জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ
Julian Assange
Julian Assange August 2014.jpg
২০১৪ সালে লন্ডনের ইকুয়েডোরিয়ান অ্যাম্বাসিতে
জন্ম (1971-07-03) ৩ জুলাই ১৯৭১ (বয়স ৫০)
জাতীয়তাঅস্ট্রেলীয়
মাতৃশিক্ষায়তনসেন্ট্রাল কুইন্সল্যান্ড ইউনিভার্সিটি
ইউনিভার্সিটি অফ মেলবোর্ন
পেশাউইকিলিকসের প্রধান নির্বাহী সম্পাদক
আদি নিবাসমেলবোর্ন, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া

জুলিয়ান পল অ্যাসাঞ্জ (ইংরেজি:Julian Paul Assange) (জন্ম: ৩ জুলাই ১৯৭১) অস্ট্রেলীয় সাংবাদিক, প্রকাশক, কম্পিউটার প্রোগ্রামার।[১][২] তিনি বহুল আলোচিত উইকিলিকস এর প্রধান নির্বাহী যা মূলত গোপন নথি প্রকাশের জন্য বিখ্যাত। ১৯ জুন ২০১২ থেকে ১১ এপ্রিল ২০১৯ পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে অবস্থিত ইকুয়েডোর দূতাবাসে রিফিউজি হিসেবে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছিলেন। বর্তমানে লন্ডন পুলিশের হেফাজতে যুক্তরাষ্ট্রের একটি মামলার আসামী হিসেবে বেলমার্শ নামক কারাগারে বন্দী আছেন। ইকুয়েডর ২৭ জুলাই ২০২১ আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করে। তথ্য গোপন ও জালিয়াতির অভিযোগে তাঁর নাগরিকত্ব বাতিল করা হয়। [৩][৪]

জীবনবৃত্তান্ত[সম্পাদনা]

[৫] অ্যাসাঞ্জ ১৯৭১ সালের ৩ জুলাই কুইনসল্যান্ডে জন্ম গ্রহণ করেন।[৬] তার জন্মদাতা পিতার নাম হচ্ছে জন সিপটন ও মাতার নাম হচ্ছে ক্রিষ্টিন। জুলিয়ান অ্যাস্যাঞ্জের দত্তক পিতার নাম ব্রেট অ্যাস্যাঞ্জ।[৭][৮] অ্যাস্যাঞ্জের ভাষ্যমতে তিনি ৫০ এর অধিক শহরে বসবাস করেছেন এবং ৩৭টি বিভিন্ন স্কুলে পড়াশুনা করেছেন।[৯]

মামলা[সম্পাদনা]

২০১০ সালের আগস্টে এক সুইডিশ নারী অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন। অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক অ্যাসাঞ্জ বরাবরই এ অভিযোগ অস্বীকার করেন। এই মামলার ‘স্ট্যাচুট অব লিমিটেশন’ অর্থাৎ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে তদন্ত ও আইনি কার্যক্রম পরিচালনার সময় শেষ হয়ে যাবে ২০২০ সালের আগস্টে। এরইমধ্যে ২০১৯ সালের ১৯ নভেম্বর ধর্ষণের অভিযোগের তদন্ত বাদ দিয়েছেন সুইডিশ প্রসিকিউটরবৃন্দ।[১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Gant, Scott (২০ ডিসেম্বর ২০১০)। "Why Julian Assange is a journalist"Salon.com (ইংরেজি ভাষায়)।  "Some commentators and government officials have confidently asserted that Assange is not a journalist".
  2. Crowley, PJ (২০১২)। "The Rise of Transparency and the Decline of Secrecy in the Age of Global and Social Media"The Penn State Journal of Law & International Affairs (ইংরেজি ভাষায়)। Penn State's School of Law and School of International Affairs। (১): ২৪৯। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ডিসেম্বর ২০১৩  "The U.S. government viewed Assange (and WikiLeaks) as a political actor, not a journalist. Ironically, so did some within WikiLeaks itself."
  3. "জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করল ইকুয়েডর"এনটিভি অনলাইন (ntvbd.com)। ঢাকা। জুলাই ২৮, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০২১ 
  4. Fleet, Maria; Cañizares, María। "UK judge denies US request to extradite Julian Assange"। CNN। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০২১ 
  5. "যুক্তরাজ্যের কুখ্যাত কারাগারে বন্দি জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ"Jugantor। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৪-২২ 
  6. "Wikileaks founder Julian Assange a born and bred Queenslander"The Courier-Mail (ইংরেজি ভাষায়)। ২৯ জুলাই ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১০ 
  7. "Assange 'Dressed as Old Woman' to Evade CIA"ABC News (Australian Broadcasting Corporation) (ইংরেজি ভাষায়)। ৩১ জানুয়ারি ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১১  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  8. "The secret life of Julian Assange" (ইংরেজি ভাষায়)। সিএনএন। ২ ডিসেম্বর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১০ 
  9. Obrist, Hans Ulrich (মে ২০১১)। "In Conversation with Julian Assange, Part I" (ইংরেজি ভাষায়)। e-flux। ৭ মে ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ মে ২০১১  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  10. BanglaNews24.com। "ধর্ষণ মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ"banglanews24.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]