জে. ডি. চক্রবর্তী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জে. ডি. চক্রবর্তী
JD Chakravarthy.jpg
জে. ডি. চক্রবর্তী
জন্ম
নগুলপতি শ্রীনিবাস চক্রবর্তী

(1972-04-16) ১৬ এপ্রিল ১৯৭২ (বয়স ৫০)
অন্যান্য নামজে.ডি.
মাতৃশিক্ষায়তনচৈতন্য ভারতী ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি
পেশা
  • অভিনেতা
  • পরিচালক
  • চিত্রনাট্যকার
  • প্রযোজক
  • সঙ্গীত পরিচালক
  • সঙ্গীতশিল্পী
কর্মজীবন১৯৮৯-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীঅনুকৃতি গোবিন্দ শর্মা (বি. ২০১৬)

নগুলপতি শ্রীনিবাস চক্রবর্তী, যিনি পেশাগতভাবে জে. ডি. চক্রবর্তী নামে পরিচিতি, হলেন একজন ভারতীয় অভিনেতা, চিত্রনাট্যকার, পরিচালক, প্রযোজক, সুরকার ও সঙ্গীতশিল্পী। তিনি মূলত তেলুগু চলচ্চিত্রে কাজ করে থাকেন, তবে পাশাপাশি হিন্দি, তামিল, মালয়ালমকন্নড় চলচ্চিত্রেও কাজ করেন।[১]

চক্রবর্তীর চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে রাম গোপাল বর্মার মারপিটধর্মী ব্যবসাসফল তেলুগু চলচ্চিত্র শিব (১৯৮৯) দিয়ে। এরপর এই চলচ্চিত্রের হিন্দি পুনর্নির্মাণ দিয়ে তার বলিউডে অভিষেক ঘটে। তিনি ১৯৯৮ সালে বর্মার ব্যবসাসফল সত্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন, যা ভারতের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ভারতীয় প্যানারোমা বিভাগে প্রদর্শিত হয় এবং এটি সিএনএন-আইবিএনের সর্বকালের ১০০ সেরা ভারতীয় চলচ্চিত্র তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়।[২] চক্রবর্তী এই চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য স্ক্রিন পুরস্কারের বিশেষ জুরি পুরস্কার লাভ করেন।

চক্রবর্তী সত্তরের অধিক চলচ্চিত্রে বিভিন্ন ধরনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন, তন্মধ্যে অধিকাংশই তেলুগু ও হিন্দি ভাষায় এবং স্বল্প সংখ্যক তামিল ও মালয়ালম ভাষায়। তিনি বক্স অফিসে ব্যবসাসফল নেতি সিদ্ধার্থ (১৯৯০), মানি (১৯৯৩), মানি মানি (১৯৯৫), ওয়ান বাই টু (১৯৯৩), গুলাবি (১৯৯৬), মৃগম (১৯৯৬), বোম্বে প্রিয়ুডু (১৯৯৬), অনগনগ ওকা রজু (১৯৯৭), এগিরে পাবুরাম (১৯৯৭), নেনু প্রেমিস্টা (১৯৯৭), ওয়াইফ অব ভি. বরপ্রসাদ (১৯৯৮), প্রেমাকু বেলায়ারা (১৯৯৯), পাপে না প্রণাম (২০০০), কান্নাথিল মুদামিত্তাল (২০০২), প্রেমাকু স্বাগতম (২০০২), মধ্যনম হত্যা (২০০৪), দুবাই সিনু (২০০৭), হোমাম (২০০৮), সিদ্ধম (২০০৯), জোশ (২০০৯), সর্বম (২০০৯), সমর (২০১৩), আরিমা নাম্বি (২০১৪), আইস ক্রিম ২ (২০১৪), ভাস্কর দ্য রাসকেল (২০১৬), ও শিখমণি (২০১৬) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য সুপরিচিত।[৩][৪]

তিনি হিন্দি ভাষার বাস্তু শাস্ত্র (২০০৪), আগ (২০০৭), ও ভূত রিটার্ন্স (২০১২) চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। তিনি দরওয়াজা বন্ধ রাখো (২০০৬) চলচ্চিত্র দিয়ে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। এরপর তিনি ডরনা জরুরি হ্যায়, হোমামসিদ্ধম চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

চক্রবর্তী ভারতের হায়দ্রাবাদে জন্মগ্রহণ করেন। তার মাতা কর্ণাটকী সঙ্গীতশিল্পী ও অধ্যাপক কোবেলা শান্তা এবং পিতা সূর্যনারায়ণ রাও নগুলাপতি। তিনি সেন্ট জর্জস গ্রামার স্কুলে পড়াশোনা করেন এবং চৈতন্য ভারতী ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে প্রকৌশলে স্নাতক সম্পন্ন করেন।[৫][৬] ২০১৬ সালের ১৮ই আগস্ট তিনি এক পারিবারিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে লখনউয়ের অনুকৃতি গোবিন্দ শর্মার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।[৭][৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Metro Plus Hyderabad / Personality : Rebel without a pause"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। ২৫ অক্টোবর ২০০৪। ১৪ জানুয়ারি ২০০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 
  2. "100 Years of Indian Cinema: The 100 greatest Indian films of all time"আইবিএন লাইভ (ইংরেজি ভাষায়)। ২৪ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 
  3. "Friday Review Hyderabad / Cinema : Flip side of being super cop"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। ৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৯। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 
  4. "JD ChakravarthyБ─≥s new film with Srikanth" (ইংরেজি ভাষায়)। সুপারগুডমুভিজ। ১২ ডিসেম্বর ২০১১। ১৫ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 
  5. "NATIONAL / ANDHRA PRADESH : When old memories came alive"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১০-১২-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 
  6. "Chakravarthi - Interviews in Telugu Movies" (ইংরেজি ভাষায়)। টোটাল বলিউড। ৪ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 
  7. "JD Chakravarthy and Anukrithi wedding - Photos"আইবিটাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 
  8. "JD Chakravarthy is tying the knot soon"ডেকান ক্রনিকল (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]