ডেভিড অ্যালান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ডেভিড অ্যালান
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামডেভিড ওয়াল্টার অ্যালান
জন্ম৫ নভেম্বর, ১৯৩৭
হ্যাস্টিংস, ক্রাইস্টচার্চ, বার্বাডোস
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১১৮)
২৩ মার্চ ১৯৬২ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট১৬ জুন ১৯৬৬ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৫৪
রানের সংখ্যা ৭৫ ৭৬৪
ব্যাটিং গড় ১২.৫০ ১৪.৬৯
১০০/৫০ -/- -/২
সর্বোচ্চ রান ৪০* ৫৬
বল করেছে - -
উইকেট - -
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৫/৩ ১১৭/২৪
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৩ জুন ২০২০

ডেভিড ওয়াল্টার অ্যালান (ইংরেজি: David Allan; জন্ম: ৫ নভেম্বর, ১৯৩৭) ক্রাইস্টচার্চের হ্যাস্টিংস এলাকায় জন্মগ্রহণকারী বার্বাডীয় বংশোদ্ভূত সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৬০-এর দশকে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১][২]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে বার্বাডোস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন ডেভিড অ্যালান

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৫৫-৫৬ মৌসুম থেকে ১৯৬৫-৬৬ মৌসুম পর্যন্ত ডেভিড অ্যালানের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল।

ক্রাইস্টচার্চের হ্যাস্টিংস এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ডেভিড অ্যালান ১৯৫৫-৫৬ মৌসুম থেকে ১৯৬৫-৬৬ মৌসুম পর্যন্ত বার্বাডোসের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশ নিয়েছিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পাঁচটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ডেভিড অ্যালান। ২৩ মার্চ, ১৯৬২ তারিখে ব্রিজটাউনে সফরকারী ভারত দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৬ জুলাই, ১৯৬৬ তারিখে লর্ডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

পাতলা চুলের অধিকারী ডেভিড অ্যালান চমৎকারভাবে আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়ী জীবন শুরু করেছিলেন। ভারতের বিপক্ষে সিরিজের দুই টেস্টে অংশ নিয়ে আটটি ক্যাচ ও দুইটি স্ট্যাম্পিং করেছিলেন। ফলশ্রুতিতে, খুব স্বাভাবিকভাবেই ইংল্যান্ড সফরে দলের প্রধান উইকেট-রক্ষক হিসেবে মনোনীত হন। কিন্তু, সিরিজ শুরুর পূর্বে ডেরিক মারে’র দাপটে তাকে স্থানচ্যূত হতে হয়। অন্যদিকে জ্যাকি হেনড্রিক্সের দাপটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা চরমে পৌঁছে ও তাকে তৃতীয়সারিতে অবস্থান করতে হয়। তবে, হেনড্রিক্স আঘাতপ্রাপ্ত হলে তাকে ১৯৬৬ সালের ইংল্যান্ড সফরে দলে রাখা হয়। জ্যাকি হেনড্রিক্সের প্রত্যাবর্তনের পূর্বে তিনি দুই টেস্টে অংশ নেন।

অংশগ্রহণকৃত সবগুলো টেস্টেই তিনি উইকেট-রক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। ১৯৬১-৬২ মৌসুমে ভারত, ১৯৬৪-৬৫ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া ও ১৯৬৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টগুলো খেলেন। এ সিরিজ শেষে তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. List of West Indies Test Cricketers
  2. "West Indies – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ মার্চ ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]