জুবিলি হিলস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জুবিলি হিলস
হায়দ্রাবাদ উপনগরীয় অঞ্চল
ক্যান্সার ফাউন্ডেশন মেইন রাস্তা
ক্যান্সার ফাউন্ডেশন মেইন রাস্তা
জুবিলি হিলস তেলেঙ্গানা-এ অবস্থিত
জুবিলি হিলস
জুবিলি হিলস
জুবিলি হিলস ভারত-এ অবস্থিত
জুবিলি হিলস
জুবিলি হিলস
ভারতের তেলঙ্গানা রাজ্যে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ১৭°২৫′৫৭″ উত্তর ৭৮°২৪′২৫″ পূর্ব / ১৭.৪৩২৫° উত্তর ৭৮.৪০৭০° পূর্ব / 17.4325; 78.4070স্থানাঙ্ক: ১৭°২৫′৫৭″ উত্তর ৭৮°২৪′২৫″ পূর্ব / ১৭.৪৩২৫° উত্তর ৭৮.৪০৭০° পূর্ব / 17.4325; 78.4070
দেশ ভারত
রাজ্যতেলঙ্গানা
জেলাহায়দ্রাবাদ
মেট্রোহায়দ্রাবাদ
সরকার
 • শাসকজিএইচএমসি
ভাষাসমূহ
 • সরকারীতেলুগু, উর্দু
সময় অঞ্চলভারতীয় প্রমাণ সময় (ইউটিসি+৫:৩০)
ডাক নং৫০০০৩৩
যানবাহন নিবন্ধনTS
লোকসভা কেন্দ্রসেকেন্দ্রাবাদ
বিধানসভা কেন্দ্রজুবিলি হিলস
পরিকল্পনা সংস্থাজিএইচএমসি
নাগরিক সংস্থাজিএইচএমসি
ওয়েবসাইটtelangana.gov.in

জুবিলি হিলস হায়দ্রাবাদের পশ্চিম দিকে অবস্থিত একটি অভিজাত শহরতলি। জুবিলি হিলস ভারতের একটি অন্যতম ব্যয়বহুল বাণিজ্যিক ও আবাসিক এলাকা যেখানে এক গজ জমির দাম প্রায় ২,০০,০০০ টাকা অবধি উঠতে পারে। ২০০৫ সালে একটি ৬ একর জমি প্রায় ৩৩,৪০,০০০ টাকায় বিক্রয় করা হয়।[১] মহানগরীর তথ্য প্রযুক্তি কেন্দ্র হাইটেক্ সিটি ও অভিজাত আবাসিক এলাকা বাঞ্জারা হিলসের মাঝামাঝি জায়গায় অবস্থিত জুবিলি হিলস।[২][৩][৪]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জুবিলি হিলস নির্মাণের কল্পনা ১৯৬৩ সালে করা হয়। ১৯৬৭ সালে পদ্ম শ্রী বিজয়ী আইএএস আধিকারিক ছাল্লাগাল্লা নরসিমহনকে জুবিলি হিলসের "প্রেসিডেন্ট" রূপে কার্যকরীভাবে জায়গাটির উন্নতির দায় দায়িত্ব দেওয়া হয়। মাদ্রাজ শহরে এমন বহু পাড়ার পরিকল্পনা ও আদতে বাস্তবায়ন করার অভিজ্ঞতা থাকার দরুন নরসিমহনকে এই কাজটির জন্য সঠিক ব্যক্তি হিসেবে বিবেচনা করা হয়। জুবিলি হিলস একটি পাহাড়ি এলাকা, ৮০-র দশকের পূর্বে কোনোই উন্নয়নমূলক কাজ ঐ এলাকায় হয়নি, নরসিমহনের পরিবার জুবিলি হিলসে প্রথম বাড়ি বানিয়ে সে বাড়িতে স্থানপরিবর্তন করে থাকতে শুরু করেন ও এইভাবে জুবিলি হিলসের প্রথম বাসিন্দা হয়ে যান। তবে, ১৯৮০ এর মধ্যে জুবিলি হিলসে ৩৫০ টি ঘর বাড়ির নির্মাণ হয় এবং এর দ্বারা অঞ্চলটির উন্নয়নের সূত্রপাত ঘটে।

বাণিজ্যিক এলাকা[সম্পাদনা]

তেলুগু চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রির কেন্দ্রবিন্দু হলো জুবিলি হিলস। জুবিলি হিলসের একটি এলাকা ফিল্ম নগরে রামানাইডু ষ্টুডিওজ, পদ্মালয়া ষ্টুডিওজ, অন্নপূর্ণা ষ্টুডিওজ ইত্যাদি বহু জনপ্রিয় চলচ্চিত্র ষ্টুডিও অবস্থিত। বেশিরভাগ তেলুগু সিনেমার অভিনেতা, অভিনেত্রীদেরও ফিল্ম নাগারেই বসবাস।
শুধু চলচ্চিত্রই নয়, রাজনৈতিক তাৎপর্যও বিশাল এই এলাকাটির। তেলঙ্গানা রাজ্যের শাসক দোল তেলঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতির প্রধান কার্যালয় জুবিলি হিলসেই অবস্থিত তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাও জুবিলি হিলস অঞ্চলেই বাস করেন। রাজ্য বিভাজনের পূর্বে চন্দ্রবাবু নাইডু, বর্তমানে অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীও সপরিবারে এখানেই থাকতেন।

দেবস্থান[সম্পাদনা]

সীতা রামস্বামী মন্দির, জগন্নাথ মন্দির ও পেদ্দাম্মা মন্দির জুবিলি হিলস এলাকায় সবচেয়ে প্রখ্যাত।

আমোদপ্রমোদ[সম্পাদনা]

কাসু ব্রহ্মানন্দ রেড্ডি জাতীয় উদ্যান

পথিকরা লোটাস পন্ড ও কাসু ব্রহ্মানন্দ রেড্ডি জাতীয় উদ্যানটিকে (বা সঙ্গিক্ষেপে কেবিআর পার্ক) জগিং ও পায়চারি করার জন্য নিয়মিত ব্যবহার করে থাকেন। আমোদপ্রমোদের জন্য জুবিলি হিলস এলাকায় রয়েছে ফিল্ম নগর ক্লাব, হায়দ্রাবাদ জিমখানা ও জুবিলি হিলস আন্তর্জাতিক ক্লাব।

পরিবহণ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

জুবিলি হিলস, টিএসআরটিসি-র বাসগুলি দ্বারা শহরের প্রায় অধিকাংশ প্রান্তগুলির সাথে ভালোভাবে সংযুক্ত। নিকটতম এমএমটিএস ট্রেন স্টেশনটি হলো হাই টেক্ সিটি স্টেশন। হায়দ্রাবাদ মেট্রোর নীল-লাইন জুবিলি হিলসকে মেট্রো ব্যবস্থায় সংযোগ করেছে।[৫] অদূর ভবিষ্যতে রোড নং ৩৬ ও ৩৭ এর পেছনদিকে অত্যাধুনিক ফ্লাই-ওভার নির্মাণের কাজও আরম্ভ হতে চলেছে, এতে ট্রাফিক সমস্যার সমাধান হবার সাথেসাথেই জুবিলি হিলসকে একটি পরিবহণ কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে গড়ে উঠতে সাহায্য করবে।

লোটাস পন্ড[সম্পাদনা]

জুবিলি হিলসের একটি উল্লাস ও আরাম করার স্থান হলো লোটাস পন্ড। এটি একটি বড়ো আকারের পুকুর, যা বেশ খানিকটা জায়গা জুড়ে অবস্থিত।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]