নাইনা ইয়েলৎসিনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নাইনা ইয়োসিফোভনা ইয়েলৎসিনা
Наина Иосифовна Ельцина
Naina Yeltsina (cropped).jpg
রাশিয়ার ফার্স্ট লেডি
কাজের মেয়াদ
১০ জুলাই ১৯৯১ – ৩১ ডিসেম্বর ১৯৯৯
রাষ্ট্রপতিবরিস ইয়েলৎসিন
পূর্বসূরীপদ প্রতিষ্ঠিত
উত্তরসূরীল্যুদমিলা পুটিনা
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মআনাস্তাসিয়া ইয়োসিফোভনা গিরিনা
(1932-03-14) ১৪ মার্চ ১৯৩২ (বয়স ৮৭)
ওরেনবার্গ অঞ্চল, সোভিয়েত ইউনিয়ন (বর্তমান রাশিয়া)
দাম্পত্য সঙ্গীবরিস ইয়েলৎসিন (বি. ১৯৫৬; মৃ. ২০০৭)
সন্তান

নাইনা ইয়োসিফোভনা ইয়েলৎসিনা (রুশ: Наина Иосифовна Ельцина, জন্ম ১৪ মার্চ ১৯৩২) হলেন রাশিয়ার প্রথম ফার্স্ট লেডি।

জীবনী[সম্পাদনা]

নাইনা জন্মেছিলেন ১৯৩২ সালে, সোভিয়েত ইউনিয়নের ওরেনবার্গ অঞ্চলে। ১৯৫৫ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের উরাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের নির্মাণবিদ্যা ফ্যাকাল্টি থেকে স্নাতক হবার পর তিনি সোভিয়েত ইউনিয়নের সভার্দলোভস্ক ইন্সটিটিউটের বিভিন্ন প্রকল্পে কাজ করেন। তিনি ১৯৫৫ সালে বরিস ইয়েলৎসিনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন, যার সাথে তার পরিচয় ঘটেছিল উরাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে। ১৯৫৭ ও ১৯৬০ সালে তাদের ইয়েলিনা ও তাতিয়ানা নামের দুই কন্যাসন্তানের জন্ম হয়।

নাইনা ইয়েলৎসিনা জনসম্মুখে খুব কম দেখা যেত। তিনি তার স্বামী বরিস ইয়েলৎসিনের সাথে ১৯৯৭ সালে সুইডেনফিনল্যান্ড এবং ১৯৯৯ সালে চীন সফর করেছিলেন।[১][২][৩]

নাইনা ইয়েলৎসিনা তার স্বামী বরিস ইয়েলৎসিনের রাজনৈতিক কাজে হস্তক্ষেপ না করলেও ১৯৯৬ সালে তার স্বামীর নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছিলেন। তিনি ভোটারদের কাছে যেয়ে বরিস ইয়েলৎসিনের পক্ষে ভোট চেয়েছিলেন এবং সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার প্রদান করেছিলেন।[৪] ২০০৭ সালের এপ্রিল মাসে বরিস ইয়েলৎসিন মারা গেলে তাকে বরিস ইয়েলৎসিনের শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে শোকার্ত অবস্থায় দেখা গিয়েছিল।[৫]

২০১৭ সালে নাইনা ইয়েলৎসিনা তার স্মৃতিকথামূলক গ্রন্থ ইয়েলৎসিন কেন্দ্র ও মস্কোতে উপস্থাপন করেন।[৬][৭][৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]