উদরাময়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(ডাইরিয়া থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উদরাময়
বিশেষত্বসংক্রামক রোগ, পাকান্ত্রবিদ্যা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

ডায়রিয়া বা উদরাময় হল প্রতি দিন কমপক্ষে তিনবার পাতলা বা তরল মলত্যাগ করার ফলে যে রোগ হয় তাকে বোঝায়। এটা প্রায়শ কয়েক দিন স্থায়ী হয় এবং এর ফলে অতিরিক্ত তরল বেরিয়ে যাওয়ার কারণে জলশূন্যতা দেখা দিতে পারে। প্রায়শ জলশূন্যতার লক্ষণগুলো শুরু হয় ত্বকের স্বাভাবিক প্রসারণযোগ্যতা নষ্ট হয়ে যাওয়া এবং ব্যক্তিত্বের পরিবর্তনের সাথে। ডায়রিয়া এর তীব্রতা বৃদ্ধির সাথে সাথে অন্যান্য লক্ষণ দেখা দেয় যেমন প্রস্রাবের পরিমাণ কমে যাওয়া, ত্বকের রঙ ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়াহৃৎস্পন্দনের দ্রুত হার, এবং সাড়া দেওয়ার সামর্থ্যের হ্রাস ইত্যাদি। তবে যে সমস্ত শিশুকে স্তন্যপান করানো হয়, তাদের পাতলা কিন্তু জলের মত নয় এমন মল স্বাভাবিক হতে পারে।[২]

সবচেয়ে সাধারণ কারণ হল কোনো ভাইরাসব্যাক্টেরিয়াপরজীবী, অথবা গ্যাস্ট্রোএন্টারাইটিস নামে পরিচিত একটি রোগের কারণে অন্ত্রের একটি সংক্রমণ। এই সংক্রমণগুলো বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মল দ্বারা দূষিত খাবার বা পানীয় থেকে হয় অথবা সংক্রামিত অন্য কোনো ব্যক্তির থেকে সরাসরি সংক্রমিত হয়। ডায়রিয়া কে তিন ভাগে ভাগ করা যেতে পারে: ১. স্বল্প স্থায়ী জলের মতো ডায়রিয়া, ২. স্বল্প স্থায়ী রক্ত যুক্ত ডায়রিয়া, ৩. এবং এটা যদি দুই সপ্তাহের বেশি স্থায়ী হয়, তবে তাকে বলা হচ্ছে দীর্ঘস্থায়ী ডায়রিয়া। স্বল্প স্থায়িত্বের জলের মত ডায়রিয়া কলেরা সংক্রমণের কারণে হতে পারে। যদি এর সাথে রক্ত থাকে, তাহলে এটাকে রক্ত আমাশয় ও বলা হয়।[২] প্যাথোজেনিক জীবাণুর সংক্রমণ ছাড়া অন্যান্য বেশ কিছু কারণে ডায়রিয়া হতে পারে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে: ১.হাইপারথাইরয়েডিজম, ২.দুধের মধ্যকার ল্যাক্টোজ সহ্য করার অক্ষমতা, ৩.অন্ত্রের প্রদাহজনক রোগ, ৪. ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম এছাড়াও কিছু ঔষধ এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসেবে ডায়রিয়া হতে পারে।[৩] বেশির ভাগ ক্ষেত্রে সঠিক কারণ নিশ্চিতভাবে জানার জন্য স্টুল কালচার বা মল পরীক্ষার প্রয়োজন নেই।[৪]

সংক্রামক উদরাময়ের প্রতিরোধ উন্নত হয় মলনিষ্কাশনের ব্যবস্থা, পরিষ্কার পানীয় জল, এবং হাত ধোওয়ার দ্বারা। কমপক্ষে ছয় মাস ধরে স্তন্যপান করানো এবং রোটাভাইরাসের বিরুদ্ধে টিকাকরণ-এর পরামর্শও দেওয়া হয়। ওরাল রিহাইড্রেশন সলিউশন (ORS), হল পরিষ্কার জলের সাথে পরিমিত পরিমাণে লবণ ও চিনির, মিশ্রণ, যা হল চিকিৎসার পছন্দের বিকল্প। জিংক ট্যাবলেট-এর পরামর্শও দেওয়া হয়।[২] এই চিকিৎসা পদ্ধতি সমূহ গত ২৫ বছরে আনুমানিক ৫ কোটি শিশুর প্রাণ বাঁচিয়েছে।[১] কেউ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হলে তাকে স্বাভাবিক খাবার-দাবার চালিয়ে যেতে হবে এবং শিশুদের মায়ের বুকের দুধ পান করানো অব্যাহত রাখতে হবে।[২] যদি বাণিজ্যিক ORS পাওয়া না যায়, তাহলে ঘরে তৈরি স্যালাইন খাওয়ানো যেতে পারে।[৫] রোগীর পানিশূন্যতা খুব বেড়ে গেলে ইনট্রাভেনাস স্যালাইন এর প্রয়োজন হতে পারে।[২] তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই খাবার স্যালাইনের মাধ্যমেই চিকিৎসা সফল হয়ে থাকে।[৬] অ্যান্টিবায়োটিক যাদের রক্ত আমাশয় রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে এন্টিবায়োটিক দেয়া যেতে পারে, এছাড়াও যাদের তীব্র ভ্রমণ করার পরে উদরাময় আছে, এবং যাদের মলে সুনির্দিষ্ট কিছু ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি পাওয়া যায় তাদের ক্ষেত্রে এন্টিবায়োটিক দেয়া হয়ে থাকে।[৪] লোপারামাইড মলত্যাগের সংখ্যা কমাতে সাহায্য করতে পারে, তবে তীব্র রোগে আক্রান্ত মানুষদের জন্য এর পরামর্শ দেওয়া হয় না। [৪]

প্রতি বছর প্রায় 1.7 থেকে 5 বিলিয়ন উদরাময়ের ঘটনা ঘটে।[২][৩] এটা উন্নয়নশীল দেশগুলোতে সবচেয়ে সাধারণত দেখা যায়, যেখানে ছোট বাচ্চারা প্রতি বছরে গড়ে তিনবার উদরাময়ে আক্রান্ত হয়।[২] 2012 সাল পর্যন্ত, বিশ্বব্যাপী পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মৃত্যুর দ্বিতীয় সবচেয়ে সাধারণ কারণ (0.76 মিলিয়ন বা 11%)।[২][৭] ঘন ঘন উদরাময়ের ঘটনা অপুষ্টিরও একটা সাধারণ কারণ এবং পাঁচ বছরের কম বয়সীদের ক্ষেত্রে এটা হল সবচেয়ে সাধারণ কারণ।[২] এর ফলস্বরূপ অন্য যে সব দীর্ঘমেয়াদী সমস্যাগুলো হতে পারে তার অন্তর্ভুক্ত হল শরীর ও মেধার অযথাযথ বিকাশ।[৭]

ডায়ারিয়ার কারণ[সম্পাদনা]

১. খোলা জায়গায় মলত্যাগ

খোলা জায়গায় মলত্যাগ শিশু দের মধ্যে ডায়ারিয়া সৃষ্টির এক অন্যতম কারণ। ডায়ারিয়া উন্নয়নশীল দেশের শিশুমৃত্যুর প্রধান কারন গুলোর মধ্যে একটি।[৮]

২. ব্যাক্টেরিয়া ঘটিত ডায়ারিয়া

বিভিন্ন ব্যাক্টেরিয়া যেমন, সালমোনেলা (Salmonella, শিগেলা (Shigella flexneri), ব্যাসিলাস (Bacillus cereus) , ইশ্চেরিচিয়া কোলাই (Escherichia coli), ভিব্রিও (Vibrio ) ইত্যাদি ডায়ারিয়া ঘটাতে পারে।

৩. ভাইরাস ঘটিত ডায়ারিয়া রোটাভাইরাস, হেপাটাইটিস-এ ভাইরাস ডায়ারিয়া ঘটাতে পারে।

৪. ছত্রাক ঘটিত ডায়ারিয়া

৫. কৃমি ঘটিত ডায়ারিয়া

৬. প্রোটোজোয়া ঘটিত ডায়ারিয়া জিয়ার্ডিয়া, ৭. এন্টামিবা জাতীয় প্রোটোজোয়া ডায়ারিয়ার জন্য দায়ী।

৮. অসংক্রমিত ডায়ারিয়া
৯. অজানা কারণের ডায়ারিয়া

অনেক সময়ই কোন এলাকায় বা ব্যক্তির ডায়ারিয়ার কারণ জানা যায় না। দেখা যায় কোন কারণ না থাকা সত্ত্বেও (Unknown etiology) ডায়ারিয়া ঘটেছে। এরুপ একটি ঘটনার উদাহরন ব্রেইণার্ড ডায়ারিয়া। যুক্তরাষ্ট্রের মেনিসোটার ব্রেইণার্ড নামক অঞ্চলে এই ডায়ারিয়ার প্রোকোপ দেখা যায়। কোন ব্যাক্টেরিয়া, ভাইরাস, প্রোটোজোয়া বা অন্য কোন কারণই খুঁজে পাওয়া যায় নাই।

ডায়ারিয়া কিভাবে ঘটে?[সম্পাদনা]

ডায়রিয়া একটি উপসর্গ যা ঘন ঘন, শোষক মলের পাশে সংজ্ঞায়িত করা হয় | এটি আপনার শরীর থেকে পানি এবং ইলেকট্রোলাইটের (যেমন, পটাসিয়াম, সোডিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম) ক্ষতির সাথে যুক্ত। ডায়রিয়া রোগীদের প্রায়ই অন্ত্র আন্দোলনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ডায়রিয়াটি প্রতি দিন 3 টি আলগা বা পানির স্টুলের পাশাপাশি সংজ্ঞায়িত করা হয়।

তীব্র ডায়রিয়া 14 দিন কম থাকে। বেশিরভাগ মানুষ এক সময় বা অন্য সময়ে তীব্র ডায়রিয়া অনুভব করে। স্থায়ী ডায়রিয়া 14 দিনের বেশি কিন্তু এক মাসের কম। দীর্ঘস্থায়ী ডায়রিয়া একটি মাস আর দীর্ঘ স্থায়ী হয়। স্থায়ী এবং দীর্ঘস্থায়ী ডায়রিয়া উভয় চিকিৎসা অবস্থার মতো আরো গুরুতর সমস্যাগুলির একটি চিহ্ন হতে পারে।

ডায়রিয়া তখন ঘটে যখন আপনার পাচক সিস্টেমের সামগ্রীগুলি পাচক পদ্ধতির মাধ্যমে এত দ্রুত সরানো যায় যে অন্ত্রের তরল শোষণ করার জন্য পর্যাপ্ত সময় নেই, বা পাচক সিস্টেম অতিরিক্ত তরল উত্পাদন করে। ফলে স্টিলগুলি অতিরিক্ত তরল থাকে, যা তাদের আলগা এবং পানির মতো করে তোলে।

কারণ এবং পরিস্থিতিতে একটি সংখ্যা ডায়রিয়া হতে পারে। এই অন্তর্ভুক্ত:

ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ (যেমন, ই কোলাই এবং সালমোনেলা - খাদ্যে বিষক্রিয়া এর সাধারণ কারণ) ভাইরাল সংক্রমণ (যেমন, নরওয়াক মত বা rotavirus) পরজীবী সংক্রমণ (যেমন, Giardia) চিকিৎসাবিদ্যা শর্ত, এই ধরনের Crohn এর রোগ হিসাবে পেট এবং অন্ত্র প্রভাব ফেলে, ulcerative কোলাইটিস, celiac রোগ, বা খিটখিটে অন্ত্র সিনড্রোম (আইবিএস) যেমন যেমন পেটের সার্জারি বা গলব্লাডার অপসারণের পর যেমন অ্যান্টিবায়োটিক, ম্যাগনেসিয়াম সম্বলিত antacids, colchicine এবং laxativesalcoholfood অসহিষ্ণুতা (যেমন, কৃত্রিম উৎকোচ বা ল্যাকটোজ অসহিষ্ণুতা) অথবা খাদ্য allergiesradiation বা chemotherapystressmenstruationsurgery, যেমন ঔষধ সার্জারি

বেশিরভাগ সময়ই, ডায়রিয়াতে আপনার ডাক্তারের কাছে যেতে হবে না। কিন্তু ডায়রিয়া 3 দিনের বেশি স্থায়ী হয়, অথবা যদি আপনি অন্য কোন উপসর্গ (যেমন, রক্তাক্ত বা কালো মল, জ্বর, তীব্র পেটের ব্যথা) লক্ষ‍্য করেন তবে আপনাকে ডাক্তার দেখাতে হবে।

ডায়ারিয়া প্রতিরোধ ও প্রতিকার[সম্পাদনা]

সাধারণ ডায়ারিয়া ঘটলে এটা নিজে নিজেই সেরে যায়। রোগ যতদিন চলে তত দিন রোগীকে স্যালাইন খাওয়াতে হয়। স্যালাইন শরীরে পানিশুন্যতা রোধ করে। কলেরা জীবাণু দ্বারা ডায়ারিয়া হলে প্রতিদিন শরীর থেকে ২০-৩০ লিটার পানি বের হয়ে যায়। যা শরীরের জন্য মারাত্বক ক্ষতিকর। তার যত দিন রোগ চলে ততদিন রোগীকে খাওয়ার স্যালাইন খাওয়াতে হবে। UNICEF এর মতে মলত্যাগ করার পর সাবান দিয়ে হাত ধোয়া ডায়ারিয়ার সম্ভবনা ৪০% হ্রাস করে।[৮]

কিছু কিছু ক্ষেত্রে ডায়ারিয়া প্রতিরোধের জন্য ভ্যাক্সিন আবিস্কার হয়েছে। এরমধ্যে সবথেকে উল্লেখ্যযোগ্য হল কলেরা ভ্যাক্সিন। রোটাভাইরাসের বিরুদ্ধেও ভ্যাক্সিন আবিস্কার হয়েছে।

খাওয়ার স্যালাইন[সম্পাদনা]

বাজারে বিভিন্ন ঔষধ কোম্পানি কর্তৃক সরবরাহকৃত স্যালাইন পাওয়া যায়। আবার ঘরে চিনি (না থাকলে গুড়) ও তিন আঙ্গুলের এক চিমটা লবণ এক মগ পানিতে মিশিয়ে স্যালাইন তৈরি করা যায়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "whqlibdoc.who.int" (PDF )World Health Organization 
  2. "Diarrhoeal disease  Fact sheet N°330"World Health Organization। এপ্রিল ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুন ২০১৪ 
  3. Doyle, edited by Basem Abdelmalak, D. John (২০১৩)। Anesthesia for otolaryngologic surgery। Cambridge: Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 282–287। আইএসবিএন 1107018676 
  4. DuPont, HL (এপ্রিল ১৭, ২০১৪)। "Acute infectious diarrhea in immunocompetent adults."। The New England journal of medicine370 (16): 1532–40। ডিওআই:10.1056/nejmra1301069পিএমআইডি 24738670 
  5. Prober, edited by Sarah Long, Larry Pickering, Charles G. (২০১২)। Principles and practice of pediatric infectious diseases (4th  সংস্করণ)। Edinburgh: Elsevier Saunders। পৃষ্ঠা 96। আইএসবিএন 9781455739851 
  6. ACEP। "Nation's Emergency Physicians Announce List of Test and Procedures to Question as Part of Choosing Wisely Campaign"Choosing Wisely। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুন ২০১৪ 
  7. "Global Diarrhea Burden"CDC। জানুয়ারি ২৪, ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুন ২০১৪ 
  8. "Half of India's population still defecates in the open"। নভেম্বর ২০, ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২০, ২০১৩