বিষয়বস্তুতে চলুন

দেওরিয়া তাল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দেওরিয়া তাল
देवरिया ताल
দেওরিয়া তালে চৌখাম্বার প্রতিবিম্ব
সর্বোচ্চ বিন্দু
উচ্চতা২,৪৩৮ মিটার (৭,৯৯৯ ফুট)
ভূগোল
অবস্থানউত্তরাখণ্ড, ভারত
মূল পরিসীমাগাড়োয়াল হিমালয়

দেওরিয়া তাল (দেভারিয়া নামেও পরিচিত) উত্তরাখন্ডের উখীমঠ-চোপ্তা রোডে মুস্তুরু গ্রাম থেকে ৪কিমি চড়াই এবং সারি গ্রাম থেকে ২কিমি চড়াইয়ে অবস্থিত একটি হ্রদ। এটি ২৪৩৮মিটার উচ্চতায় তুষারাবৃত হিমালয় পর্বতমালায় ও গাছপালায় ঘেরা । এখান থেকে চৌখাম্বা,মন্দানি,সুমেরু,কেদারনাথ প্পভৃতি শৃঙ্গ দৃশ্যমান।

প্রবেশ[সম্পাদনা]

দেওরিয়া তালের রাস্তায় ছোট মন্দির

উখীমঠ থেকে মুস্তুরু হয়ে সারি যাওয়ার জন্য জীপ পাওয়া যায়,ফেরত যাবার জন্য মুস্তুরু অবধি হেঁটে শেয়ার জীপ পাওয়া যায়। [১]

উখীমঠ থেকে ট্রেক করেও দেওরিয়া তাল পৌছন যায় । দুরত্ব সাত কিমি। দেওরিয়া তালে জঙ্গলে ট্রেক করা, রাতিবাসের জন্য তাঁবু এবং অল্প কয়েকটি ঘরের বন্দোবস্ত আছে। দেওরিয়া তালে কিছু চা,জলখাবারের দোকান আছে,কিন্তু সন্ধ্যায় সেগুলি বন্ধ হয়ে যায়। ট্রেকাররা সাধারনত নিকটবর্তী তুঙ্গনাথ,চন্দ্রশীলা ট্রেকটি এক সাথে করেন।তুঙ্গনাথ পঞ্চকেদারের তৃতীয় কেদার, এখানে শিবের উচ্চতম মন্দির আছে। [২]

পানোরামিক দৃশ্য[সম্পাদনা]

দেওরিয়া তাল থেকে পানোরামিক দৃশ্য

দেওরিয়া তাল পানোরামিক দৃশ্যের জন্য পরিচিত।

হিন্দু পৌরাণিক কাহিনী[সম্পাদনা]

হিন্দু পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে কথিত আছে দেবতাগণ এখানে স্নান করতেন সেইজন্য এই নাম। হিন্দু ভিক্ষুকদের মতে পুরান অনুযায়ী এটি ইন্দ্র সরোবর নামেও পরিচিত।কথিত আছে যক্ষ এখানে পরাক্রমশালী পান্ডবদের প্রশ্ন করেছিলেন। [৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১০ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জানুয়ারি ২০১৬ 
  2. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১৫ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জানুয়ারি ২০১৬ 
  3. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জানুয়ারি ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:উত্তরাখন্ডের জলবিজ্ঞান