ত্রৈধ বিন্দু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
তাপমাত্রা ও চাপের পরিবর্তনের প্রভাবে পদার্থের অবস্থা ও দশা পরিবর্তনের রেখাচিত্র। ভাঙ্গা রেখাগুলি দিয়ে পানির অস্বাভাবিক আচরণ প্রদর্শিত হচ্ছে।

যে তাপমাত্রাচাপে কোনও পদার্থ একইসাথে বাষ্পীয়, তরল এবং কঠিন অবস্থায় বিরাজ করতে পারে তাকে ওই বস্তুর ত্রৈধ বিন্দু বলে। যেমন ৪.৫৮ mmhg চাপে এবং ২৭৩.১৬ K তাপমাত্রায় বিশুদ্ধ বরফ, বিশুদ্ধ পানি এবং সম্পৃক্ত জলীয় বাষ্প একই তাপীয় সাম্যাবস্থায় থাকতে পারে।ঐ চাপ ও তাপমাত্রাকে পানির ত্রৈধ বিন্দু বলে। পানির ত্রৈধ বিন্দু হলো ২৭৩.১৬ কেলভিন তাপমাত্রা (০.০১o সেন্টিগ্রেড) এবং ৬১১.২ প্যাসকেল চাপ। এই তাপমাএায় পানির তিন অবস্থা বিরাজ করে। তাপমাত্রার যে কোনো স্কেল তৈরি করতে হলে দুটো নির্দিষ্ট তাপমাত্রা (বা স্থিরাঙ্ক) দরকার। কেলভিন স্কেলে একটি হচ্ছে পরম শূন্য। অন্যটি হচ্ছে পানির ত্রৈধ বিন্দু বা Triple Point। এই তাপমাত্রায় একটি নির্দিষ্ট চাপে(০.০০৬০৩৭৩ atm) বরফ, পানি এবং জলীয় বাষ্প এক সাথে থাকতে পারে বলে তাপমাত্রাকে অনেক বেশি সূক্ষ্মভাবে নির্দিষ্ট করা যায়।[১] উদাহরণস্বরূপ, পারদের ট্রিপল বিন্দু −৩৮.৮ ° সেন্টিগ্ৰেড (−৩৭.৮ ° ফারেনহাইট) তাপমাত্রায় এবং ০.১৬৫ m Pa চাপে ঘটে ।

লর্ড কেলভিনের ভাই জেমস থমসন ১৮৭৩ সালে "ত্রৈধ বিন্দু" পরিভাষাটি তৈরি করেছিলেন।[২] এছাড়া এটি ত্রিদশা বিন্দু নামেও পরিচিত।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. নবম-দশম শ্রেণি। পদার্থবিজ্ঞান। ২০১৭ সংস্করণ। জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড। পৃষ্ঠা ১৬৫। 
  2. James Thomson (1873) "A quantitative investigation of certain relations between the gaseous, the liquid, and the solid states of water-substance", Proceedings of the Royal Society, 22 : 27–36. From a footnote on page 28: " … the three curves would meet or cross each other in one point, which I have called the triple point".