছিল। প্রথম একরঙা ডট ম্যাট্রিক্স প্লাজমা প্যানেল উন্নীতকরণ করা হয় ১৯৬৪ সালে প্লাটো (PLATO) শিক্ষাগত কম্পিউটিং সিস্টেমের জন্য ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয়ে। তাদের নিয়ন বাতির বৈশিষ্ট্যগত রং ছিল; তাদের আবিষ্কারক, ডোনাল্ড এল বিৎজার, এইচ. জেন স্লটও এবং রবার্ট এইচ. উইলসন, একটি কার্যোপযোগী কম্পিউটার ডিসপ্লে বানাতে সক্ষম হয়েছিলেন যেটি নিজের অবস্থা মনে রাখতে পারত এবং এটির কেন্দ্রীয় কম্পিউটার সিস্টেম থেকে অবিরত রিফ্রেশ করার প্রয়োজন ছিল না। ঐ প্রথমদিকের একরঙা ডিসপ্লেসমূহ এবং সমসাময়িক রঙিন প্লাজমা এবং টেলিভিশনসমূহের মধ‍্যে সম্পর্ক নিয়ে ২০০৬ সালে ল্যারি এফ ওয়েবার বর্ণনা দেন, "বাজারের সমস্ত প্লাজমা টিভিগুলির মধ‍্যে আজও একই রকম বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা প্রথম প্লাজমা ডিসপ্লেতে প্রদর্শিত হয়েছিল যা শুধুমাত্র একটি একক কোষের ডিভাইস ছিল। এই বৈশিষ্ট্যগুলির মধ্যে বিকল্প ভোল্টেজ বজায়, অস্তরক স্তর, ওয়াল চার্জ, এবং একটি নিয়ন ভিত্তিক গ্যাস মিশ্রণ অন্তর্ভুক্ত।"[৩] রঙিন নিয়নের বাতিগুলির মতো, প্লাজমা ডিসপ্লে সমূহ একটি গ্যাস মিশ্রণ ব্যবহার করে যা অতিবেগুনী আলো নির্গত করে। প্রতিটি পিক্সেলের একটি ফসফার আছে যেটি প্রধান রংগুলির একটিকে নির্গত করে।

নিয়ন আলোর আলো এবং শিল্পী[সম্পাদনা]

১৯৫০ থেকে ১৯৮০ এর দশক ছিল নিয়ন উৎপাদনের পুনরূদয় সময়। সে সময় সাইন কোম্পানিরা চ‍্যানেল লেটারিং নামক নতুন ধরনের সাইনসমূহ উদ্ভাবন করে, যেটিতে প্রতিটি অক্ষর ধাতুর পাত থেকে তৈরি করা হয়।

যদিও বাইরের বিজ্ঞাপনের জন্য নিয়ন আলোর বাজার বিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি থেকে কমেছে, তবে সাম্প্রতিক দশকে নিয়ন আলো শিল্পকর্মে সচেতনভাবে ব‍্যবহার হয়ে আসছে এবং তা একক বস্তু এবং স্থাপত্যের মধ্যে অংশভুক্ত করা হয়েছে। ফ্রাঙ্ক পপার, আর্জেন্টিনায় গিয়ুল ক‍্যাসিসের ১৯৪০ এর শেষের দিকের শিল্পকর্মের কাজে প্রধান উপাদান হিসেবে নিয়ন আলোর ব‍্যবহার সন্ধান লাভ করেন। নিয়ন আলোর শিল্পকর্মের সংক্ষিপ্ত ইতিহাসে পপার পরবর্তী শিল্পীদের মধ্যে যাদের উল্লেখ করেন তারা হলেন, স্টিভেন আন্তনকোস, ধারণামূলক শিল্পী জোসেফ কোসথ এবং ব্রুস নাউমান, মার্শাল রাইসস, চিশাসা, পিয়াত কোওলস্কি, মারিওজিও ন্যানুনসি এবং ফ্রাঙ্কো মোয়েলেলেট[১৩] এছাড়াও লুসিও ফন্টানা, ড্যান ফ্লাভিন বা মারিও ম্যার্জ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বেশ কিছু জাদুঘর এখন নিয়ন আলো এবং শিল্পকর্মের প্রতি অনুগত প্রকাশ করেছে যেমন, দ‍্যা মিউজিয়াম অফ নিয়ন আর্ট (নিয়ন শিল্পী লিলি লিক কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত, লস এঞ্জেলেস, ১৯৮১), দ‍্যা নিয়ন মিউজিয়াম (লাস ভেগাস, ১৯৯৬ সালে প্রতিষ্ঠিত), দ‍্যা আমেরিকান সাইন মিউজিয়াম (সিনসিনাটি, ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠিত), এবং নিয়ন মিউজিয়াম অফ ফিলাডেলফিয়া (লেন ডেভিডসন, ফিলাডেলফিয়া, ১৯৮৫ সালে প্রতিষ্ঠিত)[৩১]। এই জাদুঘরগুলো নিয়ন শিল্পের প্রদর্শনী উপস্থাপনের পাশাপাশি ঐতিহাসিক সাইনেজ পরিদর্শন এবং পুনঃস্থাপন করে থাকে যেগুলোকে মূলত বিজ্ঞাপনের জন্য ডিজাইন করা হয়েছিল। নিয়ন আলোকে শিল্পকর্ম হিসেবে মনোযোগ আকর্ষণ করার জন্য ফটোগ্রাফের বেশ কয়েকটি বইও প্রকাশিত হয়েছে[১১][৩২][৩৩]। ১৯৯৪ সালে খ্রিস্টান Schiess পনের জন "আলোক শিল্পীদের" প্রতি অনুগত প্রকাশ করে ফটোগ্রাফ এবং সাক্ষাৎকার সমেত একটি উপন্যাস প্রকাশিত করেছিল[৩৪]

নিয়ন আলো শিল্পীদের তালিকা[সম্পাদনা]

Photograph of a sculpture of a trotting horse. The sculpture was made using a series of horizontal bands. Each band is made from a glass tube that glows blue. The bands are stacked to indicate the form of a horse; the separation between the bands has about the same width as the glass tubing. The sculpture is inside a large glass box that has been placed on the plaza between some office buildings.
স্টিফেন হুবারের নিয়নের ভাস্কর্য Zwei Pferde für Münster (মুনস্টারের জন্য দুটি ঘোড়া) (২০০২)।
Photograph of a long tunnel illuminated by neon lighting in the ceiling and by glowing, colorful wall panels. The tunnel is about 10 meters (33 feet) wide, and there are four moving walkways in the center of the tunnel. There are several people on each walkway; far down the tunnel there are some staircases leading up.
শিকাগোর ওহরে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একটি ভূগর্ভস্থ ওয়াকওয়েতে প্রকাশিত হয় মাইকেল হেইডেন এর নিয়ন স্থাপত্য (দ্য স্কাই’স দ্য লিমিট, ১৯৮৭)[৩৫]
মরিজিও নান্নুচির, উইনার সেসেকশন, উইয়েন (১৯৯০) এ স্থাপিত Puro rosso puro giallo puro blu (বিশুদ্ধ বিশুদ্ধ লাল হলুদ বিশুদ্ধ নীল), ১৯৯০; সংগৃহীত ১৯৬৭/১৯৯০; আদিরূপ, ১৯৬৮,

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Lamp Inventors 1880-1940: Moore Lamp"। The Smithsonian Institution। 
  2. Myers, Robert L. (২০০২)। Display interfaces: fundamentals and standards। John Wiley and Sons। পৃষ্ঠা 69–71। আইএসবিএন 978-0-471-49946-6Plasma displays are closely related to the simple neon lamp. 
  3. Weber, Larry F. (এপ্রিল ২০০৬)। "History of the plasma display panel"। IEEE Transactions on Plasma Science34 (2): 268–278। doi:10.1109/TPS.2006.872440বিবকোড:2006ITPS...34..268W  Paid access.
  4. van Dulken, Stephen (২০০২)। Inventing the 20th century: 100 inventions that shaped the world : from the airplane to the zipper। New York University Press। পৃষ্ঠা 42। আইএসবিএন 978-0-8147-8812-7 
  5. । ১৯১০ সালের প্যারিস মোটর শোর this poster তারিখগুলি শোতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়
  6. Testelin, Xavier। "Reportage - Il était une fois le néon No. 402"। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১২-০৬  Claude lit the peristyle of the Grand Palais in Paris with neon tubes; this webpage includes a contemporary photograph that gives an impression of the effect. The webpage is part of an extensive selection of images of neon lighting; see "Reportage - Il était une fois le néon" 
  7. "FRANCE: Paranoia?"Time Magazine। জুলাই ৯, ১৯৪৫। 
  8. O'Toole, Lawrence (ফেব্রুয়ারি ৪, ১৯৯০)। "Where Neon Art Comes of Age"The New York TimesAmericans, oddly, aren't so crazy about neon as the Japanese and the Europeans, although it could be argued that neon, discovered by the French inventor Georges Claude in 1910, is largely an American phenomenon. ; As explained in this article, Claude did not discover neon.
  9. Cutler, Alan (Summer ২০০৭)। "A visual history of Times Square spectaculars"। The Smithsonian Institution। ২০১০-০৬-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  10. Tell, Darcy (২০০৭)। Times Square Spectacular: Lighting Up Broadway। Harper-Collins। আইএসবিএন 978-0-06-088433-8 
  11. Stern, Rudi (১৯৮৮)। The New Let There Be Neon। H. N. Abrams। পৃষ্ঠা 16–33। আইএসবিএন 978-0-8109-1299-1 
  12. Bright, Jr., Arthur A. (১৯৪৯)। The Electric-Lamp Industry। MacMillan। পৃষ্ঠা 369–374। 
  13. Popper, Frank (২০০৯)। "Neon"Grove Art Online। Oxford University Press। 
  14. Thielen, Marcus (আগস্ট ২০০৫)। "Happy Birthday Neon!"Signs of the Times। ২০০৯-০২-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  15. Weeks, Mary Elvira (২০০৩)। Discovery of the Elements: Third Edition (reprint)। Kessinger Publishing। পৃষ্ঠা 287। আইএসবিএন 978-0-7661-3872-8 
  16. Fleming, J. A. (অক্টোবর ১৯০৪)। "The Propagation of Electric Waves along Spiral Wires, and on an Appliance for Measuring the Length of Waves Used in Wireless Telegraphy"Philosophical Magazine and Journal of Science। Sixth Series। 8 (46): 417।  m}}
  17. Bright, Jr., Arthur A. (১৯৪৯)। The Electric-Lamp Industry। MacMillan। পৃষ্ঠা 221–223। 
  18. Moreno, Richard (২০০৮)। Nevada Curiosities: Quirky Characters, Roadside Oddities & Other Offbeat Stuff। Globe Pequot। পৃষ্ঠা 1880। আইএসবিএন 978-0-7627-4682-8 
  19. Strattman, Wayne (১৯৯৭)। "The Luminous Tube: An illuminating description of how neon signs operate"Signs of the Times। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১২-১০ 
  20. Strattman, Wayne (১৯৯৭)। Neon Techniques: Handbook of Neon Sign and Cold-Cathode Lighting (4th edition)। ST Media Group International। আইএসবিএন 978-0-944094-27-3 
  21. "ANSI Luminous Tube Footage Chart" (PDF)American National Standards Institute (ANSI)। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৬-০১  Reproduction of a chart in the catalog of a lighting company in Toronto; the original ANSI specification is not given.
  22. Claude, Georges (নভেম্বর ১৯১৩)। "The Development of Neon Tubes"The Engineering Magazine: 271–274। 
  23. US 1125476, Georges Claude, "Systems of Illuminating by Luminescent Tubes", ইস্যু করা হয়েছে 1915-01-19  See reproduction of patent.
  24. "Claude Neon Lights Wins Injunction Suit: Also Gets Rights to Recover Profits and Damages Resulting From Patent Infringement"। The New York Times। নভেম্বর ২৮, ১৯২৮।  Paid access.
  25. টেমপ্লেট:Ref patent
  26. Wolfe, Tom (২০০৯)। The Kandy-Kolored Tangerine-Flake Streamline Baby। MacMillan। পৃষ্ঠা 7। আইএসবিএন 978-0-312-42912-6  Includes a reprint of a 1965 essay, "Las Vegas (What?) Las Vegas (Can't Hear You Too Noisy) Las Vegas!!!!"
  27. San Jose, California is one of many cities that had an anti-neon ordinance; see Gaura, Maria Alicia (আগস্ট ২৬, ১৯৯৮)। "San Jose Changes Neon Sign Ordinance / Way is cleared for Knight Ridder offices"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-২৭Before yesterday's 8-to-2 vote to revise the ordinance, rooftop signs were not allowed on San Jose high-rise buildings, nor were colored neon signs. In addition, the maximum allowable size of signs on high-rise buildings was only 750 square feet. 
  28. Fox, Margalit (আগস্ট ১৮, ২০০৬)। "Rudi Stern, Artist Whose Medium Was Light, Dies at 69"The New York Times 
  29. Stern, Rudi (১৯৭৯)। Let There Be Neon। H. N. Abrams। আইএসবিএন 978-0-8109-1255-7 
  30. Baumann, Edward (১৯৬৬)। Applications of Neon Lamps and Gas Discharge Tubes। Carlton Press। 
  31. "Davidson Neon and Neon Museum of Philadelphia" 
  32. Davidson, Len (জুলাই ১৯৯৯)। Vintage Neon। Schiffer Publishing। আইএসবিএন 978-0-7643-0857-4 
  33. Sprengnagel, Dusty (১৯৯৯)। Neon World। ST Publications। আইএসবিএন 0-944094-26-0  A collection of photographs of neon signs from cities around the world, most unannotated.
  34. Schiess, Christian (১৯৯৪)। The Light Artist Anthology: Neon and Related Media। ST Media Group International। আইএসবিএন 978-0-944094-00-6  Schiess' anthology includes Stephen Antonakos, Valerij Bugrov, Chris Freeman, Peter Freeman, Michael Hayden, Craig Kraft, Dante Leonelli, Cork Marcheschi, Bill Parker, Alejandro & Moira Siña (Sinha), Keith Sonnier, and Willem Volkersz.
  35. Stern, Rudi (১৯৯০)। Contemporary Neon। Retail Reporting Corp.। আইএসবিএন 978-0-934590-37-2California artist Michael Hayden was selected to design a lighting sculpture synchronized with music and orchestrated with architecture. Hayden's solution, Sky's the Limit, uses 466 neon tubes and extends 744 feet. 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:কৃত্তিম আলোক উৎস