দ্য ম্যান হু ওয়াজন্ট দেয়ার (চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

দ্য ম্যান হু ওয়াজন্ট দেয়ার (ইংরেজি ভাষায়: The Man Who Wasn't There) ২০০১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সাদাকালো নব্য নয়ার চলচ্চিত্র। রচনা ও পরিচালনা করেছেন জোয়েল কোয়েন ও ইথান কোয়েন। মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিলি বব থর্নটন

বিশ্লেষণ[সম্পাদনা]

দ্য হাডসাকার প্রক্সি ছবি নির্মাণ করার সময় কোয়েন ভ্রাতৃদ্বয় একটি পোস্টার দেখেছিলেন যা তাদেরকে এই ছবি নির্মাণে উৎসাহ যুগিয়েছিল। পোস্টারটি ছিল ১৯৪০-এর দশকে চুলের বিভিন্ন স্টাইলের ওপর। এই সিনেমার কাহিনী আবর্তিত হয়েছে ১৯৪৯ সালের প্রেক্ষাপটে। জোয়েল কোয়েন স্বীকার করেছেন, জেমস এম কেইনের লেখা এই ছবির প্রধান অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে।

এছাড়া এতে আলবেয়ার কামুর বিখ্যাত অস্তিত্ববাদী উপন্যাস L'Étranger (ইংরেজি শিরোনাম: The Outsider) এর সাথে ছবিটির মূল কাহিনীর মিল লক্ষ্য করা যায়।

রজার ডিকিন্সের করা সিনেমাটোগ্রাফিটি একেবারে সরল এবং প্রথাগত। চোখ বরাবর ক্যামেরা রেখেই অধিকাংশ চিত্র গ্রহণ করা হয়েছে। আলোকসম্পাত ছিল টেক্সটবুক প্রকৃতির। এমনভাবে নির্মিত হয়েছে যে দর্শকরা দেখে মনে করতে পারেন এটা আসলেই ১৯৫০ সালের সিনেমা। এড-কে সবসময়ই একটি ফিল্টারবিহীন সিগারেট হাতে দেখা গেছে যা সে যুগেরই নিদর্শন বহন করে। ২০০১ সালে ছবিটি সেরা চিত্রগ্রহণের জন্য একাডেমি পুরস্কার মনোনয়ন লাভ করেছিল।

ছবিতে বেশ কয়েকবার অদ্ভুত উড়ন্ত বস্তুর (UFO) উল্লেখ আছে। কথোপকথনের মাধ্যমে তা ফুটে উঠেছে। একটি দৃশ্যে অ্যাশট্রের মাধ্যমে এর প্রতি নির্দেশ করা হয়েছে।

সাদাকালো হলেও দ্য ম্যান হু ওয়াজন্ট দেয়ার আসলে রঙিন হিসেবে নির্মাণ করা হয়েছিল। নির্মাণের পর রঙিন থেকে সাদাকালোতে রূপান্তরিত করা হয়। রজার ইবার্ট বলেছেন, প্রথমবার মুক্তি পাওয়ার সময় ভুলক্রমে এর কয়েকটি রঙিন দৃশ্যও মুক্তি পেয়ে গিয়েছিল।

চরিত্রসমূহ[সম্পাদনা]

  • বিলি বব থর্নটন - এড ক্রেইন
  • ফ্রান্সিস ম্যাকডরম্যান্ড - ডোরিস ক্রেইন
  • Michael Badalucco - ফ্র্যাংক
  • James Gandolfini - বিগ ডেইভ ব্রুস্টার
  • Katherine Borowitz - অ্যান নার্ডলিংগার ব্রুস্টার
  • Jon Polito - ক্রেইটন টোলিভার
  • স্কারলেট জোহানসন - বার্ডি অ্যাবান্ডাস

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

সমালোচকদের কাছ থেকে প্রশংসাই বেশি পেয়েছে। আইএমডিবি রেটিং ৭.৭। রটেন টম্যাটোস-এ শতকরা ৮০ ভাগ সমালোচকই ইতিবাচক সমালোচনা করেছেন। এখানে দর্শকদের কাছ থেকে ৭ রেটিং পেয়েছে। আর মেটাক্রিটিক-এ এর রেটিং ৭৩%। এখানে দর্শকরা ৮.৫ রেটিং দিয়েছে।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]