জাপানি কালো পাইন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জাপানি কালো পাইন
পাইনাস থুনবার্গাই (জাপানি কলো পাইন).jpg
ছাঁটাই করা জাপানি কালো পাইন, জাতীয় উদ্যান, টোকিয়ো
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস e
অপরিচিত শ্রেণী (ঠিক করুন): পাইনাস
প্রজাতি: প. থুনবার্গাই
দ্বিপদী নাম
পাইনাস থুনবার্গাই
পার্ল.
প্রতিশব্দ

পাইনাস থুনবার্গিয়ানা

পাইনাস থুনবার্গাই (সমার্থক: পিনাস থুনবার্গিয়ানা ), যাকে কৃষ্ণ পাইনও বলা হয়,[২] জাপানি কৃষ্ণ পাইন, এবং জাপানি পাইন,[৩] হল একটি পূর্ব এশিয়ান পাইন। পৃথিবীর মধ্যে জাপান, ( কিউশু, শিকোকু এবং হোনশু ) এবং দক্ষিণ কোরিয়ার উপকূলীয় অঞ্চলে এই পাইন গাছ জন্মায়। [৪]

এই পাইন গাছকে বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন স্থানীয় নাম দেওয়া হয়। যেমন, একে কোরিয়ান ভাষায়গমসল ( 곰솔), চীনা ভাষায় হেইসং (黑松), এবং জাপানি ভাষায় কুরোমাৎসু (黒松)黒松) বলা হয়।

বিবরণ[সম্পাদনা]

জাপানি কালো পাইন গাছগুলির উচ্চতা সাধারণত ৪০ মিটার পর্যন্ত হতে পারে, কিন্তু এর প্রাকৃতিক পরিসীমার বাইরে বিরলভাবে এই আকারটি অর্জিত হয়। গোড়ায় একটা সাদা চাদর দিয়ে সূঁচগুলি দুটো গুচ্ছে থাকে, এগুলো ৭-১২  সেমি লম্বা হয়; স্ত্রী শঙ্কুগুলো আঁশযুক্ত লম্বায় ৪-৭ সেমি পর্যন্ত হয়,  আঁশগুলোর আগায় ছোটো বিন্দু থাকে, পরিপুষ্ট হতে সাধারণত দু-বছর সময় লাগে।  বসন্ত ঋতুর আগমনে বাড়ন্ত পুরুষ শঙ্কুগুলো ১-২ সেমি লম্বা হয়ে ১২-২০টা ঝাড়ের আগায় জন্মায়। বসন্তে নবীন গাছে আর তার ছোটো ছোটো শাখায় বাকল ধূসর রঙের হয়, এবং পুরোনো শাখায় তাড়াতাড়ি মোটা হয়ে যাওয়া বড়ো বড়ো শাখা এবং কাণ্ডে আবৃত বাকল কালো রঙে বদলায়।[২]

বাস্তুতস্ত্র[সম্পাদনা]

উত্তর আমেরিকাতে এই গাছের গুঁড়িতে দেশীয় আমেরিকান পাইনউড নেমাটোড, অর্থাৎ ব্রাসাফেলেনচাস জাইলোফিলাস নামে এক ধরনের রোগবাহক কীট এর ব্যাপক মৃত্যুহার বৃদ্ধির কারণ হয়ে যায়। এছাড়া পরবর্তীকালে, নীল রঙের দাগ ওয়ালা ছত্রাক এই পাইন গাছে হানা দেয়, ফলস্বরূপ গাছটা অতি দ্রুতহারে ক্ষয়প্রাপ্ত হয় এবং শেষে মারা যায়। ঘটনাচক্রে জাপানেও এই নিমোটোডটি দেখা দিয়েছে, যে কারণে এই জাপানি কালো পাইন গাছের প্রজাতিগুলি তার দেশীয় অঞ্চলে বিপদগ্রস্ত হয়ে পড়ছে।

ব্যবহারসমূহ[সম্পাদনা]

কালো পাইন গাছ জাপানে একটা জনপ্রিয় উদ্যানতত্ত্ব গাছ, তার কারণ এটা দূষণ এবং লবণের বিরুদ্ধে স্বাভাবিক প্রতিরোধের কাজ করে। জাপানে এই গাছ উদ্যান গাছ হিসাবে যথাক্রমে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নিওয়াকি গাছ এবং প্রশিক্ষণ ছাড়া অতিরিক্ত গাছ রূপে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। নবীন বয়স থেকেই প্রশিক্ষণ অর্থাৎ সঠিক পরিচর্যা দেওয়ায় এই গাছের কাণ্ড এবং শাখাসমূহ সুরুচিপূর্ণ এবং দেখতে মজাদার হয়ে থাকে। জাপানি কালো পাইন গাছ, উচ্চাঙ্গের বনসাই বা বামন গাছের একটা অন্যতম বিষয়, তার সুফল পেতে ঠিকঠাক প্রশিক্ষণের জন্য অনেক বছর অসীম ধৈর্যের দরকার হয়।

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

টীকা[সম্পাদনা]

  1. Farjon, A. (২০১৩)। "Pinus thunbergii"বিপদগ্রস্ত প্রজাতির আইইউসিএন লাল তালিকা (ইংরেজি ভাষায়)। আইইউসিএন2013: e.T42423A2979140। ডিওআই:10.2305/IUCN.UK.2013-1.RLTS.T42423A2979140.enঅবাধে প্রবেশযোগ্য 
  2. English Names for Korean Native Plants (PDF)Korea National Arboretum। ২০১৫। পৃষ্ঠা 575। আইএসবিএন 978-89-97450-98-5। ২৫ মে ২০১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬Korea Forest Service-এর মাধ্যমে। 
  3. "Pinus thunbergii (クロマツ, Japanese black pine) description"www.conifers.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২০ 
  4. Flora of China

তথ্যসূত্রসমূহ[সম্পাদনা]

  • Conifer Specialist Group (1998). "Pinus thunbergii". IUCN Red List of Threatened Species. 1998. Retrieved 12 May 2006.CS1 maint: ref=harv (link)old-form url
  • Fu, Liguo; Li, Nan; Elias, Thomas S.; Mill, Robert R. "Pinus thunbergii". Flora of China. 4. Retrieved 2018-08-16 – via eFloras.org, Missouri Botanical Garden, St. Louis, MO & Harvard University Herbaria, Cambridge, MA.

বহির্সংযোগসমূহ[সম্পাদনা]