তোকমা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

তোকমা
Hyptis suaveolens
Hyptis suaveolens (Vilayti Tulsi) in Hyderabad, AP W IMG 0117.jpg
তোকমা গাছ ও ফুল
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Plantae
(শ্রেণীবিহীন): Angiosperms
(শ্রেণীবিহীন): Eudicots
(শ্রেণীবিহীন): Asterids
বর্গ: Lamiales
পরিবার: Lamiaceae
গণ: Hyptis
Jacq.
প্রজাতি: H. suaveolens
দ্বিপদী নাম
Hyptis suaveolens
(L.) Poit. 1806
তোকমা থেকে প্রাপ্ত তেল

তোকমা (ইংরেজি: pignut বা chan,) (বৈজ্ঞানিক নাম: Hyptis suaveolens) এক প্রকার গুল্ম জাতীয় সপুষ্পক উদ্ভিদ। একে 'বিলাতি তুলসি', 'গাঞ্জা তুলসি' ইত্যাদি নামেও ডাকা হয়। এই প্রজাতি Lamiaceae পরিবারভুক্ত।[১] ইংরেজিতে একে American Mint, Vilayti Tulsi, pignut, stinking Roger, wild spikenard, Darp Tulas বা chan বলা হয়। এর আদি নিবাস মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার ক্রান্তীয় অঞ্চল। এটি সাধারণতঃ ১–১.৫ মি (৩.৩–৪.৯ ফু) লম্বা হয়; কখনো কখনো এটি ৩ মি (৯.৮ ফু) পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। এর কান্ড রোমশ এবং প্রস্থচ্ছেদ বর্গাকার। এর পাতা দ্বি-পার্শ্বীয়, ২–১০ সেমি (০.৭৯–৩.৯৪ ইঞ্চি) লম্বা, কিনারা অগভীর খাঁজকাটা। পাতা থেঁতলানো হলে উগ্র গন্ধ বের হয়। এর ফুল বেগুনি বা গোলাপি, গুচ্ছফুল।[২]

ব্যবহার[সম্পাদনা]

এটি কীটনাশক হিসেবে ব্যবহার করা যায়।[৩][৪]

তোকমার বীজ পানিতে ভিজিয়ে রেখে শরবত তৈরি করে খাওয়া হয়। এতে লেবুর রস ও চিনি মিশিয়ে স্বাদ বাড়ানো যেতে পারে। ভেষজ চিকিৎসায় এটি ডায়ারিয়া রোগ নিরাময়ে ব্যবহৃত হয়। তোকমা রক্ত বর্ধক, রক্ত পরিষ্কার ও শরীরের শক্তি বর্ধকের কাজ করে।

তোকমা গাছের বিভিন্ন অংশে beta-caryophyllenes, cineol, terpenol, alpha-bergamotene, sabinene, menthol, l-sabinene, d-limonene and azulenic sesquiterpenes রাসানিক উপাদানগুলো পাওয়া যায়। তোকমা গাছ পেটের ব্যাথায়, কার্মিনেটিভ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এর পাতার রস ক্যান্সার, টিউমার, রিউমেটিসমে ব্যবহৃত হয়।

উপকারিতা[সম্পাদনা]

  • তোকমা উদ্দীপক, এসিডিটি নিরাময়ক ও তৃষ্ণা নিবারক।
  • ঘর্মগ্রন্থিকে সচল রাখে।
  • জ্বর কমায়, ঠাণ্ডাজনিত শ্লেষ্মা দূর করে।
  • বিভিন্ন রকম চর্মরোগ দূর করতে সাহায্য করে।
  • তোকমার পাতা ক্যান্সার ও টিউমার প্রতিরোধক।
  • বাতের রোগীদের জন্য এর পাতার রস বিশেষ উপযোগী।
  • লিভারকে ভালো রাখে।
  • পেটে ব্যথা, কোষ্ঠকাঠিন্যসহ পাকস্থলীর যেকোনো সমস্যা দূর করে।
  • পাইলসের উপশমকারী।
  • তোকমার বীজের রস মূত্রনালির সমস্যা রোধ করে।
  • তোকমার তেলে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান রয়েছে।
  • তোকমা পানিতে ভিজিয়ে ফোঁড়ার মুখের চার পার্শ্বে লাগিয়ে দিলে শীঘ্রিই ফোঁড়া পেকে যায়।

তোকমার নানান ছবি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]