টিপু মুনশি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
টিপু মুনশি
Tipu Munshi (cropped).jpg
বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২০১৯ – চলমান
পূর্বসূরীতোফায়েল আহমেদ
রংপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
২০০৮ – চলমান
পূর্বসূরীকরিম উদ্দিন ভরসা
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1950-08-25) আগস্ট ২৫, ১৯৫০ (বয়স ৭০)
গোপালগঞ্জ জেলা
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
দাম্পত্য সঙ্গীআইরীন মালবিকা মুনশি
সন্তান২ কন্যা
পিতামাতারমজান আলী
রত্না মুনশি
বাসস্থানরংপুর, বাংলাদেশ
প্রাক্তন শিক্ষার্থীসরকারী তিতুমীর কলেজ
পেশারাজনীতিবিদ ও শিল্পপতি

টিপু মুনশি (জন্ম: ২৫ আগস্ট ১৯৫০) বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ এবং রংপুর-৪ (পীরগাছা-কাউনিয়া) আসনের সংসদ সদস্য। তিনি ২০০৮ সাল থেকে তৃতীয়বারের মতো রংপুর-৪ (পীরগাছা-কাউনিয়া) আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশের বাণিজ্যমন্ত্রী।[১][২]

জন্ম ও প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

টিপু মুনশির ২৫ আগস্ট ১৯৫০ সালে গোপালগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা ১৯৬৪ সালে রংপুর জেলার পীরগাছা উপজেলার গুয়াবাড়ি গ্রামে সপরিবার আবাস গড়েন। তিনি ঢাকার সরকারী তিতুমীর কলেজ (তৎকালীন সরকারি জিন্নাহ কলেজ) থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তার বাবা রমজান আলী ব্রিটিশ সৈনিক ছিলেন। মায়ের নাম রত্না মুনশি। তার স্ত্রী আইরীন মালবিকা মুনশি, তাদের ২ কন্যা সন্তান রয়েছেন।[১]

রাজনৈতিক ও কর্মজীবন[সম্পাদনা]

পেশায় শিল্পপতি টিপু মুনশি রাজনীতির সঙ্গে সক্রিয় ভাবে যুক্ত আছেন। তিনি ১৯৬৬ সালে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যুক্ত হন। ১৯৬৯ সালে ঢাকায় জোয়ারসাহারা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তিনি ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে ভুমিকা রাখেন। তিনি তৎকালীন সরকারি জিন্নাহ কলেজ (বর্তমান তিতুমীর কলেজ) ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের নেতৃত্ব দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে লড়াই করেন।[১]

১৯৭৩ সালে তিনি ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের তেজগাঁও উত্তরাঞ্চলের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে ১৯৯২ সাল থেকে ২৪ বছর তিনি বৃহত্তর গুলশান আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতিও ছিলেন তিনি। ২০১৭ সালে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক নির্বাচিত হন।[১][৩]

১৯৯৮ সালে তিনি বিজিএমইএর সহসভাপতি, ২০০৫-২০০৬ মেয়াদে বিজিএমইএর সভাপতি ও বর্তমানে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন ফোরাম ও সম্মিলিত পরিষদের যৌথ কমিটির প্রেসিডেনশিয়াল সভাপতি। তিনি সিপাল গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও অ্যাপোলো হাসপাতাল ঢাকার হোল্ডিং সংস্থা এসটিএস গ্রুপের পরিচালক।[৪][৫]

২০০৮ সালের নবম, ২০১৪ সালের দশম ও ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে রংপুর-৪ (পীরগাছা-কাউনিয়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[৬][৭][৮] নবম জাতীয় সংসদে তিনি বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন। ৭ জানুয়ারি ২০১৯ সাল থেকে তিনি শেখ হাসিনার চতুর্থ মন্ত্রিসভায় বাণিজ্য মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।[১]

২০০১ সালের অষ্টম জাতীয় নির্বাচনে তিনি তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে একই আসন থেকে পরাজিত হয়েছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "মাননীয় মন্ত্রী, জনাব টিপু মুনশি, এমপি মাননীয় মন্ত্রী,বাণিজ্য মন্ত্রণালয়"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ১৩ মে ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ মে ২০২০ 
  2. টিপু মুনশি, রংপুর-৪। "Constituency 22_10th_En"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২২ 
  3. "বাংলাদেশের রাজনীতিতে উজ্জ্বল নাম টিপু মুনশি | বাংলাদেশ প্রতিদিন"Bangladesh Pratidin। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-১৬ 
  4. "Account Suspended"www.stsholdingsbd.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-১৬ 
  5. "Curbing traffic jam: JS body formed to suggest ways"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৫-০৮-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-১৬ 
  6. "৯ম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা"জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার 
  7. "১০ম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা"জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার 
  8. "বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জানুয়ারি ১, ২০১৯" (PDF)ecs.gov.bdবাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ১ জানুয়ারি ২০১৯। ২ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৯