দুনিয়ার মজদুর, এক হও!

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
১৯৩৭ সালে মস্কোর মে দিবস কুচকাওয়াজে একদল কুবান কসাক জার্মান, স্পেনীয়, রুশ ও বিশ্বের অন্যান্য ভাষায় লেখা এই স্লোগানটি জুড়ে মার্চ করে
সোভিয়েত ইউনিয়নের রাষ্ট্রীয় প্রতীকের স্লোগানটি প্রজাতন্ত্রসমূহে কথিত ১৫টি প্রধান ভাষায় ফিতার উপর লিখিত ছিল
লন্ডনের হাইগেট কবরস্থানে কার্ল মার্ক্সের সমাধি "সকল দেশের শ্রমিকরা এক হও" স্লোগানটি বহন করে

রাজনৈতিক স্লোগান "দুনিয়ার মজদুর, এক হও!"[১][টীকা ১] কার্ল মার্ক্সফ্রিডরিখ এঙ্গেলস প্রণীত কমিউনিস্ট ইস্তেহার (১৮৪৮)[২][৩][৪][৫] গ্রন্থের সমাবেশের ডাকধ্বনিগুলোর একটি (জার্মান: Proletarier aller Länder vereinigt Euch!, আক্ষরিক অর্থে "সকল দেশের সর্বহারারা, এক হও!"[১], কিন্তু শীঘ্রই ইংরেজিতে "Workers of the world, unite! You have nothing to lose but your chains!" নামে জনপ্রিয় হয়ে উঠে, যার অর্থ "বিশ্বের শ্রমিকেরা, এক হও! তোমাদের শিকল ছাড়া আর কিছুই হারানোর নেই!")।[১][টীকা ২] এই শব্দগুচ্ছের একটি ভিন্ন রূপ ("Workers of all lands, unite", "সকল দেশের শ্রমিকরা, এক হও") মার্ক্সের সমাধির পাথরেও খোদাই করা আছে।[৭] শ্লোগানের সারমর্ম হলো সারা বিশ্বের শ্রমিক শ্রেণির সদস্যদের পুঁজিবাদকে পরাজিত করতে এবং শ্রেণি বিরোধ বিজয় অর্জনে সহযোগিতা করতে হবে।

পর্যালোচনা[সম্পাদনা]

ঐতিহাসিক নাটক বন্দুকধারী মানব এর এই স্থিরচিত্রে, সংস্কার-পূর্ব রুশ বানান রীতিতে নাটকের পটভূমিতে স্লোগানটি একটি ব্যানারে চিত্রিত হয়েছে।

কমিউনিস্ট ইশতেহার বইটি প্রকাশের পাঁচ বছর আগে ১৮৪৩ সালে ফ্লোরা ত্রিস্তাঁ কর্তৃক লিখিত দ্য ওয়ার্কার্স ইউনিয়ন বইতে এই শব্দগুচ্ছটি প্রকাশিত হয়েছিল।[৮]

এঙ্গেলসের বর্ণনায় "শ্রমিক শ্রেণির প্রথম আন্তর্জাতিক আন্দোলন" হিসাবে খ্যাত আন্তর্জাতিক শ্রমজীবী মানুষের সংস্থার (International Workingmen's Association) নীতিবাক্য হিসাবে এঙ্গেলস লীগ অফ জাস্ট নামক একটি আন্তর্জাতিক শ্রমজীবী সংগঠনের স্লোগান "সকল মানুষ হলো ভাই" থেকে "সকল দেশের শ্রমজীবী ​​মানুষ, এক হও!"-তে পরিবর্তন করতে রাজি হন।[৯] এটি আন্তর্জাতিক সমাজতন্ত্র সম্পর্কে মার্ক্স ও এঙ্গেলসের দৃষ্টিভঙ্গি প্রতিফলিত করেছিল।

এই শব্দগুচ্ছটির সমপতিত অর্থ রয়েছে। প্রথমত, শ্রমিকদের উচিত তাদের দাবিসমূহ যেমন কর্মক্ষেত্রে ভালো বেতন এবং শর্তের জন্য আরও ভালোভাবে চাপ প্রয়োগ করার জন্য সংগঠনে একত্রিত হওয়া;[১০]; দ্বিতীয়ত, শ্রমিকদের উচিত তাঁদের বিভিন্ন শিল্প সংগঠনের সীমা ছাড়িয়ে পুঁজিবাদী ব্যবস্থার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া;[১১] এবং তৃতীয়ত, একই রাষ্ট্রের শ্রমিক ও নিয়োগকর্তাদের চেয়ে ভিন্ন ভিন্ন রাষ্ট্রের শ্রমিকদের একে অপরের সাথে অধিক মিল বিদ্যমান।

শব্দগুচ্ছটি ইন্ডাস্ট্রিয়াল ওয়ার্কার্স অব দ্য ওয়ার্ল্ড (IWW) তাঁদের প্রকাশনা ও গানে ব্যবহার করতো[১২][১৩] এবং মে দিবসের অনুষ্ঠানের ব্যানারের প্রধান লেখা ছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রঅস্ট্রেলিয়া উভয়ই প্রথম বিশ্বযুদ্ধকালে বিরোধিতা করার জন্য সংগঠনটি এটি ব্যবহার করেছিল।[১৩][১৪]

স্লোগানটি ছিল সোভিয়েত ইউনিয়নের রাষ্ট্রীয় নীতিবাক্য (Пролетарии всех стран, соединяйтесь!; প্রলেতারিই ভ়্সেখ়্ স্ত্রান্, সয়েদিন্যায়তেস্'!) এবং এটি সোভিয়েত ইউনিয়নের রাষ্ট্রীয় প্রতীকে উপস্থাপিত হয়েছিল। এটি ১৯১৯ সোভিয়েত রাশিয়ার ব্যাঙ্কনোটে (আরবি, চীনা, ইংরেজি, ফরাসি, জার্মান, ইতালীয় ও রুশ ভাষায়),[১৫] ১৯২১ থেকে ১৯৩৪ সাল পর্যন্ত সোভিয়েত রুবল পয়সায় উপস্থিত হয়েছিল[১৬] এবং সোভিয়েত সংবাদপত্র প্রাভদার স্লোগান ছিল।[১৭]

কিছু সমাজতান্ত্রিক এবং কমিউনিস্ট দল[কে?] এটির ব্যবহার চালিয়ে যাচ্ছে।[১৮]

রূপভেদ[সম্পাদনা]

১৮৪৮ সালে প্রকাশিত কমিউনিস্ট ইস্তাহার বইটির প্রথম সুইডীয় অনুবাদে, অনুবাদক পের গোত্রেক স্লোগানটির পরিবর্তে Folkets röst, Guds röst! (অর্থ- "জনতার কণ্ঠ, ঈশ্বরের কণ্ঠ") লিখে অনুবাদ করেন। যাইহোক, পরবর্তী অনুবাদে মূল স্লোগান অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল।[১৯]

লেনিনের নির্দেশে ১৯২০ সালে শ্রমজীবী সংগঠন কমিন্টার্নের দ্বিতীয় সভায় পথপ্রদর্শক নীতিবাক্য ছিল "সকল দেশের শ্রমিক ও নিপীড়িত জনগণ, এক হও!"।[২০] এটি কমিন্টার্নের উপনিবেশবাদ-বিরোধী লক্ষ্যমাত্রাকে নির্দেশ করে এবং সাম্রাজ্যবাদ-বিরোধী সংগ্রামে জাতিগতভাবে পরাধীন কৃষ্ণাঙ্গ জনগণ এবং বিশ্বের সর্বহারা শ্রেণিকে একত্রিত করার প্রচেষ্টা হিসেবে দেখা হয়।[২০]

বিভিন্ন দেশের জাতীয় নীতিবাক্য হিসাবে[সম্পাদনা]

এই স্লোগানটি বেশ কয়েকটি সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র তাঁদের আনুষ্ঠানিক নীতিবাক্য হিসাবে বেছে নিয়েছে।

সোভিয়েত ইউনিয়ন এবং কিছু সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র দ্বারা একটি আনুষ্ঠানিক নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহার, যেমনটি সোভিয়েত ইউনিয়নের সরকারি প্রতীকে ব্যবহৃত হয়েছিল:

সিরিলীয়: Пролетарь дин тоате цэриле, уници-вэ!
  • রুশ: Пролетарии всех стран, соединяйтесь! (Proletarii vsekh stran, soyedinyaytes'!)
  • তাজিক: Пролетарҳои ҳамаи мамлакатҳо, як шавед! (Proletarhoi hamai mamlakatho, yak shaved!)
  • তুর্কমেনীয়: Ähli ýurtlaryň proletarlary, birleşiň!
সিরিলীয়: Әхли юртларың пролетарлары, бирлешиң!
  • ইউক্রেনীয়: Пролета́рі всіх краї́н, єдна́йтеся! (Proletari vsikh krayin, yednaytesya!)
  • উজবেক: Butun dunyo proletarlari, birlashingiz!
    সিরিলীয়: Бутун дунё пролетарлари, бирлашингиз!

চীনা সোভিয়েত প্রজাতন্ত্র কর্তৃক নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহৃত:

  • চীনা: 全世界無產階級和被壓迫的民族聯合起來!
    (ফিনিন: Quán shìjiè wúchǎn jiējí hé bèi yāpò de mínzú liánhé qǐlái!)

পূর্ব জার্মানির নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহৃত:

  • জার্মান: Proletarier aller Länder, vereinigt Euch! (সোভিয়েত ভোলগা জার্মান রাষ্ট্র কর্তৃকও ব্যবহৃত)

পোলীয় গণপ্রজাতন্ত্রের নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহৃত:

স্লোভাক সোভিয়েত প্রজাতন্ত্র কর্তৃক নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহৃত:

হাঙ্গেরীয় সোভিয়েত প্রজাতন্ত্র কর্তৃক নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহৃত:

মঙ্গোলীয় গণপ্রজাতন্ত্র কর্তৃক নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহৃত:

  • মঙ্গোলীয়: Орон бүрийн пролетари нар нэгдэгтүн! (Oron bürijn proletari nar negdegtün!)

তুভাই গণপ্রজাতন্ত্র কর্তৃক নীতিবাক্য হিসাবে ব্যবহৃত:

  • তুভাই: Бүгү телегейниң пролетарлары болгаш дарлаткан араттары каттыжыңар! (Pügü delegejniñ broledarlary polgaş tarladkan araddary kaddycyñar!) (সোভিয়েত তুভা কর্তৃকও ব্যবহৃত)

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

টীকা[সম্পাদনা]

  1. ইংরেজি স্লোগান "Workers of the world, unite!" এর আক্ষরিক অনুবাদ "বিশ্বের শ্রমিকেরা, এক হও!" হলেও বাংলা ভাষায় এর ভাবানুবাদ "দুনিয়ার মজদুর, এক হও!" বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক লীগ দ্বারা ব্যবহৃত হওয়ায় এই শিরোনামেই স্লোগানটি বাংলাদেশে জনপ্রিয়।
  2. কমিউনিস্ট ইস্তেহার গ্রন্থের ইংরেজি চূড়ান্ত অনুচ্ছেদটি স্যামুয়েল মুর কর্তৃক এইভাবে অনুবাদিত হয়েছিল: "সাম্যবাদীরা (কমিউনিস্ট) তাঁদের দৃষ্টিভঙ্গি ও লক্ষ্যগুলো গোপন করতে অপছন্দ করেন। তাঁরা প্রকাশ্যে ঘোষণা করেন যে সকল বিদ্যমান সামাজিক অবস্থার জোরপূর্বক উৎখাত করার মাধ্যমেই তাঁদের পরিণতি অর্জন করা যেতে পারে। শাসক শ্রেণিদেরকে অনুমতি দিন। একটি সাম্যবাদপন্থী (কমিউনিস্টিক) বিপ্লবে কাঁপছে। সর্বহারাদের হারানোর কিছু নেই তাদের শিকল ছাড়া। তাঁদের জয় করার জন্য একটি পৃথিবী আছে। সকল দেশের কর্মজীবী মানুষেরা, এক হও!" (WORKING MEN OF ALL COUNTRIES, UNITE!)। এই অনুবাদটি মার্ক্স এবং এঙ্গেলস দ্বারা অনুমোদিত অনুবাদ এবং এটি ইংরেজিতে সর্বাধিক ব্যবহৃত সংস্করণ।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Translator's note to the Communist Manifesto"Marxists.org। Marxist Internet Archive। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  2. Gabrijela Kišiček; Igor Ž. Žagar (৩ অক্টোবর ২০১৩)। What Do We Know About the World?: Rhetorical and Argumentative Perspectives। University of Windsor। পৃষ্ঠা 471। আইএসবিএন 978-0-920233-70-2One of the most famous rallying cries of communism Workers of the world, unite! 
  3. Simon Levis Sullam (২১ অক্টোবর ২০১৫)। Giuseppe Mazzini and the Origins of Fascism। Palgrave Macmillan US। পৃষ্ঠা 91। আইএসবিএন 978-1-137-51459-2only a few years later, would give the famous rallying cry Workers of t... 
  4. Edward R. Kantowicz (১৯৯৯)। The Rage of Nationsবিনামূল্যে নিবন্ধন প্রয়োজন। Wm. B. Eerdmans Publishing। পৃষ্ঠা 21আইএসবিএন 978-0-8028-4455-2titled The Communist Manifesto, which contained the famous rallying cry: "Workers of the w... 
  5. Ronald Niezen (১৫ এপ্রিল ২০০৮)। A World Beyond Difference: Cultural Identity in the Age of Globalization। John Wiley & Sons। পৃষ্ঠা 129। আইএসবিএন 978-1-4051-3710-2The famous rallying cry from The Communist Manifesto, “workers of the world unite!” was meant only to hasten the [...] 
  6. Marx, Karl; Engels, Friedrich (২০০২)। Jones, Gareth Stedman, সম্পাদক। The Communist Manifestoবিনামূল্যে নিবন্ধন প্রয়োজন (New সংস্করণ)। London: Penguin। আইএসবিএন 978-0-140-44757-6 
  7. Wheen, Francis (২০০২)। "Introduction"। Karl Marx: A Life। New York: Norton। 
  8. Marie M. Collins and Sylvie Weil-Sayre (১৯৭৩)। "Flora Tristan: Forgotten Feminist and Socialist"Nineteenth-Century French Studies1 (4): 229–234। জেস্টোর 23535978 
  9. Lucia Pradella in 'The Elgar Companion to Marxist Economics.' Edited by Ben fine and Alfredo Saad-Filho, 2012, p.178.
  10. Wiktionary, entry for "Workers of the World"
  11. Karl Marx and Friedrich Engels, The Communist Manifesto, 1848. [১]
  12. Joseph Grim Feinberg, "The Gifts of the IWW," Against the Current 117, July–August 2005. [২]
  13. Melvyn Dubofsky, We Shall Be All, Quadrangle Books, 1969.
  14. Nick Armstrong, "The Industrial Workers of the World," Socialist Alternative, June 2005. [৩]
  15. Anderson, Joel। "RUSSIAN COINS AND CURRENCY"Interesting World Coins 
  16. "Communist States: Russia and China"www.coinlands.com। সংগ্রহের তারিখ ১৮ এপ্রিল ২০২১ 
  17. Heritage, Timothy (৪ মে ২০১২)। "Russia's Pravda hits 100, still urging workers to unite"Reuters (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৮ এপ্রিল ২০২১ 
  18. Thurston, Robert W.; Bonwetsch, Bernd (২০০০)। The People's War: Responses to World War II in the Soviet Unionবিনামূল্যে নিবন্ধন প্রয়োজন (illustrated সংস্করণ)। University of Illinois Press। পৃষ্ঠা 64আইএসবিএন 9780252026003। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০১৫ 
  19. Götrek, Pehr (১৮৪৮)। Kommunismens röst : förklaring af det kommunistiska partiet, offentliggjord i februari 1848। Pogo Press। আইএসবিএন 91-7386-018-2 . libris 7639421. reprint of libris 2683080.
  20. Pateman, Joe (২ জানুয়ারি ২০২০)। "V. I. Lenin on the 'Black Question'"Critique48 (1): 77–93। আইএসএসএন 0301-7605এসটুসিআইডি 213348492ডিওআই:10.1080/03017605.2019.1706786। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]