তারাপদ রায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
তারাপদ রায়
তারাপদ রায়.jpg
জন্ম(১৯৩৬-১১-১৭)১৭ নভেম্বর ১৯৩৬
টাঙ্গাইল, ব্রিটিশ ভারত, এখন বাংলাদেশ
মৃত্যু২৫ আগস্ট ২০০৭(2007-08-25) (বয়স ৭০)
পেশালেখক
ভাষাবাংলা
জাতীয়তাভারতীয়
নাগরিকত্বভারতীয়

তারাপদ রায় (১৭ নভেম্বর, ১৯৩৬ - ২৫ আগস্ট, ২০০৭) বাংলার প্রসিদ্ধ কবি, ছোটগল্পকার ও প্রাবন্ধিক। বাংলা সাহিত্যে হালকা হাস্যরসের সাথে পরিমিত তিক্তরস মিশ্রণের পারঙ্গম স্রষ্টা তিনি।[১]

জন্ম ও শিক্ষা জীবন[সম্পাদনা]

তারাপদ রায়ের জন্ম ১৯৩৬ সালের নভেম্বর মাসের ১৭ তারিখে অবিভক্ত বাংলায় বর্তমান বাংলাদেশের টাঙ্গাইলে। সেখানকার বিন্দুবাসিনী হাই ইংলিশ স্কুল হতে ম্যাট্রিক পাশ করেন। ১৯৫১ খ্রিষ্টাব্দে কলকাতায় কলেজে পড়তে আসেন। মৌলানা আজাদ কলেজ থেকে পড়াশোনা করে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় হতে অর্থনীতিতে স্নাতক উপাধি লাভ করেন। ওই সময়েই কলকাতার কৃত্তিবাস পত্রিকাগোষ্ঠীর ঘনিষ্ঠ কবি হিসাবে পরিচিতির সাথে অজস্র গদ্য রচনাও লিখেছেন।[১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

কর্মজীবনের শুরুতে তিনি কিছুদিন উত্তর ২৪ পরগনার হাবড়ায় শিক্ষকতা করেন। তারপরে ইন্ডিয়ান অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিসে যোগ দেন।১৯৯৪ সালে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগের অধিকর্তার পদ থেকে অবসর নেন। সম্পাদনা করেছেন দুটি লিটল ম্যাগাজিন- 'পূর্ব মেঘ' ও 'কয়েকজন'।

সাহিত্য রচনা[সম্পাদনা]

বাল্য অবস্থা থেকেই কবিতা রচনা করে গেছেন তিনি। তার প্রথম কবিতার বই 'তোমার প্রতিমা' প্রকাশিত হয় ১৯৬০ সালে। তার প্রকাশিত কবিতা সহস্রাধিক। কবিতার পাশাপাশি লিখতেন রম্যরচনা। তাছাড়াও লিখেছেন অজস্র সঙ্গে গল্প, ছোট উপন্যাস ও শিশু সাহিত্য। তিনি রসসাহিত্যে ও শিশু সাহিত্যে বেশ গতিশীল ছিলেন। তার 'ডোডো-তাতাই' বিখ্যাত শিশু চরিত্র। বাংলা সাহিত্যে সার্থক রম্যরচয়িতাদের মধ্যে পাঠক পাঠিকাদের মধ্যে তিনি ভালো ভাবেই জনপ্রিয় ছিলেন। তিনি নক্ষত্র রায় এবং 'গ্রন্থকীট ছদ্মনামেও লিখতেন। সরকারি অতিথি হয়ে ঘুরেছেন ইংল্যান্ড, আমেরিকা সহ বহু দেশে। শতাধিক গ্রন্থের রচয়িতা তিনি।

উল্লেখযোগ্য রচনাসমূহ[সম্পাদনা]

  • ক খ গ ঘ (১৯৯৬),
  • কাণ্ডজ্ঞান,
  • বিদ্যাবুদ্ধি,
  • জ্ঞানগম্যি,
  • বুদ্ধিশুদ্ধি,
  • শোধবোধ (১৯৯৩),
  • জলভাত,
  • এবং গঙ্গারাম,
  • পটললাল,
  • সর্বাণী এবং,
  • বলা বাহুল্য (২০০০),
  • বালিশ,
  • কী খবর,
  • ধারদেনা,
  • ঘুষ,
  • রস ও রমণী,
  • শেষমেষ,
  • সরসী,
  • জলাঞ্জলি,
  • সন্দেহজনক,
  • বাঁচাবার,
  • স্ত্রী রত্ন,
  • মেলামেশা,
  • মারাত্মক,
  • ভদ্রলোক,
  • বানরেরা মানুষ হচ্ছে,
  • ডোডো তাতাই পালাকাহিনী,
  • ছাড়াবাড়ী পোড়াবাড়ী,
  • টমটমপুরের গল্প,
  • দুই মাতালের গল্প ও অন্যান্য,
  • ভাগাভাগি (১৯৯৭,
  • সর্বনাশ (২০০১)
  • রম্যরচনা ৩৬৫

কবিতার বই[সম্পাদনা]

  • তোমার প্রতিমা (১৯৬০),
  • ছিলাম ভালবাসার নীল পতাকাতে স্বাধীন (১৯৬৭),
  • কোথায় যাচ্ছেন তারাপদবাবু (১৯৭০),
  • নীল দিগন্তে এখন ম্যাজিক (১৯৭৪),
  • পাতা ও পাখিদের আলোচনা (১৯৭৫),
  • ভালোবাসার কবিতা (১৯৭৭),
  • দারিদ্র্যরেখা (১৯৮৬),
  • দুর্ভিক্ষের কবিতা,
  • জলের মত কবিতা (১৯৯২),
  • দিন আপনি দিন খাই (১৯৯৪),
  • টিউবশিশুর বাবা (১৯৯৫,
  • ভালো আছো গরীব মানুষ (২০০১),
  • কবি ও পরশিনী (২০০২)

সম্মাননা[সম্পাদনা]

তারাপদ রায় শিরোমণি পুরস্কার ও কথা পুরস্কার (১৯৯৫) এ ভূষিত হয়েছেন।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

তিনি ২০০৭ সালের আগস্ট মাসের ২৫ তারিখে প্রয়াত হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, দ্বিতীয় খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, জানুয়ারি ২০১৯ পৃষ্ঠা ১৫৪, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-২৯২-৬

লেখকের প্রকাশিত বইসমূহ হতে লেখকের পরিচিতি সহ অন্যান্য তথ্য প্রকাশক - আনন্দ পাবলিশার্স প্রাইভেট লিমিটেড কলকাতা হতে সংগৃহীত