জ্যোৎস্না শ্রীকান্ত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জ্যোৎস্না শ্রীকান্ত
Jyotsna Srikanth.jpg
সরাসরি কনসার্ট, ২০১১
জন্ম
জাতীয়তাভারত
পরিচিতির কারণকর্ণাটকী সংগীত, পাশ্চাত্য সঙ্গীত

জ্যোৎস্না শ্রীকান্ত একজন ভারতীয় বেহালা বাদক এবং সুরকার, কর্ণাটকী সংগীত এবং পাশ্চাত্য শাস্ত্রীয় সংগীতের একজন পরিবেশক।

জীবনের প্রথমার্ধ[সম্পাদনা]

জ্যোৎস্না শ্রীকান্ত ভারতের বেঙ্গালুরুতে এক অন্ধ্র সংগীত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তাঁর মা রত্না শ্রীকান্তাইয়া একজন কর্ণাটকী সংগীতশিল্পী এবং শিক্ষক। [১]

সঙ্গীত জীবন[সম্পাদনা]

প্রশিক্ষণ[সম্পাদনা]

জ্যোৎস্নার সংগীতের প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছিল পাঁচ বছর বয়সে, মায়ের কাছে, কর্ণাটকী কন্ঠসঙ্গীত দিয়ে। [২] শিক্ষণের কর্মসূচী ছিল খুব কঠোর, প্রতিদিন ছয় ঘণ্টা করে অনুশীলন করতে হত এবং উৎসবের সময়ে সঙ্গীতানুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে হত। [১]

ছয় বছর বয়সে, তিনি শিল্পবিশারদ পণ্ডিত কুননাকুদি বৈদ্যনাথনের একটি বেহালার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এরপরেই এই বাদ্যযন্ত্রটির প্রতি তাঁর আগ্রহ বাড়ে। তিনি ভারতীয় ধ্রুপদী বেহালার চূড়ামণি আর আর কেশবমূর্তি অধীনে প্রশিক্ষণ শুরু করেছিলেন। [৩] তাঁর প্রথম একক অনুষ্ঠানটি তাঁর নয় বছর বয়সে হয়েছিল। [১]

জ্যোৎস্না সম্পূর্ণ বেহালাবাদক হওয়ার জন্য পাশ্চাত্য ধ্রুপদী ধাঁচের বেহালা শেখার প্রয়োজনীয়তাকে মান্যতা দিয়ে বেঙ্গালুরু স্কুল অফ মিউজিকে এই ধারায় তাঁর প্রশিক্ষণ শুরু করেছিলেন। আরও উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য, তিনি একক বেহালাবাদক ভি এস নরসিমহনের সাথে চেন্নাই গিয়েছিলেন। নরসিমহনে বিখ্যাত ভারতীয় সুরকার ইলাইয়ারাজার সাথে কাজ করেছিলেন।[২] জ্যোৎস্না লন্ডনের রয়্যাল স্কুল অব মিউজিক থেকে তাঁর গ্রেডিং অর্জন করেছেন। [৩]

পেশা[সম্পাদনা]

জ্যোৎস্না প্রথম চলচ্চিত্র সংগীতে এসেছিলেন, হামসালেখা এবং ইলাইয়ারাজার মতো চলচ্চিত্র সুরকারদের পরিচালনায় বেহালা বাজিয়ে। [২] তাঁর হিসাবমত, তিনি প্রায় দুই শতাধিক দক্ষিণ ভারতীয় ছবিতে বেহালা বাজিয়েছেন। [৪]

বিবাহের পর তিনি লন্ডন চলে আসেন। সেখানে তিনি সংগীত বিষয়ক কাজ বাড়িয়ে দেন। তথ্যচিত্র (ডিসকভারি এবং ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক চ্যানেলে), দূরদর্শন ধারাবাহিকে অংশগ্রহণ করার পাশাপাশি, বিশ্ব সংগীতের বিভিন্ন সূচী যেমন ওমেড (বিশ্ব সংগীত, শিল্প ও নৃত্য), রেড ভায়োলিন উৎসব, ক্লিভল্যান্ড সংগীত উৎসব এবং বিবিসি প্রমস অনুষ্ঠানেও অংশ নেন।

জ্যোৎস্না জাজ এবং একীভূত সঙ্গীতও (ফিউশন) সম্পাদন করেন এবং ফিউশন ড্রিমস নামে একটি দল স্থাপন করেন। [২] তিনি শাস্ত্রীয় গিটারবাদক সাইমন থ্যাকার ও ফ্লামেনকো/জাজ গিটারিস্ট এডুয়ার্ডো নিবলার পাশাপাশি ফাদো স্যাক্সোফোনিস্ট রাও কিয়াওয়ের সাথেও কাজ করেছেন।

জ্যোৎস্না কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় এবং লিভারপুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভারতীয় এবং পাশ্চাত্য ধ্রুপদী বেহালার মধ্যে তুলনামূলক কৌশল নিয়ে বক্তৃতা দিয়েছেন। [৩]

তিনি উঠতি ভারতীয় শিল্পীদের যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠান করতে সহায়তা করার জন্য ধ্রুব নামে একটি সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন,[৩] পাশাপাশি দাতব্য প্রতিষ্ঠানের জন্য তহবিল সংগ্রহ করেছেন। [৫]

২০১২ সালে, তিনি লন্ডন আন্তর্জাতিক আর্টস উৎসবের আয়োজন করেন। সেখানে কর্ণাটকী, ফিউশন, লোক এবং বলকান সংগীতের অনুষ্ঠানের আয়োজনের পাশাপাশি সাইপ্রাস এবং ভারতীয় নৃত্য পরিবেশনার অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করেছিলেন। [১]

জ্যোৎস্না তাঁর কর্ণাটকী সঙ্গীত জীবনে একক কণ্ঠশিল্পী হিসাবে গান গেয়েছেন। সহযোগী হিসাবে যাঁদের সাথে তিনি কাজ করেছেন তাঁদের মধ্যে আছেন ডাঃ এম বালমুরালিকৃষ্ণ,[৬] কাদ্রি গোপালনাথ,[৭] চিত্রবীণা রবিকিরণ, রঞ্জনী -গায়ত্রী, সুধা রঘুনাথন, জয়ন্তী কুমারেশ, সঞ্জয় সুব্রহ্মণ্যম, নিত্যশ্রী মহাদেবন, আর কে শ্রীকান্তন এবং অরুণা সায়রাম[৮]

শ্রীকান্ত নিম্নলিখিত ভারতীয় সুরকারদের মধ্যে বিশেষজ্ঞ: ত্যাগরাজ, পুরন্দর দাসারু, পাপানাসাম সিভান, অন্নমাচার্য্য, মুথুস্বামী দিক্ষিতার, শ্যামা শাস্ত্রী এবং মহীশূর বাশুদেবাচর। জ্যোৎস্না লন্ডন আন্তর্জাতিক আর্টস উৎসবের আয়োজক এবং তিনি যুক্তরাজ্যের ধ্রুব আর্টসের শৈল্পিক পরিচালক।

প্রশংসা[সম্পাদনা]

জ্যোৎস্নার বেহালা বাজানো এবং সঙ্গীত শৈলী "আশ্চর্যজনক" হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে। [৯]

২০০৮ সালে তিনি লন্ডনের ট্রিনিটি কলেজ অফ মিউজিক থেকে কর্ণাটকী সংগীতে ফেলোশিপ পেয়েছেন। [৪]

বিবিসি প্রমস কনসার্টে

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

জ্যোৎস্না একজন অনুশীলনকারী রোগবিদ্যাবিৎ, তিনি ভারতের বেঙ্গালুরু মেডিকেল কলেজ থেকে ক্লিনিকাল প্যাথলজিতে এমবিবিএস এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তিনি কে ভি শ্রীকান্ত শর্মার সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন, তাঁদের দুটি সন্তান রয়েছে। তাঁরা লন্ডনে থাকেন।

ডিস্ক[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Nivedita K G (৫ নভেম্বর ২০১২)। "Re-inventing the wheel"The New Indian Express। Bangalore। 
  2. Geetha Srinivasan (৮ ডিসেম্বর ২০০৭)। "Stringing passion and profession!"Deccan Herald। ২২ মার্চ ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১২ 
  3. Geetha Srinivasan (৮ এপ্রিল ২০১১)। "East meets west"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১২ 
  4. Aruna Chandaraju (১৬ জানুয়ারি ২০১১)। "Stringing it right"Bangalore Mirror। ১৮ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১২ 
  5. "Enriching Melody"Deccan Herald। ১১ এপ্রিল ২০১১। 
  6. "Balamuralikrishna flips 81, says he's 18"The Times of India। ৭ জানুয়ারি ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১২ 
  7. "Darbar Festival 2011, Episode 2"। BBC Radio 3। ২০১১। 
  8. "Festival at a glance" (PDF)Darbar Festival। ২০১২। 
  9. Michael Church (২৮ জুলাই ২০১১)। "BBC Proms 16/17: BBC NOW/Fischer/Arditti/World Routes Academy, Royal Albert Hall (3/5, 4/5)"The Independent। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১২ 

বাহ্যিক লিঙ্কগুলি[সম্পাদনা]