ডনোভান পাগোন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডনোভান পাগোন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামডনোভান জমো পাগোন
জন্ম (1982-09-13) ১৩ সেপ্টেম্বর ১৯৮২ (বয়স ৩৮)
কিংস্টন, জ্যামাইকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৫৯)
৩১ মার্চ ২০০৫ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট৮ এপ্রিল ২০০৫ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২৭
রানের সংখ্যা ৩৭ ১২৩৮
ব্যাটিং গড় ১২.৩৩ ৩০.১৯
১০০/৫০ -/- ২/৫
সর্বোচ্চ রান ৩৫ ১১০
বল করেছে
উইকেট
বোলিং গড়
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- ৮/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

ডনোভান জমো পাগোন (ইংরেজি: Donovan Pagon; জন্ম: ১৩ সেপ্টেম্বর, ১৯৮২) কিংস্টন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কালে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে জ্যামাইকা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন ডনোভান পাগোন

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

উলমার্স স্কুলসে অধ্যয়ন করেছেন তিনি। আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাসে খেলায় তিনি ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস খেলেন। ২১ জানুয়ারি, ২০০২ তারিখে ডুনেডিনে গ্রুপ পর্বের খেলায় স্কটল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে ১৭৬ রান করেছিলেন তিনি।[১][২]

২০০১-০২ মৌসুম থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ডনোভান পাগোনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ডোনোভান প্যাগন। সবগুলো টেস্টই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ৩১ মার্চ, ২০০৫ তারিখে জর্জটাউনে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ৮ এপ্রিল, ২০০৫ তারিখে পোর্ট অব স্পেনে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি। তাকে কোন ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

২০০৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে অনাকাঙ্খিত ঘটনায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাঝারিসারির খেলোয়াড় হিসেবে অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয় তার। মার্চ, ২০০৫ সালে ব্রায়ান লারা, রামনরেশ সারওয়ানক্রিস গেইলসহ জাতীয় দলের সাতজন শীর্ষস্থানীয় খেলোয়াড় বাণিজ্যিক চুক্তির কারণে তিক্ততাপূর্ণ পরিবেশের সৃষ্টি হয়। তারকা খেলোয়াড়ের অনুপস্থিতির সুযোগে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। অভিষেক টেস্টে ৩৫ রান তুলেন ও পরবর্তীতে ৩০ গড়ে রান পান। এরপর, তিনি আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নেয়ার সুযোগ পাননি।[৩][৪][৫]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ৩০-এর কম গড়ে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে রান সংগ্রহ করেছেন। ফলশ্রুতিতে, তার কাছ থেকে এর বেশী রান প্রত্যাশা করা হয়নি। তাসত্ত্বেও, অভিষেকে ৩৫ রান সংগ্রহ করতে পেরেছিলেন। ঐ ইনিংসে তিনি দীর্ঘকায় গড়নে স্থিরচিত্তে ক্রিজে অবস্থান করেন। নিজের অফ-স্ট্যাম্পের প্রতি তীক্ষ্ণ দৃষ্টিনিবদ্ধ করেন ও বাজে বলগুলোকে সজোরে মারতে সচেষ্ট হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Group D: Scotland Under-19s v West Indies Under-19s at Dunedin, Jan 21, 2002 | Cricket Scorecard | ESPN Cricinfo"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৩-২২ 
  2. "Cricket Records | Records | Under-19s World Cup | High scores | ESPN Cricinfo"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৩-২২ 
  3. "All-round records | Test matches | Cricinfo Statsguru | ESPN Cricinfo"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৩-২২ 
  4. "1st Test: West Indies v South Africa at Georgetown, Mar 31 – Apr 4, 2005 | Cricket Scorecard | ESPN Cricinfo"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৩-২২ 
  5. "2nd Test: West Indies v South Africa at Port of Spain, Apr 8–12, 2005 | Cricket Scorecard | ESPN Cricinfo"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৩-২২ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]