দ্য থিওরি অব এভরিথিং (২০১৪-এর চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
দ্য থিওরি অব এভরিথিং
চিত্র:দ্য থিওরি অব এভরিথিং (২০১৪) চলচ্চিত্রের পোস্টার.jpg
যুক্তরাজ্যে মুক্তির পোস্টার[১]
The Theory of Everything
পরিচালকজেমস মার্শ[১]
প্রযোজক
চিত্রনাট্যকারঅ্যান্থনি ম্যাককার্টেন
উৎসজেন হকিং কর্তৃক 
ট্রাভেলিং টু ইনফিনিটি: মাই লাইফ উইথ স্টিভেন
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারইয়োহান ইয়োহানসন
চিত্রগ্রাহকবেনোয়া দেলহোম
সম্পাদকজিনক্স গডফ্রি
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকইউনিভার্সাল পিকচার্স (যুক্তরাজ্য ও আন্তর্জাতিক)
ফোকাস ফিচারস (যুক্তরাষ্ট্র)
মুক্তি
  • ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (২০১৪-০৯-০৭) (টরন্টো[৩])
  • ১ জানুয়ারি ২০১৫ (২০১৫-০১-০১) (যুক্তরাজ্য)
দৈর্ঘ্য১২৩ মিনিট[১]
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$১৫ মিলিয়ন[৪]
আয়$১২৩.৭ মিলিয়ন[৪]

দ্য থিওরি অব এভরিথিং (ইংরেজি: The Theory of Everything হল ২০১৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ব্রিটিশ জীবনীমূলক প্রণয়ধর্মী নাট্য চলচ্চিত্র।[৫] এটি পরিচালনা করেন জেমস মার্শ[১] এবং জেন হকিং রচিত স্মৃতিকথা ট্রাভেলিং টু ইনফিনিটি: মাই লাইফ উইথ স্টিভেন অবলম্বনে চিত্রনাট্য রচনা করেন অ্যান্থনি ম্যাককার্টেনকেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পটভূমিতে নির্মিত ছবিটিতে তাত্ত্বিক পদার্থবিদ স্টিভেন হকিংয়ের জীবনী ও তার স্ত্রী জেনের সাথে তার সম্পর্ক, তার অ্যামিওট্রফিক ল্যাটারাল স্কেরোসিসের চিকিৎসা ও পদার্থবিজ্ঞানে তার সাফল্যের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।[৬]

এতে স্টিভেনের ভূমিকায় অভিনয় করেন এডি রেডমেইন,[১][২] এবং তার স্ত্রী জেনের ভূমিকায় অভিনয় করেন ফেলিসিটি জোন্স[১][২] এছাড়া অন্যান্য পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেন চার্লি কক্স, এমিলি ওয়াটসন, সিমন ম্যাকবার্নি, ক্রিস্টিয়ান ম্যাককে, হ্যারি লয়েড এবং ডেভিড থেওলিস।[১][২] ২০১৪ সালের ৭ই সেপ্টেম্বর টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে চলচ্চিত্রটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়[৩] এবং ২০১৫ সালের ১লা জানুয়ারি যুক্তরাজ্যে মুক্তি পায়।[১]

চলচ্চিত্রটি ইতিবাচক সমালোচনা অর্জন করে এবং সঙ্গীত, চিত্রগ্রহণ ও অভিনয়, বিশেষ করে এডি রেডমেইনের কাজ সমাদৃত হয়, এবং তিনি বিভিন্ন পুরস্কার আয়োজন ও চলচ্চিত্র উৎসব থেকে মনোনয়ন লাভ করে এবং শ্রেষ্ঠ অভিনেতার জন্য একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া চলচ্চিত্রটি শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, জোন্স শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী, ম্যাককার্টেন শ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্য, এবং জোহানসন শ্রেষ্ঠ মৌলিক সুর বিভাগে মনোনয়ন লাভ করে। চলচ্চিত্রটি ১০টি বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে এবং শ্রেষ্ঠ ব্রিটিশ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ অভিনেতা ও শ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্যের পুরস্কার জয় করে। ছবিটি ৭২তম গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারে চারটি বিভাগে মনোনয়ন লাভ করে এবং শ্রেষ্ঠ নাট্য অভিনেতা ও শ্রেষ্ঠ মৌলিক সুরের পুরস্কার জয় করে। এছাড়া ছবিটি তিনটি স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে এবং শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে পুরস্কার জয় করে।

কুশীলব[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "The Theory of Everything (12A)"BBFC.co.uk (ইংরেজি ভাষায়)। ব্রিটিশ বোর্ড অব ফিল্ম ক্লাসিফিকেশন। ২২ ডিসেম্বর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 
  2. "The Theory of Everything"ওয়ার্কিং টাইটল ফিল্মস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 
  3. "The Theory of Everything"TIFF.net (ইংরেজি ভাষায়)। টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। ৬ আগস্ট ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 
  4. "The Theory of Everything (2014)"BoxOfficeMojo.com (ইংরেজি ভাষায়)। বক্স অফিস মোজো। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 
  5. Bullock, Dan (১০ এপ্রিল ২০১৪)। "Stephen Hawking biopic 'Theory of Everything' set for Nov. 7 launch"Variety.com (ইংরেজি ভাষায়)। ভ্যারাইটি। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 
  6. "'The Theory of Everything' trailer is a heartbreaking inspiration"হাফিংটন পোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। ৬ আগস্ট ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 
  7. "The Theory of Everything begins principal photography" (ইংরেজি ভাষায়)। ওয়ার্কিং টাইটল ফিল্মস। ৮ অক্টোবর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 
  8. Anderson, L.V. (৭ নভেম্বর ২০১৪)। "How accurate is The Theory of Everything?"Slate.com (ইংরেজি ভাষায়)। স্লেট ম্যাগাজিন। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]