দান্তে পার্কিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দান্তে পার্কিন
দান্তে পার্কিন.jpg
১৮৯৪ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে দান্তে পার্কিন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামডুর‍্যান্ট ক্লিফোর্ড পার্কিন
জন্ম২০ ফেব্রুয়ারি, ১৮৭৩
পোর্ট এলিজাবেথ, কেপ প্রদেশ
মৃত্যু২০ মার্চ, ১৯৩৬
স্যাংস্টার্স ফার্ম, আলবেনি, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
সম্পর্কলিওনার্ড পার্কিন (ভ্রাতা), ডুর‍্যান্ট পার্কিন (পুত্র)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ২১)
১৯ মার্চ ১৮৯২ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১২
রানের সংখ্যা ৩৩৪
ব্যাটিং গড় ৩.০০ ১৫.১৮
১০০/৫০ ০/০ ০/১
সর্বোচ্চ রান ৬৩*
বল করেছে ১৩০ ২০৮৯
উইকেট ৪৮
বোলিং গড় ২৭.৩৩ ২০.২৯
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/৮২ ৬/২৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ৮/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ডুর‍্যান্ট ক্লিফোর্ড দান্তে পার্কিন (ইংরেজি: Dante Parkin; জন্ম: ২০ ফেব্রুয়ারি, ১৮৭৩ - মৃত্যু: ২০ মার্চ, ১৯৩৬) কেপ প্রদেশের পোর্ট এলিজাবেথ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৯২ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১][২][৩]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ইস্টার্ন প্রভিন্স, ট্রান্সভাল ও গ্রিকুয়াল্যান্ড ওয়েস্ট দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি মিডিয়াম বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন দান্তে পার্কিন

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৮৮৯-৯০ মৌসুম থেকে ১৯০২-০৩ মৌসুম পর্যন্ত দান্তে পার্কিনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। মিডিয়াম-পেস বোলিং করতেন দান্তে পার্কিন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন দান্তে পার্কিন। ১৯ মার্চ, ১৮৯২ তারিখে কেপ টাউনে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। এরপর আর তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

১৮৯১-৯২ মৌসুমে ওয়াল্টার রিডের অধিনায়কত্বে ইংল্যান্ড দল দক্ষিণ আফ্রিকা গমনে আসে। কেপ টাউন টেস্টে অংশ নেন। ১৮৯৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সাথে ইংল্যান্ড গমন করেন। তবে, টার্ফ পিচে বোলিং করতে তাকে যথেচ্ছা বেগ পেতে হয়।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত ছিলেন। তার সন্তান ডুরান্ট পার্কিন ট্রান্সভালের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ২০ মার্চ, ১৯৩৬ তারিখে ৬৩ বছর বয়সে আলবেনির স্যাংস্টার্স ফার্ম এলাকায় দান্তে পার্কিনের দেহাবসান ঘটে। তার জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা লিওনার্ড পার্কিন ইস্টার্ন প্রভিন্সের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "South Africa – Players by Test cap"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  2. "South Africa – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  3. "South Africa – Test Bowling Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]