টনি অ্যাডামস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
টনি অ্যাডামস
Adams, Tony.jpg
২০১০ সালে অ্যাডামস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম টনি অ্যালেক্সান্ডার অ্যাডামস[১]
জন্ম (1966-10-10) ১০ অক্টোবর ১৯৬৬ (বয়স ৫৪)[১]
জন্ম স্থান লন্ডন, ইংল্যান্ড
উচ্চতা ১.৯১ মিটার (৬ ফুট ৩ ইঞ্চি)[১]
মাঠে অবস্থান রক্ষণভাগের খেলোয়াড়
যুব পর্যায়
১৯৮০–১৯৮৩ আর্সেনাল
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
১৯৮৩–২০০২ আর্সেনাল ৫০৪ (৩২)
জাতীয় দল
১৯৮৫–১৯৮৬ ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২১ (১)
১৯৮৭–২০০০ ইংল্যান্ড ৬৬ (৫)
১৯৮৯–১৯৯০ ইংল্যান্ড বি (১)
পরিচালিত দল
২০০৩–২০০৪ উইকম ওয়ান্ডারার্স
২০০৮–২০০৯ পোর্টসমাথ
২০১০–২০১১ কাবালা
২০১৭ গ্রানাদা
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে

টনি অ্যালেক্সান্ডার অ্যাডামস ওবিই (ইংরেজি: Tony Adams; জন্ম: ১০ অক্টোবর ১৯৬৬; টনি অ্যাডামস নামে সুপরিচিত) হলেন একজন ইংরেজ সাবেক পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড় এবং ম্যানেজার। ভক্তদের কাছে মিস্টার আর্সেনাল ডাকনামে পরিচিত অ্যাডামস তার খেলোয়াড়ি জীবনের পুরো সময় আর্সেনাল এবং ইংল্যান্ড জাতীয় দলের হয়ে একজন রক্ষণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেছেন। তিনি মূলত একজন কেন্দ্রীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেছেন।

১৯৮০–৮১ মৌসুমে, ইংরেজ ফুটবল ক্লাব আর্সেনালের যুব পর্যায়ের হয়ে খেলার মাধ্যমে অ্যাডামস ফুটবল জগতে প্রবেশ করেছিলেন এবং এই দলের হয়ে খেলার মাধ্যমেই তিনি ফুটবল খেলায় বিকশিত হয়েছিলেন। ১৯৮৩–৮৪ মৌসুমে, ইংরেজ ক্লাব আর্সেনালে হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি তার জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ি জীবন শুরু করেছিলেন, যেখানে তিনি ১৯ মৌসুম অতিবাহিত করেছিলেন; আর্সেনালের হয়ে তিনি ৫০৪ ম্যাচে ৩২টি গোল করেছিলেন। ২০০১–০২ মৌসুমে, তিনি আর্সেনালের হয়ে প্রায় ১৯ মৌসুম যাবত খেলার পর অবসর গ্রহণ করেছিলেন।

১৯৮৫ সালে, অ্যাডামস ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে ইংল্যান্ডের বয়সভিত্তিক পর্যায়ে অভিষেক করেছিলেন। প্রায় ২ বছর যাবত ইংল্যান্ডের বয়সভিত্তিক দলের হয়ে খেলার পর, তিনি ১৯৮৭ সালে ইংল্যান্ডের হয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিষেক করেছিলেন; ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে তিনি সর্বমোট ৬৬ ম্যাচে ৫টি গোল করেছিলেন। তিনি ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বমোট ১টি ফিফা বিশ্বকাপ (১৯৯৮) এবং ৩টি উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপে (১৯৮৮, ১৯৯৬ এবং ২০০০) অংশগ্রহণ করেছিলেন, যার মধ্যে ১৯৯৬ সালে টেরি ভেনাবলসের অধীনে উয়েফা ইউরোর সেমি-ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়েছিলেন।

খেলোয়াড়ি জীবনের ইতি টানার পর ২০০৩ সালে, অ্যাডামস ইংরেজ ফুটবল ক্লাব উইকম ওয়ান্ডারার্সের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করার মাধ্যমে ম্যানেজার হিসেবে ফুটবল জগতে অভিষেক করেন। উইকম ওয়ান্ডারার্সের হয়ে ১ মৌসুম ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করার পর তিনি প্রিমিয়ার লীগের ক্লাব পোর্টসমাথে ম্যানেজার হিসেবে যোগদান করেন। ২০১০–১১ মৌসুমে, তিনি কাবালার ম্যানেজারের দায়িত্ব গ্রহণ করেন; যেখানে তিনি ম্যানেজার হিসেবে দীর্ঘ সময় (প্রায় ২ মৌসুম) অতিবাহিত করেছেন। কাবালার হয়েই ম্যানেজার হিসেবে তিনি সেরা সময় অতিবাহিত করেছেন, যেখানে তিনি প্রায় ৩৯ শতাংশ ম্যাচ জয়লাভ করেছেন। পরবর্তীতে তিনি গ্রানাদার ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেছেন।

ব্যক্তিগতভাবে, অ্যাডামস বেশ কিছু পুরস্কার জয়লাভ করেছেন, যার মধ্যে ১৯৮৬–৮৭ মৌসুমে পিএফএ বর্ষসেরা যুব খেলোয়াড়ের পুরস্কার জয় এবং ২০০৪ সালে ইংরেজ ফুটবল হল অব ফেমে অন্তর্ভুক্তি অন্যতম। দলগতভাবে, খেলোয়াড় হিসেবে অ্যাডামস সর্বমোট ১৩টি শিরোপা জয়লাভ করেছিলেন, যার সবগুলো তিনি আর্সেনালের হয়ে জয়লাভ করেছিলেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

টনি অ্যালেক্সান্ডার অ্যাডামস ১৯৬৬ সালের ১০ই অক্টোবর তারিখে ইংল্যান্ডের লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেছেন এবং সেখানেই তার শৈশব অতিবাহিত করেছেন। তার চাচাতো ভাই স্টিভ ম্যাককেঞ্জিও একজন ফুটবল খেলোয়াড়।[২]

আন্তর্জাতিক ফুটবল[সম্পাদনা]

অ্যাডামস ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২১ এবং ইংল্যান্ড বি দলের হয়ে খেলার মাধ্যমে ইংল্যান্ডের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।[৩] ১৯৮৫ সালের ২৫শে মার্চ তারিখে তিনি ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিষেক করেছিলেন। ইংল্যান্ডের বয়সভিত্তিক দলের হয়ে তিনি প্রায় ৪ বছরে ৯ ম্যাচে অংশগ্রহণ করে ২টি গোল করেছিলেন।

১৯৮৭ সালের ১৮ই ফেব্রুয়ারি তারিখে, মাত্র ২০ বছর ৪ মাস ৮ দিন বয়সে, অ্যাডামস স্পেনের বিরুদ্ধে এক প্রীতি ম্যাচে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ইংল্যান্ডের হয়ে অভিষেক করেছিলেন।[৪] তিনি ম্যাচের মূল একাদশে অন্তর্ভুক্ত ছিলেন; ম্যাচটি ইংল্যান্ড ৪–২ গোলের ব্যবধানে জয়লাভ করেছিল।[৫] ইংল্যান্ডের হয়ে অভিষেকের বছরে অ্যাডামস সর্বমোট ৮ ম্যাচে ১টি গোল করেছিলেন। জাতীয় দলের হয়ে অভিষেকের ৮ মাস ২৫ দিন পর, ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে প্রথম গোলটি করেছিলেন; ১৯৮৭ সালের ১১ই নভেম্বর তারিখে, যুগোস্লাভিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচের ইংল্যান্ডের চতুর্থ গোলটি করার মাধ্যমে তিনি আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার প্রথম গোলটি করেছিলেন।[৬][৭] ১৯৯৪ সালের ১২ই অক্টোবর তারিখে, তিনি রোমানিয়ার বিরুদ্ধে এক প্রীতি ম্যাচে ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথমবারের মতো অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছিলেন, ম্যাচটি ১–১ গোলে ড্র হয়েছিল।[৮][৯]

অ্যাডামস ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত ১৯৯৮ ফিফা বিশ্বকাপের জন্য গ্লেন হডলের অধীনে ঘোষিত ইংল্যান্ড দলে স্থান পাওয়ার মাধ্যমে প্রথমবারের মতো ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন।[১০] ১৯৯৮ সালের ১৫ই জুন তারিখে, তিনি তিউনিসিয়ার বিরুদ্ধে গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে ফিফা বিশ্বকাপে অভিষেক করেছিলেন।[১১] উক্ত বিশ্বকাপে তিনি ৪ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছিলেন।[১২] অ্যাডামস তার খেলোয়াড়ি জীবনে মাত্র ১টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছেন।

১৯৯৮ সালের ২১শে এপ্রিল তারিখে ইংল্যান্ডের লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত পর্তুগালের বিরুদ্ধে ম্যাচে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে তিনি ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে তার ৫০তম ম্যাচ খেলেছিলেন,[১৩] ম্যাচটি ইংল্যান্ড ৩–০ গোলের ব্যবধানে জয়লাভ করেছিল, যেখানে তিনি পূর্ণ ৯০ মিনিট খেলেছিলেন।[১৪] আন্তর্জাতিক ফুটবলে, তার ১৪ বছরের খেলোয়াড়ি জীবনে তিনি সর্বমোট ৬৬ ম্যাচে ৫টি গোল করেছিলেন।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

ক্লাব[সম্পাদনা]

ক্লাব মৌসুম লীগ জাতীয় কাপ লীগ কাপ মহাদেশীয় অন্যান্য মোট
বিভাগ ম্যাচ গোল ম্যাচ গোল ম্যাচ গোল ম্যাচ গোল ম্যাচ গোল ম্যাচ গোল
আর্সেনাল ১৯৮৩–৮৪ প্রথম বিভাগ
১৯৮৪–৮৫ ১৬ ১৮
১৯৮৫–৮৬ ১০ ১০
১৯৮৬–৮৭ ৪২ ৫৫
১৯৮৭–৮৮ ৩৯ ৫১
১৯৮৮–৮৯ ৩৬ ৪৬
১৯৮৯–৯০ ৩৮ ৪৬
১৯৯০–৯১ ৩০ ৩৭
১৯৯১–৯২ ৩৫ ৪৪
১৯৯২–৯৩ প্রিমিয়ার লীগ ৩৫ ৫২
১৯৯৩–৯৪ ৩৫ ৪৯
১৯৯৪–৯৫ ২৭ ১০ ৪২
১৯৯৫–৯৬ ২১ ২৮
১৯৯৬–৯৭ ২৮ ৩৫
১৯৯৭–৯৮ ২৬ ৩৬
১৯৯৮–৯৯ ২৬ ৩৬
১৯৯৯–২০০০ ২১ ১১ ৩৩
২০০০–০১ ২৬ ৩৮
২০০১–০২ ১০ ১৩
সর্বমোট ৫০৪ ৩২ ৫৪ ৫৯ ৪৮ ৬৭২ ৪৯

আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

দল সাল ম্যাচ গোল
ইংল্যান্ড ১৯৮৭
১৯৮৮ ১১
১৯৯০
১৯৯১
১৯৯২
১৯৯৩
১৯৯৪
১৯৯৫
১৯৯৬
১৯৯৭
১৯৯৮
১৯৯৯
২০০০
সর্বমোট ৬৬

আন্তর্জাতিক গোল[সম্পাদনা]

গোল তারিখ মাঠ প্রতিপক্ষ স্কোর ফলাফল প্রতিযোগিতা সূত্র
১১ নভেম্বর ১৯৮৭ ক্রভেনে জেদজে স্টেডিয়াম, বেলগ্রেড, যুগোস্লাভিয়া  যুগোস্লাভিয়া –০ ৪–১ উয়েফা ইউরো ১৯৮৮ বাছাইপর্ব [৭]
২৩ মার্চ ১৯৮৮ ওয়েম্বলি স্টেডিয়াম, লন্ডন, ইংল্যান্ড  নেদারল্যান্ডস –২ ২–২ প্রীতি ম্যাচ [১৫]
১৮ জুন ১৯৮৮ ভাল্টস্টাডিওন, ফ্রাঙ্কফুর্ট, জার্মানি  সোভিয়েত ইউনিয়ন –১ ১–৩ উয়েফা ইউরো ১৯৮৮ [১৬][১৭]
১৬ নভেম্বর ১৯৮৮ কিং ফাহদ স্টেডিয়াম, রিয়াদ সৌদি আরব  সৌদি আরব –১ ১–১ প্রীতি ম্যাচ [১৮]
৩১ মে ২০০০ ওয়েম্বলি স্টেডিয়াম, লন্ডন, ইংল্যান্ড  ইউক্রেন –০ ২–০ [১৯][২০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hugman, Barry J., সম্পাদক (১৯৯৯)। The 1999–2000 Official PFA Footballers Factfile। Harpenden: Queen Anne Press। আইএসবিএন 978-1-85291-607-7 
  2. "Tony Adams, Lauren Booth, Geraldine James and Elle Macpherson share experience, strength and hopes"। nacoa.org.uk। ১৯ অক্টোবর ২০১৫। ১২ জুলাই ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০১৯ 
  3. "England's Matches the B team"। England Football Online। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০২০ 
  4. "International Friendly Match commemorating Expo'92: Spain 2 England 4"englandfootballonline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  5. "Match No. 622 - Wednesday, 18th February 1987"englandstats (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  6. "European Championship 1988 Group Four Qualification Match: Yugoslavia 1 England 4"englandfootballonline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  7. "Match No. 629 - Wednesday, 11th November 1987, 4:30pm"englandstats (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  8. "International Friendly Match: England 1 Romania 1"englandfootballonline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  9. "Match No. 707 - Wednesday, 12th October 1994, 7:00pm"englandstats (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  10. "England » Squad World Cup 1998 France"worldfootball (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  11. "1998 FIFA World Cup France™: Group Matches - Group G"ফিফা (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  12. "Tony Adams » Appearances World Cup 1998"worldfootball (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  13. "Match No. 743 - Wednesday, 22nd April 1998"englandstats (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  14. "A Green Flag International Friendly Match: England 3 Portugal 0"englandfootballonline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  15. "International Friendly Match: England 2 Netherlands 2"englandfootballonline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  16. "উয়েফা ইউরো ১৯৮৮: গ্রুপ ২ – ইংল্যান্ড বনাম সোভিয়েত ইউনিয়ন"উয়েফা (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  17. "Match No. 638 - Saturday, 18th June 1988, 3:30pm"englandstats (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  18. "Match No. 641 - Wednesday, 16th November 1988"englandstats (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  19. "Match No. 767 - Wednesday, 31st May 2000, 8:00pm"englandstats (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  20. "A Nationwide International Friendly Match: England 2 Ukraine 0"englandfootballonline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]