জেনাট সিবল হাইড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জেনাট সিবল হাইড
যেখানের শিক্ষার্থীওবারলিন কলেজ
ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলে
পেশাইউনিভার্সিটি অব উইসকনসিন, ম্যাডিসনের অধ্যাপক
পুরস্কারসাম্মানিক ডক্টরেট, ডেনিসন বিশ্ববিদ্যালয় (১৯৯৬)

জেনাট সিবল হাইড ইউনিভার্সিটি অব উইসকনসিন, ম্যাডিসনে মনোবিজ্ঞান এবং লিঙ্গ ও নারী সম্পর্কিত গবেষণায় হেলেন থম্পসন উলেলি অধ্যাপক। তিনি মানব যৌনতা, লিঙ্গ পার্থক্য, লিঙ্গ উন্নয়ন, লিঙ্গ এবং বিজ্ঞান এবং নারীবাদী তত্ত্ব বিষয়ে গবেষণার জন্য পরিচিত এবং তাকে লিঙ্গ গবেষণা ক্ষেত্রে নেতৃস্থানীয় এক শিক্ষাবিদ হিসাবে মনে করা হয়।[১]

জীবনী[সম্পাদনা]

হাইড ১৯৬৯ সালে ওবারলিন কলেজ থেকে গণিতে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলেতে তার শিক্ষা চালিয়ে যান এবং সেখানে তিনি ১৯৭২ সালে মনোবিজ্ঞানে পিএইচডি সম্পন্ন করেন। ১৯৯৬ সালে তিনি ডেনিসন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সামাজিক বিজ্ঞানে সাম্মানিক ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৮৬ সালে উইসকনসিন-ম্যাডিসন বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদের সাথে যোগদান করার আগে, হাইড বোলিং গ্রিন স্টেট ইউনিভার্সিটি (১৯৭২-১৯৭৯) এবং ডেনিসন বিশ্ববিদ্যালয়ের (১৯৭৯-১৯৮৬) মনোবিজ্ঞান বিভাগের অনুষদের সদস্য ছিলেন।

২০০৫ সালে প্রকাশিত, জেন্ডার সিমিলারিটিস হাইপথেসিস হাইডের কর্মক্ষেত্রের একটি কেন্দ্রীয় অংশ।[২][৩] এই প্রভাবশালী গবেষণায়, হাইড মেটা বিশ্লেষণের একটি গবেষণা ক্রম চালান, যেখানে দেখানো হয় অধিকাংশ মানসিক মাপকাঠিতেই পুরুষ এবং মহিলারা একইরকম, অথচ সাধারণভাবে মনে করা হয় তারা অনেকটাই আলাদা।[৪][৫]

তার সহ-লিখিত পাঠ্যপুস্তক হাফ দ্য হিউম্যান এক্সপেরিয়েন্সেস এর রয়্যালটির টাকা[৬] জেনাট হাইড স্নাতক ছাত্র গবেষণা অনুদানে যায়, যা থেকে নারীবাদী গবেষণায় ডক্টরেট করতে আসা মনোবিজ্ঞানের ছাত্ররা সাহায্য পান।[৭] আন্ডারস্ট্যান্ডিং হিউম্যান সেক্সুয়ালিটি নামক আর একটি বইয়েরও তিনি সহলেখক।[৮]

২০১৬ সালে, হাইড, আমেরিকান সাইকোলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (এপিএ) দ্বারা উপস্থাপিত আর্নেস্ট আর. হিলগার্ড লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কার পেয়েছেন[৯] এবং ২০১৮ সালে অ্যাসোসিয়েশন ফর সাইকোলজিকাল সায়েন্স থেকে জেমস ম্যাককিন ক্যাটেল ফেলো অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন।[১০] তার আগের পাওয়া পুরস্কারগুলির মধ্যে আছে সোসাইটি ফর সাইন্টিফিক স্টাডি অফ সেক্সুয়ালিটি থেকে কিনসী পুরস্কার (১৯৯২),[১১] নারী মনোবিজ্ঞানের এপিএ বিভাগ ৩৫ থেকে হেরিটেজ অ্যাওয়ার্ড (১৯৯৬),[১২] এপিএ বিভাগ ৩৫ থেকে মেন আর ফ্রম আর্থ, উইমেন আর ফ্রম আর্থ। দ্য মিডিয়া ভার্সেস সায়েন্স অন সাইকোলজিক্যাল জেন্ডার ডিফারেন্সেস বইয়ের জন্য ক্যারোলিন উড শেরিফ পুরস্কার (১৯৯৮),[১৩] মানসিক বিজ্ঞানে বিশিষ্ট পরিষেবার জন্য এপিএ পুরস্কার (২০০৮),[১৪] অ্যাসোসিয়েশন ফর উইমেন ইন সাইকোলজি থেকে নারী মনোবিজ্ঞানের পথিকৃৎ পুরস্কার (২০০৯), এবং বিশিষ্ট নেতৃত্বের জন্য উইমেন ইন সাইকোলজি পুরস্কার (২০১৪)।[১৫]

প্রকাশনা প্রতিনিধি[সম্পাদনা]

  • বার্নেট, আর. সি., অ্যান্ড হাইড, জে. এস. (২০০১)। উইমেন, মেন, ওয়ার্ক, অ্যান্ড ফ্যামিলি। অ্যান এক্সপ্যানশনিস্ট থিয়োরি। অ্যামেরিকান সাইকোলজিস্ট, ৫৬(১০), ৭৮১-৭৯৬।
  • হাইড, জে. এস. (২০০৫)। দ্য জেন্ডার সিমিলারিটিস হাইপথেসিস। অ্যামেরিকান সাইকোলজিস্ট, ৬০(৬), ৫৮১-৫৯২।
  • হাইড, জে. এস., ফেনেমা, ই., অ্যান্ড ল্যামন, এস. জে. (১৯৯০)। জেন্ডার ডিফারেন্সেস ইন ম্যাথামেটিকস পারফর্মেন্স: এ মেটা অ্যানালাইসিস। সাইকোলজিক্যাল বুলেটিন, ১০৭(২), ১৩৯-১৫৫।
  • হাইড, জে. এস., লিন্ডবার্গ, এস. এম., লিন, এম. সি., এলিস, এ., অ্যান্ড উইলিয়ামস, সি. (২০০৮)। জেন্ডার সিমিলারিটিস ক্যারেক্টারাইজ ম্যাথ পারফর্মেন্স। সায়েন্স, ৩২১, ৪৯৪-৪৯৫।
  • হাইড, জে. এস., অ্যান্ড লিন, এম. সি. (১৯৮৮)। জেন্ডার ডিফারেন্সেস ইন ভার্বাল এবিলিটি। সাইকোলজিক্যাল বুলেটিন, ১০৪(১), ৫৩-৬৯।
  • হাইড, জে. এস. অ্যান্ড মার্জ, জে. (২০০৯)। জেন্ডার, কালচার, অ্যান্ড ম্যাথ। প্রসিডিংস অফ দ্য ন্যাশানাল অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্সেজ, ১০৬, ৮৮০১-৮৮০৭।
  • ক্লিং, কে. সি., হাইড, জে. এস., শাওয়ারস, সি. জে., অ্যান্ড বাসওয়েল, বি. এন. (১৯৯৯)। জেন্ডার ডিফারেন্সেস ইন সেলফ এস্টীম: এ মেটা অ্যানালাইসিস। সাইকোলজিক্যাল বুলেটিন, ১২৫(৪), ৪৭০-৫০০।
  • ওলিভার, এম. বি., অ্যান্ড হাইড, জে. এস. (১৯৯৩)। জেন্ডার ডিফারেন্সেস ইন সেক্সুয়ালিটি: এ মেটা অ্যানালাইসিস। সাইকোলজিক্যাল বুলেটিন, ১১৪(১), ২৯-৫১।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Janet Hyde, Professor | Faculty & Staff | UW-Madison Department of Psychology | University of Wisconsin–Madison"psych.wisc.edu (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০১-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-২৮ 
  2. Hyde, Janet Shibley (২০০৫)। "The gender similarities hypothesis."। American Psychologist (ইংরেজি ভাষায়)। 60 (6): 581–592। doi:10.1037/0003-066x.60.6.581PMID 16173891 
  3. "Distinguished Publication - Association for Women in Psychology"www.awpsych.org (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  4. "Women Leaders: Janet Hyde, PhD"APA (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  5. "Men and Women: No Big Difference"APA (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  6. Shibley, Hyde, Janet (২০১২-০৭-৩১)। Half the human experience : the psychology of women। Else-Quest, Nicole. (Eighth সংস্করণ)। Belmont, CA। আইএসবিএন 978-1111833824ওসিএলসি 755698598 
  7. "Janet Hyde Graduate Student Research Grant"APA। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  8. Shibley., Hyde, Janet (২০১১)। Understanding human sexualityDeLamater, John D. (11th সংস্করণ)। New York: McGraw-Hill। আইএসবিএন 9780073382821ওসিএলসি 659023044 
  9. "2016 Division award winners"APA (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  10. "APS James McKeen Cattell Fellow Award"Association for Psychological Science (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  11. "Society for the Scientific Study of Sexuality"www.sexscience.org। ২০১১-০৮-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  12. "Heritage Award"APA। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  13. "Carolyn Wood Sherif Award"APA। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  14. "Award for Distinguished Service to Psychological Science"APA। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 
  15. "Committee on Women in Psychology Leadership Award Citations"APA (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-০৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]