ডানিয়েল সিবার্ট (রেফারি)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ডানিয়েল সিবার্ট
২০১৮ সালে ডানিয়েল সিবার্ট
জন্ম (1984-05-04) ৪ মে ১৯৮৪ (বয়স ৩৮)
পশ্চিম বার্লিন, পশ্চিম জার্মানি
অন্য পেশা ক্রীড়া বিজ্ঞানী
ঘরোয়া
বছর লীগ দায়িত্ব
২০০৭–বর্তমান ডিএফবি রেফারি
২০০৯–বর্তমান ২. বুন্দেসলিগা রেফারি
২০১২–বর্তমান বুন্দেসলিগা রেফারি
আন্তর্জাতিক
বছর লীগ দায়িত্ব
২০১৫–বর্তমান ফিফা তালিকাভুক্ত রেফারি

ডানিয়েল সিবার্ট (জার্মান: Daniel Siebert; জন্ম: ৪ মে ১৯৮৪) হলেন একজন জার্মান ফুটবল রেফারি, যিনি বার্লিনে বসবাস করেন। তিনি বার্লিন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের নর্ডস্ট বার্লিনের জন্য রেফারির দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ফিফার এবং উয়েফার প্রথম শ্রেণির রেফারি হিসেবে স্থান পেয়েছেন।

রেফারি[সম্পাদনা]

নর্ডস্ট বার্লিনে সিবার্ট ১৯৯৮ সাল থেকে রেফারির দায়িত্ব পালন করছেন। ২০০৭ সালে তিনি ডিএফবির রেফারি হিসেবে নিযুক্ত হয়েছে। ২০০৯ সালে সিবার্ট ২. বুন্দেসলিগায় রেফারি পালন করা শুরু করেছিলেন। ২০১২–১৩ মৌসুমে তিনি বুন্দেসলিগায় রেফারি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন; ২০১২ সালের ১লা সেপ্টেম্বর তারিখে শালকে ০৪ এবং আউগসবুর্গের মধ্যকার ম্যাচটি পরিচালনা করার মাধ্যমে তিনি বুন্দেসলিগায় রেফারি হিসেবে অভিষেক করেছেন। উক্ত ম্যাচে তিনি ৩টি হলুদ কার্ড দেখিয়েছিলেন।

২০১৪ সালের ২৪শে অক্টোবর তারিখে, এক ঘোষণায় জানানো হয়েছিল যে সিবার্ট ভলফগাং স্টার্কের বদলি হিসেবে ২০১৫ সালের ফিফার রেফারি পদে থাকবেন।[১] যা সিবার্টকে ১০ জন জার্মান কনিষ্ঠতম ফিফার রেফারির একজন করে তুলেছিল।[২]

২০১৫ সালের ২৯শে মে তারিখে, পর্তুগাল এবং তুরস্কের মধ্যকার ২০১৫ উয়েফা ইউরোপীয় অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইপর্বের ম্যাচটি পরিচালনা করার মাধ্যমে সিবার্ট আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিষেক করেছিলেন। ২০১৫ সালের ৯ই জুন তারিখে, লুক্সেমবুর্গ বনাম মলদোভার ম্যাচটি পরিচালনা করার মাধ্যমে সিবার্ট জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের আন্তর্জাতিক ম্যাচে অভিষেক করেছিলেন।

সিবার্ট উয়েফা ইউরো ২০২০-এ তিনটি ম্যাচ পরিচালনা করেছেন; যেগুলো হলো গ্রুপ ডি-এর স্কটল্যান্ড বনাম চেক রিপাবলিক, গ্রুপ ই-এর সুইডেন বনাম স্লোভাকিয়া এবং ১৬ দলের পর্বের ওয়েলস বনাম ডেনমার্কের ম্যাচ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "DFB meldet Daniel Siebert für FIFA-Liste"DFB - Deutscher Fußball-Bund e.V. (জার্মান ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৭-২৭ 
  2. "Interview: "Für mich geht ein Traum in Erfüllung" - Printarchiv - Sport - Berliner Morgenpost"web.archive.org। ২০১৪-১১-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৭-২৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]