ট্রিপল এক্স সিন্ড্রোম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ট্রিপল এক্স সিন্ড্রোম
প্রতিশব্দসমূহট্রিপলো-এক্স সিন্ড্রোম, ট্রাইসোমি এক্স, XXX সিন্ড্রোম, ৪৭ XXX সিন্ড্রোম[১]
XXXSyndromeB.png
৯ বছর বয়সী মেয়ের চোখের মধ্যে দূরত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে ট্রিসোমি এক্স এর কারণে[২]
বিশেষায়িত ক্ষেত্রমেডিকেল জেনেটিক্স
উপসর্গ বা লক্ষণগড় উচ্চতার তুলনায় বেশি লম্বা[১]
জটিলতাশেখার অসুবিধা, পেশী টোন হ্রাস, খিঁচুনি, কিডনি সমস্যা[১]
কারণসমূহএলোমেলো ঘটনা[১]
রোগনির্ণয়ক্রোমোসোমাল বিশ্লেষণ[৩]
চিকিৎসাস্পিচ থেরাপি, শারীরিক থেরাপি, পরামর্শ[৩]
প্রাদুর্ভাবের হারপ্রতি ১,০০০ নারী জন্মের মধ্যে ১ জনের ক্ষেত্রে ঘটে[২]

ট্রিপল এক্স সিনড্রোম, ট্রাইসোমি এক্স এবং ৪৭, XXX নামেও পরিচিত, এক্ষেত্রে একটি নারীর প্রতিটি কোষে অতিরিক্ত x ক্রোমোজোম উপস্থিতি থাকে। এই রোগে আক্রান্ত মহিলাদের প্রায়শই গড় উচ্চতার থেকে বেশি লম্বা। সাধারণত অন্য কোন শারীরিক পার্থক্য থাকে না এবং প্রজনন স্বাভাবিক হয়।[১] এই রোগের কারণে পেশী টোন কমে যায়, কিডনির সমস্যা দেখা দেয়।[১]

ট্রিপল এক্স একটি কোনো উদ্দেশ্য ছাড়া ঘটনা কারণে ঘটে।[১] ট্রিপল এক্সটি প্রাথমিকভাবে মায়ের প্রজনন কোষের বিভাজন বা প্রাথমিক বিকাশের সময় কোষ বিভাজনের সময় হতে পারে।[২] এটি সাধারণত এক প্রজন্ম থেকে পরবর্তীতে উত্তরাধিকারসূত্রে পাওয়া যায় না।[১] এটি এমন একটি ফর্ম যেখানে শরীরের কোষগুলির মাত্র এক শতাংশ XXX রুপে থাকতে পারে।[১] রোগ নির্ণয় করা হয় ক্রোমোসোমাল বিশ্লেষণ দ্বারা।[৩]

এই রোগের চিকিৎসার মধ্যে বক্তৃতা থেরাপি, শারীরিক থেরাপি, এবং পরামর্শ অন্তর্ভুক্ত হতে পারে।[৩] এটি প্রতি ১,০০০ নারী জন্মের মধ্যে ১ জনের ক্ষেত্রে ঘটে।[২] এটি অনুমান করা হয় যে ৯০% ক্ষতিগ্রস্তদের নির্ণয় করা হয় না কারণ তাদের কোনও উপসর্গ থাকেনা বা মাত্র কয়েকটি উপসর্গ থাকে।[২] এটি প্রথম ১৯৫৯ সালে চিহ্নিত করা হয়েছিল।[৪]

চিকিৎসা[সম্পাদনা]

একটি স্থিতিশীল বাড়ির পরিবেশ উপসর্গের কিছু উন্নত করতে পারে।

মহামারী-সংক্রান্ত বিদ্যা[সম্পাদনা]

ট্রিপল এক্স সিনড্রোম প্রায় ১,০০০ টি মেয়েদের মধ্যে ১ জনের মধ্যে দেখা দেয়। ট্রিপল এক্স সিন্ড্রোম প্রতিদিনই গড়ে পাঁচ থেকে দশটি মেয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জন্ম নেয়।[৫]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

৪৭, XXX ক্রিয়োটাইপ সহ একটি মহিলার প্রথম প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয় প্যাট্রিসিয়া এ. জ্যাকব্স, এট আল. দ্বারা ১৯৫৯ সালে স্কটল্যান্ডের এডিনবার্গের ওয়েস্টার্ন জেনারেল হাসপাতালে থেকে। এটি ৩৫ বছর বয়সী, ৫ ফিট ৯ ইঞ্চি (১৭৬ সেমি) লম্বা, ১২৮ পাউন্ড (৫৮.২ কেজি) ওজনের মহিলা, যিনি ১৯ বছর বয়সে অকালীন ডিম্বাশয় ব্যর্থতার শিকার হন; তার মা ছিলেন ৪১ বছর বয়সী এবং তার বাবার বয়স ছিল ৪০।[৬] জ্যাকবস এট আল. ৪৭, XXX মহিলাটিকে "সুপারফিমেল" বলে ছিলেন, যেটি অবিলম্বে সমালোচনা করা হয়েছিল, গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করে নি, এবং ভুল অনুমানের উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছিল যে স্তন্যপায়ীদের যৌন-সংকোচনের ব্যবস্থা ডোসোসফিলা ফল মাছির মতোই ছিল।[৭] অক্সফোর্ড ইংরেজী অভিধানের চিকিৎসা পদে থাকা প্রধান পরামর্শদাতা ব্রিটিশ প্যাথোলজিস্ট এবং জেনেটিকস্ট বার্নার্ড লেনক্স এই শব্দটিকে "XXX সিন্ড্রোম" বলে উল্লেখ করেছেন।[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "triple X syndrome"GHR। জুন ২০১৪। ২৭ জুলাই ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  2. Tartaglia, NR; Howell, S; Sutherland, A; Wilson, R; Wilson, L (১১ মে ২০১০)। "A review of trisomy X (47,XXX)."Orphanet journal of rare diseases5: 8। doi:10.1186/1750-1172-5-8PMID 20459843পিএমসি 2883963অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  3. "47 XXX syndrome"GARD। ১৬ মার্চ ২০১৬। ৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  4. Wright, David (২০১১)। Downs: The history of a disability (ইংরেজি ভাষায়)। OUP Oxford। পৃষ্ঠা 159। আইএসবিএন 9780191619786। ২০১৭-০৯-১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা 
  5. National Library of Medicine (২০০৭)। "Genetics Home Reference: Triple X syndrome"। ২০০৭-০৩-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৩-২২ 
  6. Jacobs, Patricia A.; Baikie, Albert G.; Court Brown, W. Michael; MacGregor, Thomas N.; Maclean, Neil; Harnden, David G. (সেপ্টেম্বর ২৬, ১৯৫৯)। "Evidence for the existence of the human 'super female'"। The Lancet274 (7100): 423–425। doi:10.1016/S0140-6736(59)90415-5PMID 14406377 
  7. Stern, Curt (ডিসেম্বর ১২, ১৯৫৯)। "Use of the term 'superfemale'"। The Lancet274 (7111): 1088। doi:10.1016/S0140-6736(59)91557-0 
    Jacobs, Patricia A.; Baikie, Albert G.; Court Brown, W. Michael; Harnden, David G.; MacGregor, Thomas N.; Maclean, Neil (ডিসেম্বর ১৯, ১৯৫৯)। "Use of the term 'superfemale'"। The Lancet274 (7112): 1145। doi:10.1016/S0140-6736(59)90132-1 
    Jacobs, Patricia A. (মার্চ ৩–৫, ২০০৬)। "The discovery and history of Trisomy X and XYY syndrome"। National Conference on Trisomy X and XYY, UC Davis M.I.N.D. Institute, Sacramento, California। DVD 02। Pine, Colorado: KS&A। 
    Ferguson-Smith, Malcolm A. (ডিসেম্বর ২০০৯)। "It is 50 years since the discovery of the male determining role of the Y chromosome!"। Sexual Development3 (5): 233–236। doi:10.1159/000252792PMID 19844083 
    Ferguson-Smith, Malcolm A. (সেপ্টেম্বর ২০১১)। "Putting medical genetics into practice"Annual Review of Genomics and Human Genetics12: 1–23। doi:10.1146/annurev-genom-082410-101451PMID 21639797 
  8. Lennox, Bernard (জানুয়ারি ২, ১৯৬০)। "Use of the term 'superfemale'"। Lancet275 (7114): 55। doi:10.1016/S0140-6736(60)92744-6 
    Fraser, Jean H.; Campbell, John; MacGillivray, Ronald Charles; Boyd, Elizabeth; Lennox, Bernard (সেপ্টেম্বর ১৭, ১৯৬০)। "The XXX syndrome: frequency among mental defectives and fertility"। The Lancet276 (7151): 626–627। doi:10.1016/S0140-6736(60)91696-2PMID 13701513 
    Anderson, John B.; Crofton, John (আগস্ট ১৬, ১৯৯৭)। "Obituary: Bernard Lennox"BMJ315 (7105): 432। doi:10.1136/bmj.315.7105.432 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]