তাকানুকুই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তাকানাকুই
তাকানাকুই.jpeg
তাকানাকুই উৎসবে দুই প্রতিযোগী
পালনকারীকুম্বিভিল্কাস প্রদেশের অধিবাসীরা
ধরনআদিবাসী ঐতিহ্য
পালননাচ, গান, মারামারি
তারিখ২৫ ডিসেম্বর

তাকানাকুই এক ধরনের মারামারির উৎসব যার জন্ম পেরুর কুমবিভিলকাস প্রদেশে[১]কুয়েচুয়া ভাষায় তাকানাকুই শব্দটির আক্ষরিক অর্থ একে অন্যকে আঘাত করা।[২] উৎসবে থাকে নাচ এবং মারামারি যা দিয়ে পুরাতন বিরোধ মিমাংসা করা হয় কিংবা শুধুমাত্র বীরত্ব প্রকাশের জন্য করা হয়।[৩][৪]

নিয়মাবলী[সম্পাদনা]

প্রতিবছর ২৫ ডিসেম্বর ভোরবেলা এই মারামারির উৎসব আয়োজিত হয়। এই উপলক্ষ্যে কয়েকদিন ধরে মদ্যপান আর নাচগানে শহরে চলে আসে উৎসবের আমেজ। ষোল শতকের তাকি উনকুই নামক প্রতিরোধ আন্দোলনকে সম্মান করে গাওয়া হয় ওয়েইলিয়া নামের বিশেষ ঘরানার সঙ্গীত। হাজার হাজার কণ্ঠে মুখরিত হয় আন্দিজের প্রাচীন গিরিকন্দর। গানগুলোর বিশেষত্ব হচ্ছে প্রতিরোধ, সাহস আর স্বাধীনতা। দখলদার স্প্যানিশদের শাসনের বিরুদ্ধে লড়েছে এসব পাহাড়িদের পূর্বপুরুষেরা। মিছিল করে সবাই জমা হয় কোনো ফাঁকা জায়গায়, পুরুষেরা উচ্চকণ্ঠে গান গায় বিশেষ এক সুরে। প্রতিপক্ষ এসে দেখা করে মাঝের ফাঁকা জায়গায়। চুল টানা আর মাটিতে পড়ে গেলে মারামারি চলবে না। এছাড়া লাথি, ঘুষি সবই বৈধ। অস্ত্র নিষিদ্ধ। রেফারী মারামারি পরিচালনা করেন। কেউ যদি রেফারীর সিদ্ধান্ত পছন্দ না করে, সে আপিল করতে পারে। আপিলে জিতলে আরেক দফা লড়াই চলে। নারী-পুরুষ তো বটেই; বাচ্চা, এমনকি বুড়ো-বুড়িও এই মারামারিতে অংশ নিতে পারে। তবে বিপরীত লিঙ্গের মধ্যে লড়াই করা নিষেধ।

পোষাক[সম্পাদনা]

তাকানাকুই উৎসবের সময় মানুষ মূলত পাঁচ রকমের পোশাক পরে। উলের তৈরি ঘোড়ায় চড়ার পোশাক, চামড়ার জ্যাকেট আর লাল, সবুজ, হলুদ, সাদা রঙ এর রঙচঙা স্কি মাস্ক হল মাখেনো নামক পোশাকের অংশ। হাতে থাকে মহিষের শিং দিয়ে তৈরি মদের পাত্র। মাখেনা পোশাকের সাথে অনেকে একটি টুপি ব্যবহার করে। টুপির মাথায় কোনো মৃত পাখি বা হরিণের খুলি বসিয়ে তৈরি করা হয় কুয়ারাওয়াতান্না পোশাক। বেশিরভাগ মানুষ এই পোশাকটাকেই বেছে নেয়।

আরেকটি পোশাক হচ্ছে নেগরো পোশাক। নেগরো পোশাকটা মূলত দাস মালিকদের পোশাকের অনুকরণে বানানো হয়। উঁচু কানাতের চামড়ার বুট, সুন্দর শার্ট, ওয়েস্টকোট ইত্যাদি পরে ঘুরে বেড়ায় নেগরোরা। একটা সময়ে কেবল ধনী লোকেরাই এই পোশাক পরতো। চল্লিশের দশকে পঙ্গপালের ঝাঁক এসে আন্দিজকে ন্যাড়া করে দিয়ে গিয়েছিল। তাদের কথা স্মরণ করেই তৈরি হয়েছে লাঙ্গোস নামের বিচিত্র পোশাক। নানা রকম চকচকে বস্তু দিয়ে বানানো হয় এই পোশাক। হাতে ঝুলিয়ে নিতে হয় মরা একটা পাখি।[৫]

এর বাইরে বাকি সব পোষাককে কারা গালো বলা হয় হয়। কারা গালো যারা পরে তারা মিছিলে অংশ নেয়, নাচ, গান, হৈ-হুল্লোড় সবই করে কিন্তু মারামারিতে অংশ নেয় না।

আইন[সম্পাদনা]

প্রত্যেক মারামারির শেষে হারুক বা জিতুক, প্রতিপক্ষের সাথে করমর্দন ও আলিঙ্গন করতেই হবে। এই সামান্য সৌজন্যটুকুই সরল পাহাড়িদের বিরোধ মেটাবার জন্য যথেষ্ট হয়েছে।

লিমার কর্তারা বেশ কয়েকবার আইন করে তাকানাকুই নিষিদ্ধ করতে চেয়েছিল। কিন্তু পাহাড়িদের প্রতিরোধের মুখে সে পদক্ষেপ বাতিল হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. * Peleas rituales: la waylía takanakuy en Santo Tomás। Revista Antropológica। ২০১২। 
  2. Teofilo Laime Ajacopa, Diccionario Bilingüe Iskay simipi yuyayk'ancha, La Paz, 2007 (Quechua-Spanish dictionary)
  3. "Takanakuy – The Fighting Festival of Peru"Events। Oddity Central। ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৬, ২০১২ 
  4. "A traditional holiday fist-fight"। Reuters। ২৭ ডিসেম্বর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৬, ২০১২ 
  5. Lele Saveri। "Christmas in the Andes"VICE