জ্বরাসুর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জ্বরাসুর
জ্বর-দেবতা
Jwarhareshwor Statue at Gokarneshwor Mahadev Temple Premises, Gokarna, Kathmandu.jpg
দেবনাগরীज्वारासुर
তামিল লিপিஜ்வரஷுற
অন্তর্ভুক্তিঅসুর
সঙ্গীশীতলা

জ্বরাসুর (হিন্দি: ज्वारासुर) হিন্দু পুরাণে জ্বর-দেবতা এবং শীতলা দেবী তার স্ত্রী । তিনি বাংলার লৌকিক দেবতা।জ্বররোগ নাশক রূপে পূজিত বিচিত্র দেবতা জ্বরাসুর। অনুরূপী এই জ্বরের দেবতার সন্তুষ্টি বিধানের জন্য সুন্দরবন তথা বাংলার লোকসমাজ এর পূজা করেন। জ্বরাসুর অসংখ্য থানে শীতলা, মনসা, দক্ষিণ রায়, আটেশ্বর, প্রভৃতি লৌকিক দেবদেবীর সঙ্গে পূজা পান।

মূর্তি[সম্পাদনা]

এই দেবতার দেহাবয়ব বিচিত্র ধরনের। গায়ের রঙ ঘন নীল। তিনটি মাথা, নয়টি চোখ, ছয়টি হাত ও তিনটি পা ।পাল যুগ থেকে বাংলায় শীতলা মূর্তির সঙ্গী হতে শুরু করে জ্বরাসুর। এর মূর্তি পূজার প্রচলন খুব বেশি এবং শীতলার থানে বা মন্দিরে জ্বরাসুর নিত্যপূজা পান।

পূজা[সম্পাদনা]

প্রাচীন তন্ত্রপুথিতে জ্বরাসুরের যে উল্লেখ রয়েছে, সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে গিয়েছেন সাহিত্যিক তারাদাস বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘তারানাথ তান্ত্রিক’ গ্রন্থের এক আখ্যানে তিনি বিস্তারিত লিখেছিলেন জ্বরাসুরের পূজার কথা। সে এক ভয়ঙ্কর উপচার। তিন মাথাওয়ালা জ্বরাসুরের ভয়ানক মূর্তিকে বিসর্জন দেওয়া যায় না। তার সামনে বলি দিতে হয় অগণিত ছাগল। সেই ছাগরক্ত ঢেলে গলিয়ে ফেলতে হয় জ্বরাসুরের মূর্তি। আর সেই মূর্তির খড়ের কাঠামোকে শেষ পর্যন্ত পুড়িয়ে ফেলতে হয়।

হিন্দু পুরাণে[সম্পাদনা]

এক কিংবদন্তী মতে জ্বরাসুর শিবের ধ্যান করার সময় কপালের ঘাম থেকে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং দেবতাদের জন্য হুমকি ছিলেন। একবার বিষ্ণু হয়গ্রীব অবতারে জ্বরাসুরের জ্ব‌রে পড়েন। পরে তিনি জ্বরাসুরকে হত্যা করেছিলেন।[১][২] তিনি সুদর্শন চক্র ব্যবহার করে জ্বরাসুরকে তিন টুকরা করেছিলেন। পরে জ্বরাসুর ব্রহ্মার দ্বারা পুনঃজীবিত হন। ব্রহ্মা‌ তার তিনটি অংশ যোগ করেন। কিন্তু ততদিনে তিনটি অংশের প্রতিটির মাথা ও অঙ্গ গজিয়েছিল। এতে তার তিনটি মুখ, তিন পা এবং একযোগে সব দিক থেকে যাওয়ার অসাধারণ ক্ষমতা পেয়েছিল। পরবর্তীতে তিনি শীতলা স্বামী হিসাবে নির্বাচিত হন। [১]

শীতলা-জ্ব‌রাসুর বাঙালি সংস্কৃতিতে ব্যাপক জনপ্রিয়। উল্লেখ্য, যে বাংলার মত ওড়িয়া এবং হিন্দি ভাষায় জ্বরকে জ্বর বলা হয়। [৩] আর অসুর অর্থ দানব। জ্ব‌রাসুর নামটি এই দুটি শব্দের সমন্বয় - জ্ব‌র (অর্থাত জ্বর) এবং অসুর (অর্থাৎ দৈত্য) - জ্ব‌রাসুর। জ্ব‌রাসুর মানে জ্বরের দৈত্য। জ্ব‌রাসুর যুবকের ছদ্মবেশ ধারণ করেন। তার সঙ্গী শীতলা, ব্যাপকভাবে গ্রামের লোকজন দ্বারা ভারতের উত্তর, পূর্বে বসন্ত এবং জ্বর রোগের রক্ষাকর্তা‌ হিসাবে পুজিত হন। [৪]

বৌদ্ধধর্মে[সম্পাদনা]

বাংলার বৌদ্ধ মন্ত্রযান, বজ্রযান ঐতিহ্যে জ্ব‌রাসুর রয়েছে। বৌদ্ধ সংস্কৃতিতে, জ্ব‌রাসুর কখনও কখনও রোগের বৌদ্ধ দেবী পর্ণশর্বরীর স্বামী হিসাবে বিবেচিত হন। কিছু ছবিতে এই দেবতাগুলি বৌদ্ধ দেবী এবং রোগের ধ্বংসকারী বজ্রযোগিনীর , রাগ থেকে পালাতে দূরে উড়ে যাচ্ছে দেখানো হয়। [২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]