ঝি-বা-ব্জাং-পো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

ঝি-বা-ব্জাং-পো (ওয়াইলি: zhi ba bzang po) (১৬২৫-১৭১৭) তিব্বতী বৌদ্ধধর্মের দ্গে-লুগ্স ধর্মসম্প্রদায়ের তৃতীয় ঝি-বা-ল্হা (ওয়াইলি: zhi ba lha) উপাধিধারী বৌদ্ধ লামা ছিলেন। তিনি তিব্বতের খাম্স অঞ্চলে অবস্থিত ছাব-ম্দো-ছোস-'খোর-ব্যাম্স-পা-গ্লিং বৌদ্ধবিহারের (ওয়াইলি: chab mdo chos 'khor byams pa gling) অষ্টাদশ প্রধান ছিলেন।

সংক্ষিপ্ত জীবনী[সম্পাদনা]

ঝি-বা-ব্জাং-পো ১৬২৫ খ্রিষ্টাব্দে তিব্বতের কোং-পো-দ্গোন-ফুগ (ওয়াইলি: kong po dgon phug) নামক স্থানে জন্মগ্রহন করেন। তাঁর পিতার নাম ছিল নাম-ম্খা'-ব্ক্রা-শিস (ওয়াইলি: nam mkha' bkra shis) এবং মাতার নাম ছিল ম্ত্শো-মো (ওয়াইলি: mtsho mo)। তেরো বছর বয়স শাক্য ল্হা-দ্বাং (ওয়াইলি: shA kya lha dbang) নামক ফান-ব্দে (ওয়াইলি: phan bde) বৌদ্ধবিহারের প্রধান তাঁকে শিক্ষার্থীর শপথ প্রদান করেন এবং যমান্তক, হেরুকা, ছেদ সাধনা প্রভৃতি বিভিন্ন তান্ত্রিক বিষয়ে শিক্ষাপ্রদান করেন। ঙ্গাগ-দ্বাং-'ফ্রিন-লাস-ব্জাং-পো (ওয়াইলি: ngag dbang 'phrin las bzang po) নামক চতুর্থ ল্চাগ্স-রা-স্প্রুল-স্কু (ওয়াইলি: lcags ra sprul sku) এবং ঙ্গাগ-দ্বাং-ছোস-ক্যি-দ্বাং-ফ্যুগ (ওয়াইলি: ngag dbang chos kyi dbang phyug) নামক পঞ্চম র্তা-ত্শাগ-র্জে-দ্রুং উপাধিধারী বৌদ্ধ লামা তাঁর অন্যান্য উল্লেখযোগ্য শিক্ষক ছিলেন। সতেরো বছর বয়সে তিনি ছাব-ম্দো-ছোস-'খোর-ব্যাম্স-পা-গ্লিং বৌদ্ধবিহারে যাত্রা করেন যেখানে ঐ বিহারের ষোড়শ প্রধান ছোস-ক্যি-র্গ্যাল-পো (ওয়াইলি: chos kyi rgyal po) নামক চতুর্থ 'ফাগ্স-পা-ল্হা (ওয়াইলি: 'phags pa lha) উপাধিধারী বৌদ্ধ লামা তাঁকে শিক্ষা প্রদান করেন। ১৬৪৩ খ্রিষ্টাব্দে ছোস-ক্যি-র্গ্যাল-পো মৃত্যুবরণ করলে তিনি ঐ বিহারের অষ্টাদশ প্রধানের দায়িত্ব লাভ করেন। এরপর তিনি মধ্য তিব্বত যাত্রা করলে চতুর্থ পাঞ্চেন লামা তাঁকে ভিক্ষুর শপথ প্রদান করেন। তিনি সাততলা উচ্চ একটি বিশালাকার মৈত্রেয়ের চিত্রকলা ও একটি একতলা উচ্চ অমিতাভ বুদ্ধের স্বর্ণমূর্তি নির্মাণ করান এবং ছাব-ম্দো-ছোস-'খোর-ব্যাম্স-পা-গ্লিং বৌদ্ধবিহারে প্রভূত সংস্কার সাধন করেন। তিনি পঞ্চম 'ফাগ্স-পা-ল্হা (ওয়াইলি: 'phags pa lha) উপাধিধারী বৌদ্ধ লামা হিসেবে র্গ্যাল-বা-র্গ্যা-ম্ত্শোকে চিহ্নিত করে তাঁকে ছাব-ম্দো-ছোস-'খোর-ব্যাম্স-পা-গ্লিং বৌদ্ধবিহারে নিয়ে এসে শিক্ষা প্রদান করেন। এবং ঐ বিহারের পরবর্তী প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করেন। ১৬৫৯ খ্রিষ্টাব্দে তিনি পুনরায় মধ্য তিব্বত যাত্রা করেন। এই সময় তিনি পঞ্চম দলাই লামা এবং দ্কোন-ম্ছোগ-ছোস-ব্জাং নামক উনচল্লিশতম দ্গা'-ল্দান-খ্রি-পার নিকট যমান্তক ও লাম-রিম সম্বন্ধে শিক্ষালাভ করেন। ১৬৬২ খ্রিষ্টাব্দে তিনি ছাব-ম্দো-ছোস-'খোর-ব্যাম্স-পা-গ্লিং বৌদ্ধবিহারে সম্পূর্ণ দায়িত্ব র্গ্যাল-বা-র্গ্যা-ম্ত্শোকে অর্পণ করে জীবনের বাকি সময় বিভিন্ন স্থানে সাধনা করে কাটান।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Chhosphel, Samten (জুলাই ২০১০)। "The Third Zhiwa Lha, Zhiwa Zangpo"The Treasury of Lives: Biographies of Himalayan Religious Masters। সংগৃহীত ২০১৪-০৭-১০ 
পূর্বসূরী
সাংস-র্গ্যাস-'ব্যুং-গ্নাস
ঝি-বা-ব্জাং-পো
তৃতীয় ঝি-বা-ল্হা
উত্তরসূরী
'ফাগ্স-পা-দ্গে-লেগ্স-র্গ্যাল-ম্ত্শান
পূর্বসূরী
ঙ্গাগ-দ্বাং-'ফ্রিন-লাস-ব্জাং-পো
ঝি-বা-ব্জাং-পো
ছাব-ম্দো-ছোস-'খোর-ব্যাম্স-পা-গ্লিং বৌদ্ধবিহারের অষ্টাদশ প্রধান
উত্তরসূরী
র্গ্যাল-বা-র্গ্যা-ম্ত্শো