ডেনিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ভারতে ডেনিশ ও অন্যান্য ইউরোপীয় অবস্থান।

ডেনিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি [১] (ডেনীয়: Dansk Østindisk Kompagni) বলতে দুটি ভিন্ন ভিন্ন ডেনিশ কোম্পানি বোঝায়। প্রথমটি ১৬১৬ থেকে ১৬৫০ সাল পর্যন্ত ও দ্বিতীয়টি ১৬৭০ থেকে ১৭২৯ সাল পর্যন্ত স্থায়ী ছিল। ১৭৩০ সালে এটি এশিয়াটিক কোম্পানি নামে পুনরায় গঠিত হয়।

প্রথম কোম্পানি[সম্পাদনা]

ফোর্ট‌ ডান্স‌বোর্গ‌, থারাঙ্গামবাড়ি। ১৬২০ সালে ওভ জিদ কর্তৃক স্থাপিত।

রাজা চতুর্থ ক্রিশ্চিয়ানের সময় ১৬১৬ সালে প্রথম ডেনিস ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি গঠিত হয় এবং ভারতে বাণিজ্যের উপর দৃষ্টিনিবদ্ধ করে। এডমিরাল ওভ জিদের অধীন প্রথম অভিযান দুই বছর পর অর্ধেক ক্রু হারিয়ে শ্রীলংকায় পৌছায়। তারা যখন পৌছায় তখন পর্তুগাল দ্বীপের দখল দাবি করে। ১৬১৯ সালের শেষে ছোট একটি ডেনিশ নৌবহর পূর্ব উপকূলের ত্রিনকোমালিতে পৌছে; ১৬২০ সালের মে মাসে পরাজিত হওয়ার পূর্বে দুর্গ নির্মাণের জন্য কোনেশ্বরাম মন্দির দখল করে নেয়া হয়।[২] এই অভিযানে মূলভূমির থারাঙ্গামবাড়িতে ডান্সবোর্গ প্রতিষ্ঠা করে এবং ক্যাপ্টেন ক্রেপকে ডেনিশ ভারতের প্রথম গভর্নর নিয়োগ দেয়া হয়।[৩] তুঙ্গ অবস্থায় ডেনিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি সুইডিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির চেয়ে বেশি পরিমাণ চা ইংল্যান্ডে আমদানি করে বিপুল মুনাফা রপ্তানি করে। এসব চায়ের ৯০% পাচার করা হত। ১৬৫০ সালে এই কোম্পানি ভেঙে দেয়া হয়।

দ্বিতীয় কোম্পানি ও এশিয়াটিক কোম্পানি[সম্পাদনা]

১৬৭০ সালে দ্বিতীয় ডেনিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৭২৯ সালে ভেঙে দেয়ার পর ১৭৩০ সালে এশিয়াটিক কোম্পানি নামে এটি পুনরায় গঠিত হয়েছিল এবং কিং রাজবংশের সাথে বাণিজ্য শুরু হয়। প্রথম অভিযান খারাপ হয়েছিল। বিদেশগামী যাত্রায় ডেন গিলডন লভ রূপা বহনকারী কার্গোসহ হারিয়ে যায়। স্থানীয় জমির মালিকরা রূপাগুলো তাদের নিজেদের দখলে রেখে দেয় ও এর অধিকার দাবি করে। স্থানীয়দের একটি দল ডেনিশ রক্ষীদের পরাস্ত করে। সৃষ্ট অবস্থার কারণে ডেনমার্ক-নরওয়ে ও ব্রিটেনের মধ্যে কূটনৈতিক তৎপরতা হয়।[৪] ১৭৩২ সালের রাজকীয় লাইসেন্সের পর নবগঠিত কোম্পানি ৪০ বছরের জন্য উত্তমাশা অন্তরীপের পূর্বে সমস্ত ডেনিশ বাণিজ্যের একচেটিয়া অধিকার লাভ করে। ১৭৫০ সাল পর্যন্ত ২৭টি জাহাজ পাঠানো হয়। ২২টি কোপেনহেগেনে ফিরে আসতে সক্ষম হয়।[৪] ১৭৭২ সালে কোম্পানি তার একচেটিয়া কর্তৃত্ব হারায় এবং ১৭৭৯ সালে ডেনিশ ভারত মুকুট উপনিবেশে পরিণত হয়।

নেপলীয় যুদ্ধের সময় ১৮০১ ও ১৮০৭ সালে রাজকীয় নৌবাহিনী কোপেনহেগেন আক্রমণ করে। শেষ আক্রমণের ফলে ডেনমার্ক (নেপোলিয়ানের জয় না করা অন্যতম পশ্চিম ইউরোপীয় রাষ্ট্র) তার সম্পূর্ণ নৌবহর হারায়। ব্রিটেনের কাছে গেলগোল্যান্ড দ্বীপও হারাতে হয়। ১৮৪৫ সালে ডেনমার্ক ভারতে তার অবশিষ্ট বসতি ও ডেনিশ গোল্ড কোস্ট ব্রিটেনের কাছে বিক্রি করে দেয়।

জাহাজ[সম্পাদনা]

  • KiøbenhavnChristian [৫]
  • Christianshavn (৮ নভেম্বর ১৬৩৯)[৫]
  • Flyvende Ulv [৬]
  • Cron Printz Christian, Cron Printzen, ও Den gyldne Løve (১৭৩০–৩১)
  • Grev Moltke (১৭৬০)
  • Nicobar

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. The Danish East India Company
  2. Barner Jensen, U. “Danish East India. Trade coins and the coins of Tranquebar, 1620-1845”, pp. 11-12; Holden Furber “Imperi rivali nei mercati d’oriente, 1600-1800”, note n° 66, p. 326: "Senarat of Kandy sent to Trincomalee 60 Sinhala men in order to help the Danes in the construction of their fort. During their permanence in Trincomalee, the Danesh coined also some "Larins", on which were recorded the words ‘Don Erich Grubbe’, of these coins, today do not remain trace, if not in the diary of Ove Giedde."
  3. Foreningen Trankebar. "Artikel om en tur fra Chennai til Trankebar".
  4. Foreningen Trankebar. "Brev fra England".
  5. The Trials and Travels of Willem Leyel: An Account of the Danish East India Company in Tranquebar, 1639-48
  6. http://www.jmarcussen.dk/maritim/skibsliste/side.php?id=8542

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]