স্থানাঙ্ক: ২৯°১৯′ উত্তর ১১২°৫৭′ পূর্ব / ২৯.৩১৭° উত্তর ১১২.৯৫০° পূর্ব / 29.317; 112.950

দোংতিং হ্রদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দোংতিং হ্রদ
তুং-তিং হ্রদ
Waters of central China.jpg
অবস্থানহুনান প্রদেশ
স্থানাঙ্ক২৯°১৯′ উত্তর ১১২°৫৭′ পূর্ব / ২৯.৩১৭° উত্তর ১১২.৯৫০° পূর্ব / 29.317; 112.950
প্রাথমিক অন্তর্প্রবাহছাং চিয়াং, শিয়াং, জি, য়ুয়ান, লি
প্রাথমিক বহিঃপ্রবাহছাং চিয়াং
অববাহিকার দেশসমূহচিন
পৃষ্ঠতল অঞ্চল২,৮২০ কিমি (১,০৯০ মা)
বন্যার সময়: ২০,০০০ কিমি (৭,৭০০ মা)
প্রাতিষ্ঠানিক নামদোংতিং হু
অন্তর্ভুক্তির তারিখ৩১শে মার্চ ১৯৯২
রেফারেন্স নং৫৫১[১]
দোংতিং হ্রদ
Lake Dongting (Chinese characters).svg
"দোংতিং হ্রদ" চীনা অক্ষরে
চীনা 洞庭湖
আক্ষরিক অর্থ"গ্রোটো কোর্ট লেক"
মানচিত্রে দোংতিং হ্রদ এবং এর মধ্যে প্রবাহিত প্রধান নদীগুলি

দোংতিং হ্রদ (চীনা: 洞庭湖) হল চীনের উত্তর-পূর্ব হুনান প্রদেশের একটি বিশাল, অগভীর হ্রদ। এটি ছাং চিয়াং নদীর একটি বন্যা অববাহিকা, সুতরাং এর আয়তন মরসুমের উপর নির্ভর করে। হুপেই এবং হুনান, এই প্রদেশদুটির নামকরণ হ্রদের তুলনায় তাদের অবস্থান অনুসারে করা হয়েছে: হুপেই অর্থ "হ্রদের উত্তরে" এবং হুনান অর্থ "হ্রদের দক্ষিণে"।[২]

দোংতিং হ্রদটি চীনা সংস্কৃতিতে ড্রাগন নৌকা দৌড়ের উৎসস্থান হিসাবে বিখ্যাত। এখানে জুনশান দ্বীপের আছে, যেটি বিলুপ্তপ্রায় ফিনলেজ পরপয়েজ প্রজাতির বাসস্থান।

ভূগোল[সম্পাদনা]

দোংতিং হ্রদ সহ মানচিত্র (নাম দেওয়া আছে তুং-তিং হু 洞庭湖) (১৯৫৩)
দোংতিং সমভূমির মানচিত্র

জুলাই-সেপ্টেম্বর মাসে, ছাং চিয়াং থেকে বন্যার জল এই হ্রদে প্রবাহিত হয়, সেই সময় এটি ব্যাপকভাবে বিস্তৃত হয়। সাধারণভাবে হ্রদের ক্ষেত্র ২,৮২০ বর্গকিলোমিটার অথবা ১,০৯০ বর্গমাইল থাকে (১৯৯৮ এর আগের তথ্য)। বন্যার সময়, যখন শাং জিয়াং থেকে প্রচুর পরিমাণে জল এবং পলল হ্রদে প্রবাহিত হয়, তখন এর ক্ষেত্র বেড়ে গিয়ে ২০,০০০ বর্গকিলোমিটার (৭,৭০০ মা) হয়ে যেতে পারে। চারটি প্রধান নদীর জল এই হ্রদে এসে পড়ে, সেগুলি হল: শিয়াং, জি, য়ুয়ান এবং লি নদী। কিছু ছোট নদীও এখানে প্রবাহিত হয়, তার মধ্যে সর্বাধিক প্রসিদ্ধ হল মিলুও নদী যেখানে কবি চু উয়ান আত্মহত্যা করেছিলেন। এছাড়াও, শিয়াও নদী ইয়ংজু এর কাছে শিয়াংয়ে পড়েছে, তারপর শিয়াং নদী এই হ্রদে প্রবাহিত হয়েছে। সমুদ্রগামী জাহাজগুলি ছাংশা পৌঁছতে শিয়াং দিয়ে যাতায়াত করতে পারে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

পৃথিবীতে এখনও পর্যন্ত আবিষ্কৃত প্রাথমিকতম ধানক্ষেতেগুলি ছিল লিয়াং সমভূমিতে, সেটি তখন দোংতিং হ্রদের পশ্চিম প্রান্তে ছিল।[৩] পূর্ব চৌ যুগে চু রাজ্য এই অঞ্চল দখল করেছিল, খ্রিস্টপূর্ব তৃতীয় শতাব্দীতে চিন এই অঞ্চলটি দখল করে নেয়। হান শাসন কালে, হুপেই প্রদেশের দোংতিং হ্রদের উত্তরে অবস্থিত, য়ুনমেং জলাভূমি (雲夢大澤; ইয়ানমেং ডেয আক্ষরিক অর্থে "মেঘ স্বপ্নের মহান জলাভূমি"), ছাং চিয়াং নদীর প্রধান বন্যা অববাহিকা ছিল। এখানকার সমৃদ্ধ পলল কৃষকদের আকর্ষণ করেছিল। নদীকে দূরে রেখে বাঁধ নির্মাণ করার ফলে ছাং চিয়াং নদীর দক্ষিণে দোংতিং হ্রদ অঞ্চল ধীরে ধীরে নদীর মূল বন্যা অববাহিকায় পরিণত হয়ে গেল। হান সাম্রাজ্য এই অঞ্চলের উপনিবেশীকরণে সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিল, লিয়াংয়ে পরিখা তৈরি করে কৃষিক্ষেত্রকে বন্যার হাত থেকে রক্ষা করা হয়েছিল।[৪]

সেই সময়, দোংতিং হ্রদ ছিল চীনের বৃহত্তম মিষ্টি জলের হ্রদ। এর আকারের কারণে, এর নাম হয়েছিল আট-শত-লি-দোংতিং (八百里洞庭)। আজকের দিনে, এটি পোয়াং হ্রদের পরে দ্বিতীয় বৃহত্তম হ্রদ হয়ে দাঁড়িয়েছে, কারণ হ্রদের বেশিরভাগ অংশ কৃষিজমিতে পরিণত হয়েছে।[৫]

সংস্কৃতি এবং পুরাকথা[সম্পাদনা]

হার্মিট ফিশারম্যান অন লেক দোংতিং, অঙ্কনে চিত্রশিল্পী উ ঝেন (১২৮৭–১৩৫৪)

অঞ্চলটি চীনের ইতিহাস এবং সাহিত্যে সুপরিচিত। "দোংতিং" এর আক্ষরিক অর্থ "গুহা দরবার", এবং হ্রদটির নামকরণ করা হয়েছিল বিশাল কক্ষ বা গুহার জন্য। বিশ্বাস করা হত হ্রদের নীচে সেটি রয়েছে। আরও বিশ্বাস করা হত সন্ন্যাসী-রাজা শানের দুই স্ত্রী ই হুয়াং এবং নু য়িংয়ের আত্মারা ওই গুহার শাসক। মনে করা হত সেখানে ভূগর্ভস্থ পরিখা দিয়ে সাম্রাজ্যের প্রতি অংশে যাওয়া যায়।[৬] কথিত আছে যে চু কবি চু উয়ানের (খ্রিস্টপূর্ব ৩৪০-২৭৮) মৃতদেহের সন্ধানের জন্য দোংতিং হ্রদের পূর্ব উপকূলে ড্রাগন নৌকা বাইচ চালানো শুরু হয়েছিল, এবং মনে করা হত একজন ড্রাগন-রাজা হ্রদের নীচে বাস করেন।

জুনশান দ্বীপের নামকরণও শানের দেবী-স্ত্রীদের নামে করা হয়েছিল। দেবীরা শানের মৃত্যুর পর সেখানেই বাস করতেন এবং তাঁর মৃত্যুর জন্য শোক প্রকাশ করতেন। আগেকার তাওবাদী মতাদর্শে বিশ্বাসী, জুনশান দ্বীপ হল হ্রদের মাঝখানে ৭২টি শৃঙ্গ সমেত একটি এক কিলোমিটার ব্যাপী একটি দ্বীপ। দ্বীপটি জুনশান ইনঝেন চায়ের জন্যও বিখ্যাত। দোংতিং হ্রদের অববাহিকা এবং এর আশেপাশের অঞ্চল প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য বিখ্যাত, যা "শিয়াও এবং শিয়াং নদীর হুনান" বাক্যাংশে আবদ্ধ হয়েছে (潇湘湖南; শিয়াও-শিয়াং হুনান)।[২]

শিউই পর্বতমালা এবং নীচে শিয়াও এবং শিয়াং নদীর সৌন্দর্য্যাবলির উল্লেখ প্রায়শই চীনা কবিতায় পাওয়া যায়। প্রাচীন তাং সাম্রাজ্যের কবি ইউ ইউউলিং দোংতিং হ্রদের প্রাকৃতিক দৃশ্যের প্রতি অনুরাগী ছিলেন।[৭] সোং সাম্রাজ্যে, আটটি দৃশ্যপটে এই অঞ্চলের দৃশ্যাবলী আঁকা একটি ধারা হয়ে ওঠে, সেটি অভিহিত ছিল শিয়াওশিয়াংয়ের আট দৃশ্য নামে। আরও বলা হয় যে হান শিঝং সামরিক পরিষেবা থেকে অবসর গ্রহণের পরে এই অঞ্চলে এসে স্থিত হয়েছিলেন। অঙ্কনের এই ধারাটি জাপানেও ছড়িয়ে পড়েছিল। সেখানে শিয়াও এবং শিয়াং নদীর বদলে অন্যান্য বিখ্যাত স্থানের ব্যবহার হত। [২] হ্রদের ভূগোল ভিত্তিক একটি বিখ্যাত জলাশয় কিয়োটোর দাইকাকু-জিতে রয়েছে।

পরিবেশগত বিষয়[সম্পাদনা]

প্রাচীন কাল থেকেই এই অঞ্চলে কৃষিভিত্তিক উপনিবেশ শুরু হয়েছিল, এবং ১৯তম শতাব্দীর মধ্যে হ্রদের অগভীর অংশের অনেকখানি কৃষিজমি তৈরির জন্য ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল।[৮] ১৯৪৯ সালের পরে নতুন জলাভূমি নিকাশী ব্যবস্থার ফলে বাকি অংশের আরও অনেকটা নষ্ট হয়ে যায়, মূল জলাভূমির কেবলমাত্র অল্পকিছু অংশ পড়ে থাকে। পরবর্তীতে যদিও নষ্ট হওয়া অঞ্চলটির কিছু অংশ আবার জলাভূমিতে ফিরে এসেছে। যাইহোক, পোয়াং হ্রদের সাথে, এটি চীনের বৃহত্তম হ্রদগুলির মধ্যে একটি, এবং শীতকালীন পরিযায়ী পাখিদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল। ১৯৯২ সাল থেকে এটি একটি সুরক্ষিত রামসার কনভেনশন হিসাবে মনোনীত করা হয়েছে।[১]

২০০৭ সালে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছিল যে এই হ্রদের স্থানীয় বাসিন্দা, চীনের ফিনলেজ পরপয়েজ সম্প্রদায়, ছাং চিয়াং নদীর বাইজিথুয়ান ডলফিনের মত বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে। ফিনলেজ পরপয়েজ সম্প্রদায়ের সংরক্ষণের জন্য পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছিল। এই সম্প্রদায়ের প্রায় ১৪০০ জন বেঁচে আছে, তার মধ্যে প্রায় ৭০০ থেকে ৯০০ জন ছাং চিয়াং অঞ্চলে, এবং পোয়াং ও দোংতিং হ্রদ অঞ্চলে আরও প্রায় ৫০০ জন বসবাস করে। ২০০৭ সালের এদের জনসংখ্যা ১৯৯৭ সালের জনসংখ্যার অর্ধেকেরও কম হয়ে গিয়েছিল, এবং জনসংখ্যা প্রতি বছর ৭.৩ শতাংশ হারে কমে যাচ্ছে। পোয়াং হ্রদে এই নাগরিক জনগোষ্ঠীর উপর চাপ আসে এখানে প্রচুর সংখ্যক জাহাজ চলাচল এবং এখানে বালু উত্তোলনের জন্য।[৯]

২০০৭ সালে জুন মাসের শেষের দিকে ছাং চিয়াং নদীতে বন্যার পরে, প্রায় ২০০ কোটি ইঁদুর হ্রদের দ্বীপপুঞ্জ থেকে বাস্তুচ্যুত হয়েছিল। ইঁদুরগুলি আশেপাশের জনগোষ্ঠী আক্রমণ করেছিল, ফসল এবং পরিখার ক্ষতি করেছিল। ইঁদুরের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য সরকার দেওয়াল নির্মাণ ও খাল খনন করতে বাধ্য হয়েছিল।[১০] ২০০৫ সালে, একটি পুনরুদ্ধার প্রকল্প, জীব-বৈচিত্র্য সুরক্ষা ব্যবস্থাপনার চীন-নরওয়েজীয় প্রকল্প, শুরু হয়েছিল। চীন ডেইলির ২০০৭ সালের একটি নিবন্ধ অনুসারে "[দোংতিং লেক অঞ্চল] পাঁচ থেকে দশ বছরের মধ্যে একটি স্থায়ী জীববৈচিত্র্যের পরিবেশে পুনরুদ্ধার করা হবে"।[১১]

হ্রদের পাশে প্রধান শহরগুলি[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Dong dongting hu"Ramsar Sites Information Service। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মে ২০২০ 
  2. "Dongting Lake"। সংগ্রহের তারিখ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  3. Zhang Chi 張弛, “The Qujialing-Shijiahe Culture in the Middle Yangzi River Valley,” in A Companion to Chinese Archaeology, ed. Anne P. Underhill (Chichester: John Wiley & Sons, 2013), 510–34.
  4. Brian Lander, “State Management of River Dikes in Early China: New Sources on the Environmental History of the Central Yangzi Region.” T’oung Pao 100.4-5 (2014): 325–362.
  5. Peter Perdue, Exhausting the Earth: State and Peasant in Hunan 1500–1850 (Cambridge: Harvard Univ. Council on East Asian Studies, 1987).
  6. Murck, Alfreda (২০০০)। Poetry and Painting in Song China: The Subtle Art of Dissent। Harvard Univ Asia Center। পৃষ্ঠা 8–10। আইএসবিএন 978-0-674-00782-6 
  7. Ueki et al. 1999, pp. 133–4.
  8. Brian Lander, “State Management of River Dikes in Early China: New Sources on the Environmental History of the Central Yangzi Region.” T’oung Pao 100 (2014): 287-324; Peter Perdue, Exhausting the Earth: State and Peasant in Hunan 1500–1850 (Cambridge: Harvard University Council on East Asian Studies, 1987).
  9. "Archived copy"। ২০১৬-০৩-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-০৮  www.chinadialogue.net - Poyang Lake saving the finless porpoise
  10. "Archived copy"। ২০০৭-০৭-১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৭-১০  www.physorg.com - 2 Billion Chinese Mice Overrun Lake Area
  11. "Lake back to health in 5 to 10 years"[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ] (on the website of the Ministry of Water Resources of the People's Republic of China.)

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Lakes of China