জামালা আল-বৈধানি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জামালা আল-বৈধানি
জন্ম১৯৭৭
আল আওফ
মৃত্যু১৫ই ডিসেম্বর ২০১২
নাগরিকত্বইয়েমেন
পরিচিতির কারণইয়েমেনে প্রতিবন্ধী মহিলাদের জন্য সক্রিয়তা।

জামালা আল-বৈধানি (১৯৭৭ - ১৫ই ডিসেম্বর ২০১২) একজন ইয়েমেনি কর্মী ছিলেন যিনি মহিলাদের নাগরিক অধিকার প্রদান এবং প্রতিবন্ধীদের সমর্থন করেছিলেন। তিনি প্রতিবন্ধী মেয়েদের সহায়তা করার জন্য আল-তাহাদি অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, প্রতিবন্ধী মেয়েদের সাহায্য করার জন্য এটি ইয়েমেনের প্রথম গোষ্ঠী।[১]

জীবনী[সম্পাদনা]

আল-বৈধানি আল বায়দা অঞ্চলের আল আওফ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।[২] শৈশবে তিনি একজন স্বাভাবিক সক্রিয় শিশু ছিলেন। কিন্তু সাত বছর বয়সে তিনি মেনিনজাইটিস অসুখে সংক্রামিত হন এবং অসুস্থতা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে পড়েন।[৩] সুস্থ হওয়ার পর, আল-বৈধানি ঘুরে বেড়ানোর জন্য হুইল চেয়ার ব্যবহার করা শুরু করেছিলেন।[৩]প্রতিবন্ধীদের ভাল চোখে দেখা হয়না এমন সমাজে বসবাসরত জামালা অনেক বাধার সম্মুখীন হয়েছিলেন।[৪] ১৯৯৫ সালে, তিনি সামাজিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে কাজ শুরু করেন এবং কলেজেও যেতে শুরু করেন।[২] তিনি সামাজিক বিজ্ঞানে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।[১]

আল-বৈধানি ইয়েমেনের প্রথম প্রতিবন্ধী নারী যিনি কমিউনিটি ভিত্তিক পুনর্বাসন কর্মসূচির (সিবিআর) জাতীয় প্রতিবন্ধী অধিকার সমন্বয়কারী নিযুক্ত হন। ১৯৯৬ সালে তিনি ইয়েমেন সরকারে প্রতিবন্ধী অধিকার নিয়ে কাজ শুরু করেন,[২] কিন্তু পরে অনুভব করলেন যে তিনি সরকারে কর্মরত অবস্থায় প্রতিবন্ধী মহিলাদের কাছে সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য পূরণ করতে পারছেন না।[৩] ইয়েমেনে, প্রতিবন্ধকতাযুক্ত অধিকাংশ ব্যক্তিকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সংগঠন (ডিপিও) এবং বেসরকারি সংস্থা সমূহের (এনজিও) উপর নির্ভর করতে হয়।[৫] আল-বৈধানি ১৯৯৮ সালে একটি ডিপিও হিসেবে আল-তাহাদি প্রতিষ্ঠা করেন।[১] ২০০৫ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে জামালা এটির কার্যক্রম প্রসারিত করেন, তৈরি হয় একটি প্রাথমিক হস্তক্ষেপ কেন্দ্র, একটি প্রশিক্ষণ/পুনর্বাসন কেন্দ্র, একটি দন্ত চিকিৎসা কেন্দ্র, একটি গণমাধ্যম শিক্ষা সুবিধা, একটি দাতব্য রান্নাঘর, প্রতিবন্ধী গবেষণার জন্য উপলব্ধ সংস্থান সহ একটি কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার এবং একটি ফিজিওথেরাপি কেন্দ্র। আল-বৈধানি পরে যুব উন্নয়নের জন্য আলেসার এনজিও প্রতিষ্ঠা করেছিলেন যেটি ২০০৬ সালে সালে প্রতিবন্ধীদের জন্য স্বেচ্ছাসেবকতার সমন্বয় করতে সাহায্য করেছিল।[১]

২০০৭ সালে, ইয়েমেনের ইউ.এস. দূতাবাস তাঁকে "সাহসী মহিলা" হিসাবে সম্মানিত করেছে।[১] ২০০৮ সালে, সানার কুয়েত দূতাবাস তাঁর এনজিও এর কাজের জন্য তাঁকে ৩০,০০০ ডলার প্রদান করেছিল।[৬]

২০১২ সালে, আল-বৈধানি শ্বাসকষ্টজনিত রোগের জটিলতায় সানা তে মারা যান।[৭]তাঁকে মাজেল আল-দেমা কবরস্থানে সমাধিস্থ করা হয়েছিল।[৮] আল-বৈধানী ২০১৩ সালে মরণোত্তর দ্বিতীয় বালকুইস পুরস্কারে ভূষিত হন। এই পুরস্কারটি দ্বারা এমন মহিলাদের সম্মানিত করা হয় যাঁরা "ইয়েমেনি মহিলাদের উন্নয়নে ব্যতিক্রমী অবদান রেখেছেন।"[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Speech in Honor of International Women's Day"Embassy of the United States in Sana'a Yemen। ৮ মার্চ ২০১০। ৫ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 
  2. "Jamal Saleh Al Baidani" (PDF)Al Tahadi। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 
  3. Al-Mohattwari, Asma (৮ মার্চ ২০১৪)। "Death Stole Them But Their Work Immortalized Them"National Yemen। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 
  4. "In Honor of Jamala al-Baidhani"। সংগ্রহের তারিখ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  5. "Looking the Other Way: Disability in Yemen"Social Development Division - Social Policy Section। United Nations ESCWA। ২০০৯। ১৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 
  6. "Kuwait Embassy in Yemen Extends Donation to Disabled Society"Kuwait News Agency। ১৭ নভেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 
  7. Al-Yarisi, Amal (১৭ ডিসেম্বর ২০১২)। "Woman Who Dedicated Life to Disabled Dies"Yemen Times। ৭ এপ্রিল ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 
  8. Al-Yarisi, Amal (১৭ ডিসেম্বর ২০১২)। "Woman Who Dedicated Life to Disabled Dies"Yemen Times। ৭ এপ্রিল ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 
  9. "Winners of Balquis Awards 2012-2014" (PDF)Yemen LNG Journal (2): 5। জুলাই ২০১৪। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]