জ্যোতি ভারতী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

জ্যোতি ভারতী বা পকী (অসমীয়া: জ্যোতি ভারতী) হচ্ছে জ্যোতিপ্রসাদ আগরওয়ালার পিতৃগৃহ যা অসমের তেজপুরে অবস্থিত। মহাত্মা গান্ধী, মোতীলাল নেহেরু, জওহরলাল নেহেরুর মত বিখ্যাত ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামীরা জ্যোতি ভারতীতে পদার্পণ করেছেন। জ্যোতি ভারতীর স্থাপত্য বা নির্মাণশৈলী রাজস্থানী ও আহোম যুগের সংমিশ্রনে গড়ে উঠেছে। এখানেই প্রথম অসমীয়া চলচ্চিত্র জয়মতী নির্মাণ করা হয়েছিল।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৭৮ সনে জ্যোতিপ্রসাদ আগরওয়ালার পিতামহ হরিবিলাস আগরওয়ালা নির্মাণ করা গৃহটির নাম ছিল পকী। কিন্তু ১৯৭৭ সনের ১৭ জানুয়ারী তারিখে অসম সরকার ৪লক্ষ টাকার বিনিময়ে পকী গৃহটি অধিগ্রহণ করে সরকারীকরন করে। পরবর্তী সময়ে অসম সরকার পকীকে ব্যক্তিগত বাসগৃহ থেকে জ্যোতিভারতী নামে নামকরণ করে এক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে রুপান্তরিত করে।১৯৫১ সনের ১৭ জানুয়ারি তারিখে জ্যোতিপ্রসাদ আগরওয়ালা এখানেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

জ্যোতি ভারতীর সন্মূখের দৃশ্য

জ্যোতি ভারতীতে অবস্থিত বিভিন্ন সামগ্রী[সম্পাদনা]

জ্যোতি ভারতীতে জ্যোতিপ্রসাদ আগরওয়ালার স্মৃতিচিহ্ন স্বরুপ বিভিন্ন বস্তু সংরক্ষণ করা হয়েছে যেমন- জ্যোতিপ্রসাদ আগরওয়ালার গীতের গ্রামোফোন রেকর্ড, তার হাতের লেখা কাগজ, বিভিন্ন তথ্য-পাতি ইত্যাদি। জ্যোতি ভারতী সংগ্রহালয়ে বিষ্ণুপ্রসাদ রাভার শৈশবের আলোকচিত্র, নটসুর্য ফণী শর্মা ও নৃত্যশিল্পী শোণিত কোয়র গজেন বরুয়ার আলোকচিত্র এবং জ্যোতিপ্রসাদ আগরওয়ালার মাতৃ কিরণময়ী আগরওয়ালার গয়না সংরক্ষণ করা হয়েছে।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

  1. বিশ্ব ঐতিহ্য, শান্তনু কৌশিক বরুৱা