দর্শনা জাভেরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দর্শনা জাভেরী
জন্ম১৯৪০ (বয়স ৭৯–৮০)

দর্শনা জাভেরি (জন্ম ১৯৪০), চার জাভেরী বোনদের মধ্যে সর্ব কনিষ্ঠ, যাঁরা ছিলেন শীর্ষস্থানীয় মণিপুরী নৃত্যের প্রচারক। মণিপুরী হলো একটি ভারতীয় ধ্রুপদী নাচের রূপ[১] তিনি গুরু বিপিন সিংয়ের শিষ্য এবং ১৯৫৮ সালে তাঁর বোনদের সাথে মঞ্চে নৃত্য প্রদর্শন শুরু করেছিলেন। [২] তিনি ১৯৭২ সালে মণিপুরী নর্তনালয় প্রতিষ্ঠা করেন, যা ভারতে মণিপুরী নৃত্যকে জনপ্রিয় করে তুলেছে এবং বর্তমানে তাঁর নেতৃত্বে মুম্বাই, কলকাতা এবং ইম্ফলে এর কেন্দ্র রয়েছে। [৩][৪]

প্রাথমিক জীবন এবং প্রশিক্ষণ[সম্পাদনা]

জাভেরী এক গুজরাটি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং মুম্বাইয়ে বেড়ে উঠেছিলেন। ছয় বছর বয়সে, তিনি, তাঁর বড় বোন নয়না এবং রঞ্জনাকে তাঁদের বাড়িতে গুরু বিপিন সিংহের কাছ থেকে মণিপুরী নৃত্য শিখতে দেখেন। শীঘ্রই, তিনিও তাঁর বোন সুবর্ণাকে নিয়ে ওঁদের সাথে নাচ শিখতে শুরু করেছিলেন। [১][৫] পরে তিনি সূত্রধারী ক্ষেত্রিতোম্বী দেবীর কাছে রসলীলা নাচ, গুরু মেইতেই তোম্বা সিংয়ের কাছ থেকে নট পাং এবং কুমার মাইবি থেকে ঐতিহ্যগত মাইবি জাগোই নাচ শিখেছিলেন।

পেশা[সম্পাদনা]

১৯৫০ এর দশকে, জাভেরী বোনেরা - নয়না, রঞ্জনা, সুবর্ণা এবং দর্শনা সারা ভারত এবং বিদেশে একসাথে নৃত্য প্রদর্শন করা শুরু করেন। ১৯৫৬ সালে ইম্ফলের রাজকীয় প্রাসাদের ভিতরে গোবিন্দজি মন্দিরে তাঁদের প্রথম অ-মণিপুরী নৃত্য পরিবেশিত হয়েছিল। অবশেষে, বোনেরা ১৯৭৭ সালে মুম্বাই, কলকাতা এবং ইম্ফলে তাঁদের গুরু কলাবতী দেবীর সাথে মণিপুরী নর্তনালয় প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এবং [১][৬] এর পর তাঁদের নাম মণিপুরী নৃত্যের সাথে সমার্থক হয়ে ওঠে। [৭] কয়েক বছর ধরে, দর্শনা নৃত্যের বিষয়ে বেশ কয়েকটি বই এবং নিবন্ধ প্রকাশ করেছেন এবং তাঁর গুরুর জীবদ্দশায় তাঁর গুরুকে শিক্ষকতা ও গবেষণায় সহায়তা করেছিলেন। এর পাশাপাশি, নিজে দায়িত্ব নেওয়ার আগে পর্যন্ত, তিনি নৃত্য পরিচালনাতেও তাঁকে সহায়তা করেছিলেন। [৮]

২০০৮ সালে প্রখ্যাত নৃত্য সমালোচক সুনীল কোঠারি একটি নিবন্ধে উল্লেখ করেন, তাঁরা (জাভেরী বোনেরা) "শহরে মণিপুরী নৃত্যের মন্দিরের ঐতিহ্য আনার জন্য দায়ী"। নিবন্ধটিতে আরও উল্লেখ করা হয় যে, নয়না দুই দশক আগে মারা গিয়েছেন এবং সুবর্ণা সুস্থ নন। রঞ্জনা ও দর্শনা তাঁদের দল নিয়ে নৃত্য পরিবেশন অব্যাহত রেখেছেন এবং মণিপুরী নৃত্য শেখানো চালিয়ে যাচ্ছেন। [৯][১০]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

দর্শনা জাভেরী ১৯৯৬ সালে ভারতের নৃত্য, সঙ্গীত ও নাটকের জাতীয় আকাদেমি, সঙ্গীত নাটক একাডেমী কর্তৃক সঙ্গীত নাটক আকাদেমি পুরস্কার পেয়েছেন। [১১] ২০০২ সালে তিনি পদ্মশ্রী পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছেন। [১২] তিনি ২০১৮ সালে কালিদাস সম্মান পেয়েছেন।

মন্তব্য[সম্পাদনা]

  1. Ajith Kumar, P.K. (২ মার্চ ২০০৭)। "Dancer's mission"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০১০ 
  2. "Subtle expressions: Darshana Jhaveri enthralled the audience with her Manipuri dance recital."The Hindu। ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১০ 
  3. "Illuminating show on dance choreography: It was a happy confluence of teachers and disciples as Sri Shanmukhananda Sabha, Mumbai, celebrated its Golden Jubilee."The Hindu। ২১ নভেম্বর ২০০৩। ১২ এপ্রিল ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১০ 
  4. Doshi, p. 43
  5. "Learn a traditional art form: Darshana Jhaveri"। The Times of India। ২৯ জানু ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১০ 
  6. Singha, p. 177
  7. "Sisters in sync"। India Today। ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১০ 
  8. Darshana Jhaveri
  9. "DANCING QUEENS"। India Today। ১৬ জানুয়ারি ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১০ 
  10. "Dance Listings: DOWNTOWN DANCE FESTIVAL"। New York Times। ২৪ আগস্ট ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১০ 
  11. Dance Manipuri awardees ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে Sangeet Natak Akademi website
  12. "Padma Awards" (PDF)। Ministry of Home Affairs, Government of India। ২০১৫। ১৫ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৫ 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Singha, Rina; Reginald Massey (১৯৬৭)। Indian dances: their history and growth। Braziller। 
  • Doshi, Saryu (১৯৮৯)। Dances of Manipur: the classical tradition। Marg Publications। আইএসবিএন 81-85026-09-2 

বাহ্যিক লিঙ্কগুলি[সম্পাদনা]