জামাল খাসোগি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জামাল খাসোগি
Jamal Khashoggi in March 2018 (cropped).jpg
২০১৮ সালে জামাল খাসোগি
জন্ম
জামাল আহমেদ খাসোগি

(১৯৫৮-১০-১৩)১৩ অক্টোবর ১৯৫৮[১]
মৃত্যু২ অক্টোবর ২০১৮(2018-10-02) (বয়স ৫৯)[২]
সৌদি আরবের কনস্যুলেট
ইস্তাম্বুল, তুরস্ক
বাসস্থানমার্কিন যুক্তরাষ্ট্র[৩]
জাতীয়তাসৌদি
যেখানের শিক্ষার্থীইন্ডিয়ানা স্টেট ইউনিভার্সিটি
পেশাসাংবাদিক, কলাম লেখক
সঙ্গীহাতিস চেঙ্গিস, বাগ্দত্তা (২০১৮)
ওয়েবসাইটjamalkhashoggi.com

জামাল খাসোগি (আরবি: جمال خاشقجي‎‎ Jamāl Khāshuqjī, Hejazi: [ʒaˈmaːl χaːˈʃoɡʒi] ৩১ অক্টোবর ১৯৫৮ - ২ অক্টোবর ২০১৮) ছিলেন একজন সৌদি সাংবাদিক,[৪] লেখক এবং আল-আরক নিউজ চ্যানেলের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক।[৫] এছাড়াও তিনি সৌদি আরবের সংবাদপত্র আল ওয়াতানের সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।[৬]

খাসোগি ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে সৌদি আরব ত্যাগ করেন এবং স্ব-নির্বাসন জীবন শুরু করেন। তিনি বলেছিলেন যে, সৌদি আরব সরকার তার টুইটার একাউন্ট নিষিদ্ধ করে দিয়েছে[৭] এবং পরবর্তীতে তিনি সৌদি আরব সরকারের সমালোচনা করে সংবাদপত্রে প্রতিবেদনও প্রকাশ করেছেন। বিশেষ করে খাসোগি সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমান এবং দেশটির বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজের সমালোচক ছিলেন। এছাড়াও তিনি সৌদি নেতৃত্বাধীন ইয়েমেনে হামলারও বিরোধী ছিলেন।[৮]

২রা অক্টোবর ২০১৮ সালে খাসোগি তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি আরবের কনস্যুলেটে প্রবেশ করেন কিন্তু এরপর আর বের হয়ে আসেননি।[৯] পরবর্তীতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদপত্রে প্রতিবেদন প্রকাশ হতে থাকে যে, তাকে কনস্যুলেটের ভেতর হত্যা করা হয়েছে। ১৫ই অক্টোবর তুর্কি কর্তৃপক্ষ সৌদি আরব কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমে কনস্যুলেটে তল্লাশি কার্যক্রম পরিচালনা করে। প্রাথমিকভাবে সৌদি সরকার বিভিন্ন মাধ্যমে প্রাকাশিত হত্যাকাণ্ডের খবর অস্বীকার করে কিন্তু ২০শে অক্টোবর তারা স্বীকার করে নেয় যে, তিনি খাসোগি কনস্যুলেটের ভেতর মৃত্যুবরণ করেছেন।[১০] কারণ হিসেবে তারা উল্লেখ করেন, খাসোগি ও কনস্যুলেটের কর্মকর্তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।[১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hubbard, Ben; Gladstone, Rick; Landler, Mark (১৬ অক্টোবর ২০১৮)। "Trump Jumps to the Defense of Saudi Arabia in Khashoggi Case"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৮Mr. Khashoggi, who wrote columns for The Washington Post, lived in the United States, and his 60th birthday was on Saturday [October 13]. 
  2. "Khashoggi 'died after fight' – Saudis"BBC। ১৯ অক্টোবর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৯ অক্টোবর ২০১৮ 
  3. "What we know (and don't) about missing Saudi journalist Jamal Khashoggi"। সংগ্রহের তারিখ ১৬ অক্টোবর ২০১৮ 
  4. "Jamal Khashoggi: An unauthorized Turkey source says journalist was murdered in Saudi consulate"BBC News। ৭ অক্টোবর ২০১৮। 
  5. "Speakers"। International Public Relations Association – Gulf Chapter (IPRA-GC)। ২০১২। ১১ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০১২ 
  6. Hendley, Paul (১৭ মে ২০১০)। "Saudi newspaper head resigns after run-in with conservatives"Al Hdhod। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১৮ 
  7. "Opinion – Saudi Arabia wasn't always this repressive. Now it's unbearable."Washington Post। সংগ্রহের তারিখ ৭ অক্টোবর ২০১৮ 
  8. "Turkey says journalist Khashoggi 'killed at Saudi consulate'"France 24। ৭ অক্টোবর ২০১৮। 
  9. "জামাল খাসোগি: কে এই সৌদি সাংবাদিক"। ৯ অক্টোবর ২০১৮ – www.bbc.com-এর মাধ্যমে। 
  10. "ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটেই খাসোগির মৃত্যু" 
  11. "অবশেষে 'জামাল খাসোগি মৃত'" [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]