তুর্কমেনী রন্ধনশৈলী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

তুর্কমেনী রন্ধনশৈলী হচ্ছে তুর্কমেনিস্তানের রান্না যা মধ্য এশিয়ার অন্যান্য দেশের অনুরূপ। প্লভ (পিলাফ) হচ্ছে প্রধান খাবার, দৈনন্দিন খাদ্য, যা উৎসব উদযাপনে পরিবেশিত হয়। এটি একটি ওলন্দাজ চুলার অনুরূপ একটি বড় পেটা লোহার কড়াইয়ে মাটন, গাজর এবং ভাজা চাল দিয়ে প্রস্তুত করা হয়। ম্যান্টি তৈরীতে ব্যবহৃত হয় ছাগলের মাংস, পেঁয়াজ বা কুমড়া দিয়ে। শুরপা হচ্ছে মাংস এবং শাকসব্জি দিয়ে তৈরী স্যুপ। রেস্টুরেন্ট এবং বাজারে বিভিন্ন ধরণের পুর ভরা খাবার পাওয়া যায়, যেমন সোমসা, গুটাপ এবং ইশলীক্লি। এগুলো ভ্রমণকারী এবং ট্যাক্সি ড্রাইভারদের কাছে জনপ্রিয়। কারণ এগুলো দ্রুত চলার পথে দ্রুতই খাওয়া যায়। প্রায়ই রাস্তাঘাট ও স্ট্যাণ্ডে বিক্রি হয়। তুর্কমেনি রান্না সাধারণত মশলা বা মশলাজাতীয় দ্রব্য ব্যবহার করে না এবং সুগন্ধি জন্য তুলাবীজের তেল অধিক পরিমাণে ব্যবহৃত হয়।

শাশলীক, স্ক্রু আকারের মাটন, শুয়োরের মাংস, মুরগি বা কখনও কখনও মাছ কাঠকয়লার আগুনে গ্রিল করা হয় এবং কাঁচা কাটা পেঁয়াজ এবং একটি বিশেষ সিরকা ভিত্তিক সস দিয়ে সাজিয়ে, রেস্টুরেন্টে পরিবেশিত হয় এবং প্রায়ই পথপার্শ্বে বিক্রি হয়। তুর্কমেনিস্তার রেস্টুরেন্ট প্রধানত রাশিয়ান খাবার যেমন পেলম্যানি, গ্রচস্কা, গলুবসি এবং মেয়েরাইজ-ভিত্তিক স্যালাদ পরিবেশন করে। কিছু অঞ্চলে ল্যাগম্যান নামক উইগুর নুডলস পাওয়া যায়।

খাদ্যাভ্যাস[সম্পাদনা]

তরমুজ[সম্পাদনা]

তুর্কমেনিস্তান সম্ভবত তার তরমুজের জন্য বেশি বিখ্যাত। বিশেষত সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন যেখানে এরা একসময়ে প্রধান সরবরাহকারী ছিল। যদিও বর্তমানে খুব সামান্য তরমুজ রপ্তানি করা হয়। তরমুজ তুর্কমেনিস্তানে জাতীয় গর্ব এবং সেখানে তরমুজ দিবস পালন করা হয়। তরমুজ দিবস সরকারী ছুটির দিন। তুর্কী সূত্র দাবি করে যে দেশটিতে ৪০০ টি জাতের তরমুজ উৎপাদন করে।

রুটি[সম্পাদনা]

খাবার প্রায় সবসময় নান রুটি থাকে, মধ্য এশিয়ার চ্যাপ্টা রুটি যা স্থানীয়ভাবে সোরেক নামে পরিচিত। তুর্কমেন রুটি অঞ্চলের অন্যান্য রুটি থেকে আলাদাভাবে প্রস্তুত করা হয়। প্রথাগত তামদৈর মাটির চুলায় পুরু, চাকতির মত গোল এই রুটি সেঁকা হয়। তুর্কমেন সংস্কৃতিতে রুটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। এখানে একটি রুটির উপরের অংশকে নিচে রাখা অভদ্রতা বলে গণ্য হয়। রুটি এবং এর প্রস্তুতি নিয়ে এখানে একাধিক কুসংস্কার প্রচলিত আছে। রুটির মধ্যে মাংস ভরে সেঁকা হয় যা এটলি সোরেক বা মাংস রুটি নামে পরিচিত। ইয়াগলি সোরেক হচ্ছে ঘি দিয়ে তৈরী রুটি যার বাংলা অর্থ হচ্ছে তেলওয়ালা রুটি বা তেলতেলা রুটি।

পানীয়[সম্পাদনা]

মধ্য এশিয়ার বাকি দেশের মত সবুজ চা এখানকারও প্রাথমিক পানীয়, যা সব সময় পান করা হয়। উপভোগ করে। তুর্কমেনিয়ার ভাষাতে "চাই" (চা) খাবার খাওয়া অথবা বেড়াতে গিয়ে বসাকে বোঝায়। দাশোগুজ অঞ্চলে, মাঝে মাঝে কাজাখ শৈলীতে দুধ চা তৈরী করা হয়।

সকালের নাস্তায় কেফিরের মত ঘন দইয়ের পানীয় গেটিক পরিবেশন করা হয়। কখনো কখনো এটা বোরেক বা ম্যান্টিতে প্রথাগত টক দইয়ের বদলে ব্যবহার করা হয়। তবে চাল নামক উটের দুধ থেকে তৈরী পানীয় সুপরিচিত। এটা সাদা পানীয়, টক স্বাদের এবং মধ্য এশিয়ায় জনপ্রিয় বিশেষ করে তুর্কমেনিস্তানে। নির্দিষ্ট প্রস্তুত প্রণালীর কারণে এটা শুধুমাত্র নির্দিষ্ট অঞ্চলে প্রস্তুত হয়। বিদেশীদের খাওয়ানোর জন্য চাল রপ্তানী খুবই কষ্টসাধ্য ব্যাপার। এটি কিরগিজ পানীয় শোরোর অনুরূপ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]