নিকোলাস পেপে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নিকোলাস পেপে
Nicolas Pepe LOSC.jpg
২০১৯ সালে লিলের হয়ে পেপে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম নিকোলাস পেপে[১]
জন্ম (1995-05-29) ২৯ মে ১৯৯৫ (বয়স ২৬)
জন্ম স্থান মঁত-লা-জলি, ফ্রান্স
উচ্চতা ১.৮৩ মিটার (৬ ফুট ০ ইঞ্চি)[২]
মাঠে অবস্থান আক্রমণভাগের খেলোয়াড়
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব
আর্সেনাল
জার্সি নম্বর ১৯
যুব পর্যায়
সলিতের পারি এত
পোয়াতেভ্যাঁ
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
২০১২–২০১৩ পোয়াতেভ্যাঁ (২)
২০১৩–২০১৫ আঁজে ২ ৪১ (৯)
২০১৩–২০১৭ আঁজে ৪০ (৩)
২০১৫–২০১৬অর্লেয়ঁ (ধার) ২৯ (৭)
২০১৭–২০১৯ লিল ৭৪ (৩৫)
২০১৯– আর্সেনাল ৬২ (১৫)
জাতীয় দল
২০১৬– কোত দিভোয়ার ২৫ (৫)
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে এবং ১৪:৫০, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ (ইউটিসি) তারিখ অনুযায়ী সকল তথ্য সঠিক।
‡ জাতীয় দলের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা ১৪:৫০, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ (ইউটিসি) তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

নিকোলাস পেপে (ফরাসি: Nicolas Pépé; জন্ম: ২৯ মে ১৯৯৫; নিকোলাস পেপে নামে সুপরিচিত) হলেন একজন আইভোরীয় পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি বর্তমানে ইংল্যান্ডের পেশাদার ফুটবল লীগের শীর্ষ স্তর প্রিমিয়ার লীগের ক্লাব আর্সেনাল এবং কোত দিভোয়ার জাতীয় দলের হয়ে আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেন। তিনি মূলত ডান পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেললেও মাঝেমধ্যে কেন্দ্রীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় এবং বাম পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেন।

আইভোরীয় ফুটবল ক্লাব সলিতের পারি এতের যুব পর্যায়ের হয়ে খেলার মাধ্যমে পেপে ফুটবল জগতে প্রবেশ করেছেন এবং পরবর্তীকালে পোয়াতেভ্যাঁর যুব দলের হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি ফুটবল খেলায় বিকশিত হয়েছেন। ২০১২–১৩ মৌসুমে, আইভোরীয় ক্লাব পোয়াতেভ্যাঁর হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি তার জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ি জীবন শুরু করেছেন; পোয়াতেভ্যাঁর হয়ে এক মৌসুমে ৯ ম্যাচে ২টি গোল করার পর ২০১৩–১৪ মৌসুমে প্রথমে আঁজে ২ এবং পরবর্তীকালে আঁজের হয়ে খেলেছেন। মাঝে তিনি এক মৌসুমের জন্য ফরাসি ক্লাব অর্লেয়েঁর হয়ে খেলেছেন। আঁজেতে দুই মৌসুম অতিবাহিত করার পর প্রায় ১৮ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ফরাসি ক্লাব লিলের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছেন, যেখানে তিনি সকল প্রতিযোগিতায় ৮০ ম্যাচে ৩৭টি গোল করেছেন। ২০১৯–২০ মৌসুমে, তিনি প্রায় ৮০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে লিল হতে আইভোরীয় ক্লাব আর্সেনালে যোগদান করেছেন।[৩][৪]

পেপে ২০১৬ সালে কোত দিভোয়ারের হয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিষেক করেছেন; কোত দিভোয়ারের জার্সি গায়ে তিনি এপর্যন্ত ২৫ ম্যাচে ৫টি গোল করেছেন। তিনি কোত দিভোয়ারের হয়ে এপর্যন্ত ২টি আফ্রিকা কাপ অব নেশন্সে (২০১৭ এবং ২০১৯) অংশগ্রহণ করেছেন। ব্যক্তিগতভাবে, পেপে বেশ কিছু পুরস্কার জয়লাভ করেছেন, যার মধ্যে ২০১৮–১৯ মৌসুমে লিলের মৌসুম সেরা খেলোয়াড় পুরস্কার অন্যতম।[৫] দলগতভাবে, পেপে এপর্যন্ত ১টি শিরোপা জয়লাভ করেছেন, যার আর্সেনালের হয়ে জয়লাভ করেছেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

নিকোলাস পেপে ১৯৯৫ সালের ২৯শে মে তারিখে ফ্রান্সের মঁত-লা-জলিতে জন্মগ্রহণ করেছেন এবং সেখানেই তার শৈশব অতিবাহিত করেছেন।

আন্তর্জাতিক ফুটবল[সম্পাদনা]

২০১৬ সালের ১৫ই নভেম্বর তারিখে, মাত্র ২১ বছর ৫ মাস ১৭ দিন বয়সে, বাম পায়ে ফুটবল খেলায় পারদর্শী পেপে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত প্রীতি ম্যাচে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ফুটবলে কোত দিভোয়ারের হয়ে অভিষেক করেছেন।[৬][৭] উক্ত ম্যাচের ৮৬ম মিনিটে আক্রমণভাগের খেলোয়াড় মাক্স গ্রাদেলের বদলি খেলোয়াড় হিসেবে তিনি মাঠে প্রবেশ করেছিলেন;[৮] ম্যাচে তিনি ২ নম্বর জার্সি পরিধান করে ডান পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেছিলেন।[৯] ম্যাচটি ০–০ গোলে ড্র হয়েছিল।[১০] কোত দিভোয়ারের হয়ে অভিষেকের বছরে পেপে মাত্র ১ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছেন। জাতীয় দলের হয়ে অভিষেকের ১ বছর ৪ মাস ৯ দিন পর, কোত দিভোয়ারের জার্সি গায়ে প্রথম গোলটি করেছেন; ২০১৮ সালের ২৪শে মার্চ তারিখে, টোগোর বিরুদ্ধে ম্যাচে গিসলাইন কোনানের অ্যাসিস্ট হতে কোত দিভোয়ারের প্রথম গোলটি করার মাধ্যমে তিনি আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার প্রথম গোলটি করেছেন।[১১][১২][১৩]

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।
দল সাল ম্যাচ গোল
কোত দিভোয়ার ২০১৬
২০১৭
২০১৮
২০১৯
২০২০
২০২১
সর্বমোট ২৫

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Cote d'Ivoire" (PDF)। Confederation of African Football। ১৫ জুন ২০১৯। পৃষ্ঠা 7। সংগ্রহের তারিখ ২৬ আগস্ট ২০১৯ 
  2. "Nicolas Pépé: Overview"। Premier League। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  3. Marsden, Sam (২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮)। "Barcelona interest in Nicolas Pepe confirmed by Lille president"। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জানুয়ারি ২০১৯ 
  4. "Nicolas Pepe completes move to Arsenal from Lille for club-record £72m"। Sky Sports। ২ আগস্ট ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২ আগস্ট ২০১৯ 
  5. "Nicolas Pépé est le Dogue de la saison." (ফরাসি ভাষায়)। Lille OSC। ১৫ মে ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  6. "nicolas pepe: Ivorian starlet Nicolas Pepe signs for Lille - Football News"The Times of India। ২১ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  7. "France vs. Côte d'Ivoire - 15 November 2016"Soccerway। ১৫ নভেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  8. "Ivory Coast, Nov 15, 2016 - International Friendlies - Match sheet"Transfermarkt (ইংরেজি ভাষায়)। ১৫ নভেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  9. "Ivory Coast 0:0 (Friendlies 2016, November)"worldfootball.net (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  10. Strack-Zimmermann, Benjamin (১৫ নভেম্বর ২০১৬)। "France vs. Ivory Coast (0:0)"National Football Teams (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  11. "Togo - Ivory Coast, Mar 24, 2018 - International Friendlies - Match sheet"Transfermarkt (ইংরেজি ভাষায়)। ২৪ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  12. "Togo vs. Côte d'Ivoire - 24 March 2018"Soccerway। ২৪ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  13. "Togo - Ivory Coast 2:2 (Friendlies 2018, March)"worldfootball.net। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]