ডলুরা গণকবর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডলুরা গণকবরের প্রধান ফটক

ডলুরা গণকবর ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত আটচল্লিশজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার গণসমাধি। ডলুরা সুনামগঞ্জ জেলার অন্তর্গত, মেঘালয় সীমান্তবর্তী গারো আদিবাসী-অধ্যুষিত একটি গ্রাম।

পটভূমি[সম্পাদনা]

ডলুরা গণকবরে শহীদদের সমাধি

সুনামগঞ্জে ১৯৭১ সালে মার্চের পর থেকেই যুদ্ধ শুরু হয়। ২৫ মার্চ ঢাকায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর আক্রমণের পর অনেক মানুষ ঢাকা শহর ত্যাগ করে তাদের গ্রামের বাড়িতে নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে ফিরতে শুরু করেন। অনেকে সীমান্ত পেরিয়ে আরও নিরাপদ জায়গার খোঁজে চলে যায় শরণার্থী শিবিরে। অনেকে সীমান্ত পেরিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ট্রেনিং ক্যাম্পে যোগ দেন এবং প্রশিক্ষণ নিয়ে ফিরে এসে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন। ডলুরা সীমান্তবর্তী গ্রাম হওয়ায় এবং মেঘালয়ে যাওয়ার জন্য যোগাযোগব্যবস্থা ভালো থাকায় প্রতিদিনই বিপুলসংখ্যক মানুষ এ পথে আসতে থাকে। সিলেটের এম সি কলেজ, ময়মনসিংহের আনন্দ মোহন কলেজ, ভৈরব কলেজসহ বিভিন্ন কলেজের ছাত্ররা এ পথে সীমান্ত পার হওয়ার জন্য আসত মুক্তিযোদ্ধা হতে। তাই কৌশলগত কারণে এ জায়গাটা ছিল পাকিস্তানি বাহিনীর কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সে জন্য তারা সুরমা নদীর এ পারে ক্যাম্প স্থাপন করে ভারতগামী লোকদের আসা প্রতিরোধের চেষ্টা করে। তবুও বাঙালি তরুণেরা বিভিন্ন ঘুরপথে ঝুঁকি নিয়ে আসতে থাকে। এরপর এক পর্যায়ে ডলুরা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে পাকিস্তানি বাহিনীর সম্মুখযুদ্ধ শুরু হয়। এতে অনেক মুক্তিযোদ্ধা প্রাণ হারান। তাঁদের শবদেহগুলো গ্রামবাসী ও সহযোদ্ধারা এই ডলুরা সীমান্তে এনে সমাহিত করেন। মো. মন্তাজ মিয়া, মো. রহিম বখত, মো. ধনু মিয়া, মো. কেন্তু মিয়া, অধর দাস, কবীন্দ্র নাথ—এমন অনেক মুক্তিযোদ্ধাকে এখানে সমাহিত করা হয়। যাঁদের পরিচয় পাওয়া গেছে, নামফলকে শুধু সেই আটচল্লিশজনের নামই আছে। ফলকে নাম নেই, এমন অনেক মুক্তিযোদ্ধাও এখানে সমাহিত আছেন বলে স্থানীয়রা জানান। ৫ নম্বর সেক্টরের মুক্তিযোদ্ধা সম্মিলনীর সৌজন্যে স্বাধীনতাসংগ্রামের শহীদদের স্মরণে সেখানে গড়ে উঠেছে ডলুরার পবিত্রভূমি। [১]

সমাহিত মুক্তিযোদ্ধাগণ[সম্পাদনা]

  1. মোঃ মন্তাজ মিয়া
  2. সালাউদ্দিন
  3. মোঃ রহিম বখত (ই পি আর হাবিলদার)
  4. মোঃ জবান আলী
  5. মোঃ তাহের আলী
  6. মোঃ আঃ হক
  7. মোঃ মজিবুর রহমান
  8. মোঃ নুরুল ইসলাম
  9. মোঃ আঃ করিম
  10. মোঃ সুরুজ মিয়া
  11. মোঃ ওয়াজেদ আলী
  12. মোঃ সাজু মিয়া
  13. মোঃ ধনু মিয়া
  14. মোঃ ফজলুল হক
  15. মোঃ সামছুল ইসলাম
  16. মোঃ জয়নুল আবেদিন
  17. মোঃ মরম আলী
  18. মোঃ আঃ রহমান
  19. মোঃ কেন্তু মিয়া
  20. মোস্তফা মিয়া
  21. মোঃ ছাত্তার মিয়া
  22. মোঃ আজমান আলী
  23. মোঃ সিরাজ মিয়া
  24. মোঃ সামছু মিয়া
  25. মোঃ তারা মিয়া
  26. মোঃ আবেদ আলী
  27. মোঃ আতর আলী
  28. মোঃ লাল মিয়া
  29. মোঃ চান্দু মিয়া
  30. মোঃ সমুজ আলী
  31. মোঃ সিদ্দিকুর রহমান
  32. মোঃ দান মিয়া
  33. মোঃ মন্নাফ মিয়া
  34. মোঃ রহিম মিয়া
  35. আলী আহমদ
  36. মোঃ সিদ্দিক মিয়া
  37. মোঃ এ, বি, সিদ্দিক
  38. মোঃ ছায়েদুর রহমান
  39. মোঃ রহমত আলী
  40. মোঃ আঃ হামিদ খান
  41. মোঃ আঃ সিদ্দিক
  42. মোঃ আঃ খালেক
  43. যোগেন্দ্র দাস
  44. শ্রীকান্ত বাবু
  45. হরলাল দাস
  46. অধর দাস
  47. অরবিন্দু রায়
  48. কবিন্দ্র নাথ

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://archive.prothom-alo.com/detail/date/2010-06-29/news/74518 চারদিকঃ ডলুরার সেই পবিত্রভূমি, মৃত্যুঞ্জয় রায় | তারিখ: ২৯-০৬-২০১০

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]