জার্মানীতে সমকামীদের অধিকার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সমকামী অধিকার : জার্মানী
EU-Germany.svg
 জার্মানী-এর অবস্থান (গাড় সবুজ)

– ইউরোপে (হালকা সবুজ & গাড় ধূসর)
– ইউরোপীয় ইউনিয়নে (হালকা সবুজ)  –  [ব্যাখ্যা]

সমকামী অধিকার?১৯৬৮ সাল থেকে বৈধ (পূর্ব জার্মানী) এবং ১৯৬৯ (পশ্চিম জার্মানী)
সম্মতির বয়স সমান করা আছে এবং পূর্ণ সমতাকরণ করা হয় ১৯৯৪ সালে
লিঙ্গ স্বীকৃতিলিঙ্গ পরিবর্তনে ইচ্ছুক ব্যক্তিরা লিঙ্গ পরিবর্তন করতে পারবেন।[১]
সামরিক চাকরিতেসকল সমকামী, সমকামিনী এনং হিজড়াদের সামরিক বাহিনীতে ঢুকার অনুমতি আছে
বৈষম্য নিরাপত্তারাষ্ট্র জুড়ে মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চয়তা দেওয়া আছে
পারিবারিক অধিকার
সম্পর্কের স্বীকৃতি২০০১ সাল থেকে বিয়ে ছাড়া একত্রবাসের অনুমতি
২০১৭ থেকে বিয়ে করার অনুমতি
সন্তান দত্তকহ্যাঁ, দত্তক নেওয়ার অনুমতি আছে

জার্মানীতে সমকামিনী, সমকামী, উভকামী এবং হিজড়াদের অধিকারসমূহ গত কয়েক দশক ধরে উল্লেখযোগ্যভাবে বিকশিত হয়েছে। ১৯২০ এর দশকে, বার্লিনের এলজিবিটি জনগণদের সমাজ দ্বারা সহ্য করা হত এবং বারের এবং ক্লাবের ক্ষেত্রে বিশেষভাবে নির্দিষ্ট অনেক গে বার এবং গে ক্লাব খোলা ছিল।[২] জার্মান সাম্রাজ্যে (১৮৭১-১৯১৮) দুইজন পুরুষের মধ্যে যৌনসম্পর্ক স্থাপন করা অবৈধ করা হয়, নাৎসি জার্মানীর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় এই আইনগুলি সম্প্রসারিত হয়েছিল, যার ফলে হাজার হাজার সমকামী নাগরিকের নির্যাতন ও মৃত্যু ঘটেছিল। ১৯৫০ সালে নাৎসি এক্সটেনশনগুলি বাতিল করা হয় এবং ১৯৬৮ ও ১৯৬৯ সালে যথাক্রমে পূর্ব ও পশ্চিম জার্মানী উভয় রাষ্ট্রে সমলিঙ্গের যৌন সম্পর্ক বৈধ করা হয়। ১৯৯৪ সালে সংযুক্ত পূর্ব এবং পশ্চিম জার্মানীতে দৈহিক মিলন করার নুনতম বয়স চালু করা হয়।

সম-লিঙ্গের মানুষের মধ্যে বিয়ে ১ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে আইনগতভাবে বৈধ করা হয়, ঐ বছরেরই ৩০ জুন জার্মান পার্লামেন্টে সমকামী যুগলদেরকে পূর্ণ বিয়ে করার স্বাধীনতা এবং বাচ্চা দত্তক নেওয়ার অধিকার দেওয়া বিষয়ক একটি আইন পাশ করা হয় (অনুমোদন দেওয়া হয়)।[৩] এর আগে সমকামী যুগলদের জন্য ২০০১ সালে করা 'রেজিস্টার্ড পার্টনারশীপ' বা বিয়ে ছাড়াই একত্রবাসের অনুমতি ছিল, এই আইন অনুযায়ী সমকামী যুগলরা পূর্ণভাবে বিয়ে করতে না পারলেও বিয়ের মত সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারত। ২০০৫ সালের একটি আইনে সম-লিঙ্গের যুগলদের জন্য নামঠিকানাহীন বা পরিত্যাক্ত বাচ্চা দত্তক নেওয়ার বিধান ছিল যেটি ২০১৩ সালে সংশোধন করে যে কোনো ধরণের বাচ্চাদের ক্ষেত্রে করা হয়।[৪] জার্মানীর সমাজে সমকামীদের কোনোভাবে হেয় করা যাবেনা এরূপ বিধান থাকলেও সব জায়গাতে একই রকম জিনিশ হয়না, তবে পণ্য এবং যে কোনো সেবাদানের ক্ষেত্রে সমকামবিরোধী বৈষম্য সহ্য করা হয়না, এ ব্যাপারে আইন শক্ত সারা দেশজুড়ে। ১৯৮০ সাল থেকে একজন মানুষকে তার লিঙ্গ পরিবর্তনের অনুমতি দেওয়া হয় তবে তাদের পাসপোর্টে 'পরিবর্তিত লিঙ্গ' লেখতে হত যা পরে বাতিল করা হয়েছিল ঐ সময়েই।[৫]

জার্মানীকে সবসময়ই অন্যতম সমকামী-বান্ধব রাষ্ট্র ধরা হয়।[৬][৭] জার্মানীর অধিকাংশ মানুষই সম-লিঙ্গের মানুষের মধ্যে বিয়ে হওয়াটাকে সমর্থন করে।[৮][৯][১০] বার্লিন শহরকে বিশ্বের সবচেয়ে সমকামী-বান্ধব রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে একটা ধরা হয়।[১১] বার্লিন শহরের মেয়র ক্লজ ভভারেট[১২] (মেয়রঃ ২০০১ - ২০১৪), হামবুর্গ শহরের মেয়র ওলে ভন বেউস্ত[১৩] (মেয়রঃ ২০০১ - ২০১০), সাবেক অর্থসচিব জেন্স স্পান[১৪], ২০০৯ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত জার্মান সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পূর্ণ মন্ত্রী (পররাষ্ট্রমন্ত্রী) গাইডো ভেস্টারভেলে সমকামী ছিলেন।[১৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Prerequisites for the statutory recognition of transsexuals according to § 8.1 nos. 3 and 4 of the Transsexuals Act are unconstitutional" (PDF) 
  2. Ginn, H. Lucas (১৯৯৫-১০-১২)। "Gay Culture Flourished In Pre-Nazi Germany"Update, Southern California's gay and lesbian weekly newspaper। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৫-২৬ 
  3. "Germany's Bundestag passes bill on same-sex marriage"Deutsche Welle। ৩০ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৭ 
  4. "German court expands adoption rights of gay couples"Reuters। ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৭ 
  5. "ERT Notes Steps Taken Around the World Recognising the Gender Identity of Gender Variant Persons"Equal Rights Trust। ১৪ ডিসেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৭ 
  6. Rebecca Baird-Remba (২৩ মার্চ ২০১৩)। "World's Most Gay Friendly Countries"Business Insider। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৭ 
  7. "The 20 most and least gay-friendly countries in the world"। GlobalPost। ২৬ জুন ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৭ 
  8. "Enquête sur la droitisation des opinions publiques européennes" [Survey of the European public about changes in law] (PDF)IFOP Département Opinion et Stratégies d'Entreprise (ফরাসি ভাষায়)। Institut français d'opinion publique। ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মে ২০১৫ 
  9. "Same-Sex Marriage Citizens in 16 Countries Assess Their Views on Same-Sex Marriage for a Total Global Perspective"। ১৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৭ 
  10. "The Most Gay-Friendly Country in the World is... - Spain, followed by Germany, Czech Republic, and Canada, new study finds"। Newser.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১১-০২ 
  11. Marcus Field (১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৮)। "The ten best places in the world to be gay"The Independent। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৭Berlin. It may have taken 75 years, but the German capital once again enjoys the kind of open gay scene that Christopher Isherwood described so evocatively in his 1939 memoir Goodbye to Berlin. Perhaps the painful period of Nazi rule and division makes the city even more attractive to people with alternative lifestyles - you have to be unconventional to want to live here. The magnificently restored 19th-century buildings, the grand boulevards and the famous park and woodlands make the perfect backdrop for queer culture. A former mayor of Berlin is gay, the Kit Kat club still exists, and Europe's first exclusively gay old people's home - the Asta Nielsen Haus - opened in the city this year. 
  12. William Lee Adams (১৮ জানুয়ারি ২০১০)। "Europe's Gay Leaders: Out at the Top"Time। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১০-২০ 
  13. "Die CSD-Parade ist wichtig für die ganze Welt" (German ভাষায়)। Die Welt। ২০০৯-০৮-১০। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৮-৩০ 
  14. Stefan Wagstyl (December 7, 2014), Political upstart challenges Germany’s greying leaders Financial Times.
  15. Lidia Kelly (4 March 2012), Belarus's Lukashenko: "Better a dictator than gay" Reuters.