জ্যাক রুডল্‌ফ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জ্যাক রুডল্‌ফ
Jacques Rudolph2.jpg
২০০৮ সালে ইয়র্কশায়ার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার গ্রহণকালে রুডল্‌ফ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজ্যাকোবাস আন্দ্রিজ রুডল্‌ফ
জন্ম (1981-05-04) ৪ মে ১৯৮১ (বয়স ৩৮)
স্প্রিংস, ট্রান্সভাল প্রদেশ,
দক্ষিণ আফ্রিকা
ডাকনামরুডি
উচ্চতা৫ ফুট ১১ ইঞ্চি (১.৮০ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি লেগ ব্রেক
ভূমিকাব্যাটসম্যান
সম্পর্কজিজে রুডল্‌ফ (ভাই)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৮৯)
২৪ এপ্রিল ২০০৩ বনাম বাংলাদেশ
শেষ টেস্ট২২ নভেম্বর ২০১২ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৭৪)
১৩ এপ্রিল ২০০৩ বনাম ভারত
শেষ ওডিআই৫ ফেব্রুয়ারি ২০০৬ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই শার্ট নং২৭
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯৭-২০০৪নর্দার্ন্স
২০০৪-২০০৫টাইটান্স
২০০৫-২০০৮ঈগলস
২০০৭-২০১১ইয়র্কশায়ার
২০০৯-২০১৫টাইটান্স
২০১২সারে
২০১৩জ্যামাইকা তালাওয়াস
২০১৪-বর্তমানগ্ল্যামারগন
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪৮ ৪৫ ২৭৩ ২৪৬
রানের সংখ্যা ২,৬২২ ১,১৭৪ ১৮,৭৫৫ ৯,৭৪৭
ব্যাটিং গড় ৩৫.৪৩ ৩৫.৫৭ ৪২.৬২ ৪৮.৯৭
১০০/৫০ ৬/১১ ০/৭ ৪৯/৮৯ ১৭/৬৭
সর্বোচ্চ রান ২২২* ৮১ ২২৮* ১৬৯*
বল করেছে ৬৬৪ ২৪ ৪,৭৭৭ ৪৭০
উইকেট ৬১ ১৩
বোলিং গড় ১০৮.০০ ৪৪.০৬ ৩৪.৬৯
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ১/১ ৫/৮০ ৪/৪১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২৯/– ১১/– ২৩৫/– ৮৮/–
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ, ২৬ মে ২০১৬

জ্যাকোবাস আন্দ্রিজ জ্যাকুয়েস রুডল্‌ফ (ইংরেজি: Jacques Rudolph; জন্ম: ৪ মে, ১৯৮১) ট্রান্সভাল প্রদেশের স্প্রিংস এলাকায় জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথিতযশা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে গ্ল্যামারগনটাইটান্সের পক্ষে খেলছেন জ্যাক রুডল্‌ফ

প্রিটোরিয়ায় অবস্থিত জনপ্রিয় ও সুপরিচিত সরকারী আফ্রিকান্স হোয়ের সিউনস্কুলে অধ্যয়ন করেছেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

২০০৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট দলে খেলার জন্য মনোনীত হন। এরপূর্বে ২০০২ সালে সিডনিতে অনুষ্ঠিত নববর্ষের টেস্টে তাকে দলে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে বিতর্কের সূত্রপাত ঘটে। অ-শ্বেতাঙ্গদের কোটা প্রথাকে অস্বীকার করে তাকে দলে নেয়া হয়। পরবর্তীতে জাস্টিন অনটং তার স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন। তবে, দল নির্বাচকমণ্ডলী ঘরোয়া ক্রিকেটে তার ক্রীড়াশৈলীর দিকে নজর রাখছিলেন।

বাংলাদেশের বিপক্ষে তার টেস্টে অভিষেক ঘটে। ঐ খেলায় তিনি ২২২* রানে অপরাজিত থাকেন যা তার প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ সংগ্রহ। ২০১৩ সাল পর্যন্ত এ সংগ্রহটি যেকোনো বামহাতি ব্যাটসম্যানের মধ্যে সর্বোচ্চ। এরফলে নিউজিল্যান্ডীয় হামিশ রাদারফোর্ডের ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করা ১৭১ রানের রেকর্ডটি ম্লান হয়ে যায়। এ সময় তিনি বোয়েতা ডিপেনারের সাথে ৪২৯ রানের অপরাজিত জুটি গড়েন। চট্টগ্রাম টেস্টে এ জুটি তৃতীয় উইকেটে নতুন দক্ষিণ আফ্রিকান রেকর্ড সৃষ্টি করে ও অভিষেকে কোন ক্রিকেটারের সর্বোচ্চ সংগ্রহ।[১]

ডিসেম্বর, ২০০৫ সালে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পার্থ টেস্টে অপরাজিত ১০২* রান তুলে দলকে সমূহ পরাজয় থেকে ড্রয়ের দিকে নিয়ে যান। অক্টোবর, ২০১১ সালে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজে অংশ নেয়ার জন্য তাকে টেস্ট দলের সদস্য মনোনীত করা হয়েছিল।[২]

কাউন্টি ক্রিকেট[সম্পাদনা]

ইয়র্কশায়ারের পক্ষে ৩ বছর মেয়াদে কোলপ্যাক ক্রিকেটার হিসেবে খেলার সুযোগ লাভের পর দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে খেলতে অস্বীকৃতি জানান।[৩] তিনি মন্তব্য করেন যে, দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতিনিধিত্ব আর করবেন না। তিনি আশাবাদী যে, বাসস্থানের সূত্র ধরে ইংল্যান্ডের প্রতিনিধিত্ব করবেন। সেলক্ষ্যে বাড়ী কেনার সিদ্ধান্তে উপনীত হন ও ইয়র্কশায়ারে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে থাকেন।[৪]

২০০৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেট কর্তৃক বর্ষসেরা ক্রিকেটাররূপে মনোনীত হন তিনি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ask Steven"Cricinfo 
  2. "Rudolph returns to Proteas fold"www.ecb.co.uk। ২২ অক্টোবর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. Rudolph Pledges Commitment to Yorkshire ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৮ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে. Yorkshire CCC. Retrieved on 18 April 2007
  4. "Rudolph considers England future"। BBC Sport। ২৬ অক্টোবর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১০-২৮ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]