তৃষা ছেত্তি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তৃষা ছেত্তি
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামতৃষা ছেত্তি
জন্ম (1988-06-26) ২৬ জুন ১৯৮৮ (বয়স ৩০)
ডারবান, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৪৪)
২৮ জুলাই ২০০৭ বনাম নেদারল্যান্ডস
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৪৪)
২০ জানুয়ারি ২০০৭ বনাম পাকিস্তান
ওডিআই শার্ট নং
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ )
১০ আগস্ট ২০০৭ বনাম নিউজিল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
কোয়াজুলু-নাটাল মহিলা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই টি২০আই
ম্যাচ সংখ্যা ৭০ ৫৭
রানের সংখ্যা ৯৩ ১৪৯৫ ৮৭৯
ব্যাটিং গড় ৩১.০০ ২৮.৭৫ ১৭.৯৩
১০০/৫০ ০/১ ০/৮ ০/৩
সর্বোচ্চ রান ৫৬ ৭৬* ৫৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/৩ ৭৯/৩২ ২৬/২১
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো, ২৭ মার্চ ২০১৫

তৃষা ছেত্তি (ইংরেজি: Trisha Chetty; জন্ম: ২৬ জুন, ১৯৮৮) ডারবানে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা দক্ষিণ আফ্রিকান প্রমিলা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ঘরোয়া ক্রিকেটে কোয়াজুলু-নাটালের প্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। এছাড়াও, ডানহাতে ব্যাটিংয়ে সবিশেষ কৃতিত্বের পরিচয় দিচ্ছেন তিনি। ২০০৯ ও ২০১৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। এছাড়াও, ২০০৯ সালের আইসিসি মহিলা বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায়ও অংশ নিয়েছেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

২০০৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত দুইটি টেস্ট ও শতাধিক সীমিত ওভারের খেলায় দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে অংশগ্রহণ করেছেন তিনি। শুরুতে সাত বা আট নম্বরে ব্যাটিং করতে নামতেন। পরবর্তীকালে তার ব্যাটিং অর্ডারে পরিবর্তন আনা হয় ও ২০০৮ সালের মাঝামাঝি সময় থেকে ব্যাটিং উদ্বোধনে নামছেন।[১] ২০ জানুয়ারি, ২০০৭ তারিখে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওডিআই অভিষেক ঘটে তার। ২৮ জুলাই, ২০০৭ তারিখে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক হয়। একই বছরের ১০ আগস্ট তারিখে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি২০আইয়ে অভিষেক ঘটে তার।

ক্রিকেট বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফেব্রুয়ারি, ২০০৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত মহিলাদের ক্রিকেট বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা পাকিস্তানকে পরাজিত করে ২০০৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পায়। ক্রি-জেল্ডা ব্রিটসের অধিনায়কত্বে স্বাগতিক দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি।[২] এরপর ২০০৯ সালের বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের খেলায় শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৮ রান তুলেন। ঐ খেলায় তার দল ৭৯ রানে পরাজয়বরণ করে।[৩] স্থান নির্ধারণী খেলায় তিনি অপরাজিত ছিলেন ৪১ রান করে।[৪] ঐ খেলায় শ্রীলঙ্কাকে সহজেই পরাজিত করে ৯ উইকেটে তার দল। ২০১৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপেও দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৫ রান তুলেন। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে দক্ষিণ আফ্রিকা ২ উইকেটে পরাজিত হয় ও ৬ষ্ঠ স্থান দখল করে।

২০১৭ মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে অংশ নেন।[৫] চূড়ান্ত খেলায় তারা ভারতের কাছে ১ উইকেটে পরাজিত হলেও[৬] সেমি-ফাইনালে অংশগ্রহণকারী অপর দুই দলের সাথে শ্রীলঙ্কাপাকিস্তান ২০১৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।[৭]

শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত ২০১২ সালের আইসিসি মহিলা বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় মিগনন দু প্রিজের অধিনায়কত্বে দলের অন্যতম সদস্যরূপে মনোনীত হন।[৮] গ্রুপ-পর্বে শ্রীলঙ্কাকে ৬ উইকেটে হারায় তার দল। খেলায় তিনি ৩৩ রান তুলে ম্যান অব দ্য ম্যাচ পুরস্কার লাভ করেন। কিন্তু গ্রুপ-পর্বের অন্যান্য খেলায় পরাজিত হলে তাদেরকে বিদায় নিতে হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Player Profile: Trisha Chetty"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪ 
  2. South Africa Women Squad / Players – ESPNcricinfo. Retrieved 19 October 2015.
  3. "6th Match, Group A: Australia Women v South Africa Women at Newcastle, Mar 10, 2009". Cricinfo. Archived from the original on 26 March 2009. Retrieved 23 March 2009.
  4. [ "7th place play-off: South Africa Women v Sri Lanka Women at Sydney, Mar 14, 2009". Cricinfo. Retrieved 13 June 2009.]
  5. "South Africa Women Women Squad: Players"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ 
  6. "India pulls off thrilling last-ball win over South Africa to win ICC Women's World Cup Qualifier 2017"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  7. "India, South Africa ready for final of ICC Women's World Cup Qualifier 2017"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  8. "South Africa Women's Squad". ESPN Cricinfo. 9 April 2014.

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]