জাতীয় যুব দিবস (ভারত)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জাতীয় যুব দিবস
Swami Vivekananda 1896.jpg
পালনকারী ভারত এবং সমগ্র বিশ্বের রামকৃষ্ণ মঠের কেন্দ্ৰ সমূহে
তাৎপর্যস্বামী বিবেকানন্দর জন্মদিন
উদযাপনসভা-সমিতি, বক্তৃতানুষ্ঠান
শিশুদের খেলাধূলা
শুরু১৯৮৪[১]
তারিখ১২ জানুয়ারি
সংঘটনবাৰ্ষিক

প্রতি বছর ১২ জানুয়ারি তারিখ ভারতে জাতীয় যুব দিবস পালিত হয়। এই দিনটিতে স্বামী বিবেকানন্দ জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮৪ সালে ভারত সরকার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে যে ১৯৮৫ সাল থেকে প্রতিবছর স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে জাতীয় যুব দিবস পালন করা হবে।

এ বিষয়ে ভারত সরকারের মুখপত্রে বলা হয়েছে:[২]

'এটি অনুভূত হয় যে, স্বামীজির দর্শন এবং জীবন ও কর্মপদ্ধতি যা তিনি অনুসরণ করতেন তা ভারতীয় যুবদের জন্য অনুকরণীয়।'

পালন[সম্পাদনা]

১৯৮৫ সাল থেকে প্ৰতি বছর ১২ জানুয়ারি তারিখে এই দিবস পালন করে আসা হচ্ছে। ভারতীয় যুবসমাজকে স্বামীজীর দৰ্শন ও শিক্ষা অনুপ্ৰাণিত করে আসছে। তার জ্ঞানমাৰ্গে ভারতীয় যুবক যুবতীদের অগ্রসর করতে এই দিবসের পত্তন করা হয়েছিল।[২]

২০১৩ সালের ১২ জানুয়ারি তারিখে ভারতের পূৰ্বতন প্ৰধানমন্ত্ৰী ডঃ মনমোহন সিং চার বছর ধরে উদযাপন হওয়া স্বামী বিবেকানন্দের ১৫০তম জন্মজয়ন্তী উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভাষণ প্ৰসংগে বলেছিলেন— [৩]

গান্ধীজী যুবসমাজে স্বামী বিবেকানন্দের বাণী ও শিক্ষাসমূহের গুরুত্বের কথা বলতেন। সাথে তিনি স্বামীজীর দৰ্শনের প্ৰচার ও প্ৰসারের মতও পোষণ করতেন। তাঁর শিক্ষাসমূহ যুবশক্তিকে সত্যের পথে অগ্ৰসর হওয়ার সঠিক দিশা প্ৰদান করে। এই নীতিতে ভারত সরকার ১২ জানুয়ারি তারিখ জাতীয় যুব দিবস হিসাবে ঘোষণা করেছিল। ভারত মাতার এই সুযোগ্য সন্তানের বাৰ্তা বিশ্ববাসীর মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার কৰ্ম করা উচিত।

কার্যক্রম[সম্পাদনা]

এই দিন, সমগ্র ভারত জুড়ে যুব বয়সীরা তাদের আত্মিক মূল্যবোধের উম্মেষ ঘটানোর লক্ষ্যে শিক্ষা, সংস্কৃতি, কৃষ্টি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ধরনের কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করে থাকে। শিশুদের মধ্যে বিভিন্ন খেলধূলা অনুষ্ঠিত হয়। সভা সমিতিতে বিবেকানন্দের দৰ্শন ও শিক্ষা দ্বারা যুবশক্তিকে জাগ্ৰত করার চেষ্টা করা হয়।[৪] রামকৃষ্ণ মঠসমূহে যুব সমাজের জন্য বিভিন্ন প্ৰকল্প হাতে নেওয়া হয়। সাথে এই দিন মঠে বিশেষ পূজা অৰ্চনা অনুষ্ঠিত হয়।

এই দিন ভারতের উত্তর প্রদেশের ভ্রার্তৃত্ব মিশন দুদিন ব্যাপী বিশাল অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে, যাতে বিভিন্ন বয়সীয়েরা অনেক ধরনের কর্মকান্ডে অংশ নেয়। এটি 'বাস্তি যুব মহোৎসব' নামে পরিচিত। এছাড়াও অন্যান্য সরকারি ও বেসরকারি সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রমের মাধ্যমে দিবসটি পালন করে থাকে।

ভারতের বাৎসরিক যুব সমাগমের অনুষ্ঠান জাতীয় যুব উৎসব (ভারত) এই দিনটির সাথে সম্পর্কিত। এতে সাস্কৃতিক কর্মকান্ডের ও প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি" (PDF)। ২১ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. "National Youth Day"National Youth Day 12th January। ২১ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০১১ 
  3. "PM's address at the Inauguration of four Year Long Celebrations of Swami Vivekananda's 150th Birth Anniversary"। Indian Government। ১৬ আগস্ট ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ জুন ২০১৩ 
  4. "National Youth Day, India" (PDF)National Youth Day। ১২ জানুয়ারি ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০১১ 

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]