দুর্গাপুর ইউনিয়ন, আশুগঞ্জ

স্থানাঙ্ক: ২৪°৩′ উত্তর ৯১°৩′ পূর্ব / ২৪.০৫০° উত্তর ৯১.০৫০° পূর্ব / 24.050; 91.050
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দুর্গাপুর
ইউনিয়ন
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সীল.svg ৩নং দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদ
দুর্গাপুর চট্টগ্রাম বিভাগ-এ অবস্থিত
দুর্গাপুর
দুর্গাপুর
দুর্গাপুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
দুর্গাপুর
দুর্গাপুর
বাংলাদেশে দুর্গাপুর ইউনিয়ন, আশুগঞ্জের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৩′ উত্তর ৯১°৩′ পূর্ব / ২৪.০৫০° উত্তর ৯১.০৫০° পূর্ব / 24.050; 91.050
দেশবাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলাব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা
উপজেলাআশুগঞ্জ উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৩৪৩০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মানচিত্র

দুর্গাপুর বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অন্তর্গত আশুগঞ্জ উপজেলার একটি ইউনিয়ন

আয়তন[সম্পাদনা]

দুর্গাপুর ইউনিয়নের আয়তন ৩,০৩৮ একর (১২.২৯ বর্গ কিলোমিটার)।[১]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী দুর্গাপুর ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা ৩৪,৭৪৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১৭,১০৮ জন এবং মহিলা ১৭,৬৪০ জন। মোট পরিবার ৬,০২৩টি।[১] জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গ কিলোমিটারে প্রায় ২,৮২৬ জন।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

পূর্বে দূর্গাপুর ছিল হিন্দুদের বসতি। কালের বিভর্তে এখন ৯৯.০২% মুসলমান। দুর্গাপুর ইউনিয়ন পূর্বে সরাইল উপজেলাধীন ৬নং পানিশ্বর দক্ষিণ ইউনিয়ন নামে পরিচিত ছিল। এই ইউনিয়নের সবচেয়ে বড় গ্রাম হলো সোহাগপুর এবং এই ইউনিয়নের সর্ব প্রথম লোকালয়ের বসবাস শুরু হয় বাহাদুরপুর এবং দূর্গাপুরে। সেই সময়ে ১০০% মানুষই হিন্দু ছিল।

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

আশুগঞ্জ উপজেলার সর্ব-উত্তরে দুর্গাপুর ইউনিয়নের অবস্থান। এ ইউনিয়নের দক্ষিণ-পশ্চিমে আশুগঞ্জ সদর ইউনিয়ন; দক্ষিণে তালশহর পশ্চিম ইউনিয়ন; পূর্বে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার তালশহর পূর্ব ইউনিয়নসরাইল উপজেলার পানিশ্বর ইউনিয়ন; উত্তরে সরাইল উপজেলার পানিশ্বর ইউনিয়ন এবং উত্তর-পশ্চিমে মেঘনা নদী, কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার আগানগর ইউনিয়নভৈরব পৌরসভা অবস্থিত।

প্রশাসনিক কাঠামো[সম্পাদনা]

দুর্গাপুর ইউনিয়ন আশুগঞ্জ উপজেলার আওতাধীন ৩নং ইউনিয়ন পরিষদ। এ ইউনিয়নের প্রশাসনিক কার্যক্রম আশুগঞ্জ থানার আওতাধীন। এটি জাতীয় সংসদের ২৪৪নং নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ এর অংশ।

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী দুর্গাপুর ইউনিয়নের সাক্ষরতার হার ৬০.৫%।[১]

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

এই ইউনিয়নে ১টি কলেজ ও ২টি উচ্চ বিদ্যালয় রয়েছে। এবং প্রাথমিক স্কুল রয়েছে ৮টি

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

খাল ও নদী[সম্পাদনা]

হাট-বাজার[সম্পাদনা]

৫টি হাট বাজার রয়েছে

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি[সম্পাদনা]

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ইউনিয়ন পরিসংখ্যান সংক্রান্ত জাতীয় তথ্য" (PDF)web.archive.org। Wayback Machine। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  2. "ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার তথ্য উপাত্ত" (PDF)web.archive.org। Wayback Machine। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]