তুমেন নদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তুমেন নদী
Location Tumen-River.png
তুমেন নদীর অবস্থান
স্থানীয় নাম图们江
অন্য নামদুমান নদী (হাঙ্গুল: 두만강; হানজা: 豆滿江) বা তুমান নদী
দেশউত্তর কোরিয়া, চীন, রাশিয়া
প্রদেশ (উ. কোরিয়া)উত্তর হামগিয়ং, রিয়াংগাং
প্রদেশ (চীন)চিলিন
Federal subject (Russia)Primorsky Krai
অববাহিকার বৈশিষ্ট্য
মূল উৎসপাইকতু পর্বত
মোহনাSea of Japan (East Sea)
জাপান সাগর (পূর্ব সমুদ্র), রাশিয়া, উত্তর কোরিয়া
০ মি (০ ফু)
৪২°১৭′৩৪″ উত্তর ১৩০°৪১′৫৬″ পূর্ব / ৪২.২৯২৭৮° উত্তর ১৩০.৬৯৮৮৯° পূর্ব / 42.29278; 130.69889স্থানাঙ্ক: ৪২°১৭′৩৪″ উত্তর ১৩০°৪১′৫৬″ পূর্ব / ৪২.২৯২৭৮° উত্তর ১৩০.৬৯৮৮৯° পূর্ব / 42.29278; 130.69889
অববাহিকার আকার৩৩,৮০০ কিমি (১৩,১০০ মা)
প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য
দৈর্ঘ্য৫২১ কিমি (৩২৪ মা)
তুমেন নদী
চীনা নাম
ঐতিহ্যবাহী চীনা 圖們江
সরলীকৃত চীনা 图们江
কোরীয় নাম
চোসেঙ্গুল
হাঞ্ছা滿
মঙ্গোলীয় নাম
মঙ্গোলীয়Түмэн гол
মাঞ্চু নাম
মাঞ্চু লিপি ᡨᡠᠮᡝᠨ ᡠᠯᠠ
রোমানীকরণTumen ula
রুশ নাম
রুশТуманная река
রোমানীকরণ'Tumannaya Reka'

তুমেন নদী, এছাড়াও তুমান নদী বা দুমান নদী কোরীয় উচ্চারণ: [tumanɡaŋ] হিসাবে কোরীয় উচ্চারণ: [tumanɡaŋ] , [ক] একটি ৫২১-কিলোমিটার (৩২৪ মা) দীর্ঘ নদী যা চীন, উত্তর কোরিয়া এবং রাশিয়ার সীমান্ত হিসাবে কাজ করে। নদীটি পেকতু পাহাড়ের ঢাল বেয়ে প্রবাহিত হয়ে জাপান সাগরে পতিত হচ্ছে। নদীর পানি নিষ্কাশন অববাহিকা ৩৩,৮০০  কিমি 2 (১৩,০৫০ বর্গ মাইল) এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। [২]

এই নদীটি উত্তর-পূর্ব এশিয়ায় প্রবাহিত হয়, চীন–উত্তর কোরিয়া সীমান্তের উপরের প্রান্তে এবং উত্তর কোরিয়া এবং জাপান সাগরে পতিত হওয়ার আগে রাশিয়ার মধ্য দিয়ে শেষ ১৭ কিলোমিটার (১১ মা) প্রবাহিত হয়েছে। এই নদীটি উত্তর-পূর্ব চীনের চিলিন প্রদেশের দক্ষিণ সীমানা এবং উত্তর কোরিয়ার উত্তর হামগিয়ং ও রিয়াংগাং প্রদেশের উত্তর সীমান্তের বেশিরভাগ অংশ হিসেবে কাজ করে। চীন-উত্তর কোরিয়ার সীমান্তে বাইকদু পর্বতের পাশাপাশি উত্তর কোরিয়া এবং চীন সীমান্তের পশ্চিম অংশ গঠনকারী আমনোক নদীর (জালু নদী নামেও পরিচিত) হচ্ছে এই নদীর উত্স।[৩]

নদীর নামটি মঙ্গোলিয়ান শব্দ তেমান থেকে এসেছে, যার অর্থ "দশ হাজার" বা এক মাইরিয়াদ (অগণিত)। এই নদীটি নিকটবর্তী কোরিয়া এবং চীনের কারখানাগুলোর বর্জ্যের ফলে খুব দ্বারা খারাপভাবে দূষিত হচ্ছে। তবে এটি এখনও এই অঞ্চলে্র একটি বড় পর্যটকদের আকর্ষণের স্থান। চিলিন প্রদেশের (জিলিন) তুয়ানে, নদীর পাশে একটি রেস্তোঁরা রয়েছে যেখানেপর্যটকরা নদীর তীরে উত্তর কোরিয়ায় দর্শন করতে পারেন। [৩] রুশ ভাষায় নদীটির নাম তুমান্নায়া, যার আক্ষরিক অর্থ কুয়াশাচ্ছন্ন

১৯৩৮ সালে জাপানিরা ওজনজং (হুনচুন) এবং কোয়ানহে গ্রামের মধ্যে যেখানে কোয়ান নদীর তুমেন নদীর সাথে মিলিত হয় সেখানে তুমেন নদীর সেতুটি তৈরি করে। নদীর তীরে গুরুত্বপূর্ণ শহর ও শহরগুলি হল উত্তর কোরিয়ার হোরিওং এবং অনসং, চীনের চিলিন প্রদেশের টুয়েন এবং নানপিং (南 坪镇, কাউন্টি-স্তরের শহর হেলং)।

১৯৯৫ সালে, গণপ্রজাতন্ত্রী চীন, মঙ্গোলিয়া, রাশিয়া, উত্তর কোরিয়া এবং দক্ষিণ কোরিয়া তুমেন নদীর অর্থনৈতিক উন্নয়ন অঞ্চল তৈরির জন্য তিনটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করে। [৪][৫][৬]

নোক্টুন্ডো[সম্পাদনা]

তুমেন নদীর মোহনায় অবস্থিত প্রাক্তন দ্বীপ (বর্তমানে কার্যকরভাবে একটি উপদ্বীপ) নোক্টুন্ডো নিয়ে রাশিয়া ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে সীমান্তের বিরোধ ছিল। [৭] কিং রাজবংশ ১৮৬০ সালের পিকিং চুক্তিতে প্রিমারস্কি মেরিটাইমস (পূর্ব টার্টারি) এর অংশ হিসাবে এই দ্বীপটিকে রাশিয়াকে দিয়ে দেয়। ১৯৯০ সালে প্রাক্তন সোভিয়েত ইউনিয়ন এবং উত্তর কোরিয়া একটি সীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষর করেছে যার ফলে সীমান্তটি নদীর তীরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে রাশিয়ার পাশের পূর্ব দ্বীপের অঞ্চল ছেড়ে দিয়েছিল। দক্ষিণ কোরিয়া এই চুক্তি অস্বীকার করে রাশিয়ার কাছে এই অঞ্চলটি কোরিয়ায় ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি করে। [৮]

অবৈধ সীমান্ত পার[সম্পাদনা]

উত্তর কোরিয়ার শরণার্থীরা বছরের পর বছর ধরে চীনা সীমান্ত পেরোতে তু্মেন নদী ব্যবহার করে যাচ্ছে। নব্বইয়ের দশকের দুর্ভিক্ষের সময় উত্তর কোরিয়া থেকে আসা বেশিরভাগ শরণার্থী তুমেন নদীর উপর দিয়ে গিয়েছিল এবং সাম্প্রতিক বেশিরভাগ শরণার্থীরাও এটি ব্যবহার করেছে। কারণ আরেকটি সীমান্তবর্তি নদী আমনোক নদীর চেয়ে তু্মেন নদী পার হওয়া অনেক সহজ। [৯]

এই নদীটিকে চীনে যাওয়ার পক্ষে সবচেয়ে পছন্দের পথ হিসাবে বিবেচনা করা হয় কারণ দ্রুতগতির, গভীর এবং প্রশস্ত আমনোক নদী যা দুটি দেশের সীমান্তের বেশিরভাগ অংশে প্রবাহিত হয় তার বিপরীতে, তুমেন অগভীর এবং সংকীর্ণ। [৩] কিছু কিছু অঞ্চলে পায়ে বা সংক্ষিপ্ত সাঁতার কেটেই নদীটি পার হওয়া যায়। শীতকালে কখনও কখনও নদীটী শুকিয়ে যায়। ফলে পায়ে হেঁটেই পার হওয়া যায়।[৯][১০]

তুমেন অতিক্রম করতে ইচ্ছুক ডিফেক্টররা প্রায়শই এর দূষক এবং বিপজ্জনক সীমান্ত টহল উপেক্ষা করে এবং কয়েক মাস বা বছর না পারলে পার হওয়ার নিখুঁত সুযোগের জন্য অপেক্ষা করে। নিউইয়র্ক টাইমসের একটি নিবন্ধ অনুসারে, "চীন-উত্তর কোরিয়ার সীমান্তের দীর্ঘ, জনশূন্য প্রান্তগুলি মোটেই টহল দেয় না"। [৩]

শরণার্থীরা খুব কমই রাশিয়ায় তু্মেন অতিক্রম করে। এর কারণ, রাশিয়ার নদীর সংক্ষিপ্ত প্রান্তটি চীনের প্রসারিতের চেয়ে অনেক বেশি ভাল টহল রয়েছে। [৩] তদুপরি, রাশিয়ায় জাতিগত কোরিয়ান সম্প্রদায় যে পরিমাণ কোরিয়ার জনসংখ্যার বেশি, তার বিপরীতে রাশিয়ার জাতিগত কোরিয়ান সম্প্রদায় যথেষ্ট পরিমাণ সমর্থন পাওয়ার তুলনায় অনেক কম হওয়ার কারণে এটি করার পুরষ্কারগুলি এত বেশি নয়।

সৈন্য এবং অন্যরা খাবার ও অর্থের সন্ধানে তু্মেনকেও অবৈধভাবে অতিক্রম করেছে। হামলার কারণে কিছু চীনা গ্রামবাসী সীমান্ত অঞ্চল ছেড়ে চলে গেছে। [৯]

এই অঞ্চলে সংঘাতের ইতিহাসের উদাহরণ (উদাহরণস্বরূপ খাসান হ্রদের যুদ্ধের সময়কার ঘটনাগুলি অন্তর্ভুক্ত) গায়ক কিম জেং-গুয়ের 'টিয়ারফুল তুমেন নদী (눈물 젖은 song)' গানটিতে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছিল, যা এই জাতীয় ট্র্যাজেডির দ্বারা বিচ্ছিন্ন হয়ে ওঠা পরিবারগুলিতে পরিণত হয়েছিল এবং কোরিয়ান যুদ্ধের সময় ত্রুটিযুক্ত দ্বারা। [১১] ২০১০ সালের নাটকীয় ফিচার-দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র, দুমান নদীতে তুমেন নদীর তীরবর্তী মানবিক সংকট নাটকীয় হয়েছিল। [১২]

টীকা[সম্পাদনা]

  1. In the 19th century, the river was also known to the West as the Mi Kiang.[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

উদ্ধৃতি[সম্পাদনা]

  1. EB (1878), p. 390.
  2. "DRAINAGE BASINS OF THE SEA OF OKHOTSK AND SEA OF JAPAN" (PDF)www.unece.org 
  3. Onishi, Norimitsu (২২ অক্টোবর ২০০৬)। "Tension, Desperation: The China-North Korean Border"The New York Times  Much of the information comes from the captions to the large illustrated map published with the newspaper article and available online with it.
  4. "Tumen River Area Development Program"। Network of East Asian Think-tanks (NEAT)। ২০০৯। ১৫ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  5. Kim, Myung-sung (১৪ জানুয়ারি ২০১৫)। 최고 싱크탱크(think tank)도 "두만강 지역 개발하자"Chosun News (Korean ভাষায়)। ১৫ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  6. "JPRI Working Paper No. 53"www.jpri.org 
  7. Головнин, В. И. (২০০৮)। "Прошлое как оружие (The past as a weapon)" (Russian ভাষায়) (35)। ৬ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  8. "The problem of the Noktundo island in the media in South Korea (Проблема острова Ноктундо в средствах массовой информации Южной Кореи)" (Russian ভাষায়)। ru.apircenter.org। ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৬-৩০ 
  9. Zhai, Keith & Kim, Sam (১৪ জানুয়ারি ২০১৫)। "North Koreans Walk Across Frozen River to Kill Chinese for Food"Bloomberg News। ১৫ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  10. Moon, Sunghui। "North Korea Tightens Security Before Major Military Parade"Radio Free Asia। জানুয়ারি ২৫, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। [...] adding that winter is the optimal time of year for North Koreans who wish to defect to cross the frozen Tumen River that separates the country from China, if security is not too heavy. 
  11. Kim, Seon-hee [a.k.a. Sonya] (২৪ মার্চ ২০১৮)। "VOD ~ 디지털 KBS" (Korean ভাষায়)। KBS। [Translation] I heard that the song consoled many of those who lost their families, or had to leave their hometowns under Japanese occupation and during the Korean war. It made me realise the power of music once again 
  12. Bardot, Nicolas (২০১০)। "La Rivière Tumen"Film de Culte (French ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জানুয়ারি ২০১৫ 

সূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]