জলের বৈশিষ্ট্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

জল (H
O
) হল একটি মেরুধর্মী অজৈব যৌগ, যা ঘরের তাপমাত্রায় একটি স্বাদহীন ও গন্ধহীন তরল, যেটি নীলের অন্তর্নিহিত ইঙ্গিত ছাড়া প্রায় বর্ণহীন হয়। এটি এখন পর্যন্ত সবচেয়ে অধ্যয়ন করা রাসায়নিক যৌগ[১] এবং "সর্বজনীন দ্রাবক"[২] ও "জীবনের দ্রাবক" হিসেবে বর্ণীত হয়।[৩] এটি পৃথিবী পৃষ্ঠে সর্বাধিক প্রাচুর্যযুক্ত পদার্থ[৪] এবং পৃথিবীর পৃষ্ঠে কঠিন, তরল ও গ্যাস হিসাবে বিদ্যমান একমাত্র সাধারণ পদার্থ। এটি মহাবিশ্বের তৃতীয় সর্বাধিক প্রাচুর্যযুক্ত অণু (আণবিক হাইড্রোজেনকার্বন মনোক্সাইডের পরে)।[৪]

জলের অণুগুলি একে অপরের সাথে হাইড্রোজেন বন্ধন গঠন করে এবং দৃঢ়ভাবে মেরুধর্মী হয়। এই মেরুধর্মীতা, এটিকে লবণের আয়নগুলিকে বিচ্ছিন্ন করতে এবং অন্যান্য মেরুধর্মী পদার্থ যেমন অ্যালকোহলঅ্যাসিডের সাথে বন্ধন করতে দেয়, এইভাবে তাদের দ্রবীভূত করে। জলের হাইড্রোজেন বন্ধন এর অনেক অনন্য বৈশিষ্ট্যের কারণ হয়, যেমন জলের কঠিন গঠন জলের তরল আকারের চেয়ে কম ঘনত্বযুক্ত হয়,[ক] এটির মোলার ভরের জন্য ১০০°সেলসিয়াসের একটি অপেক্ষাকৃত উচ্চ স্ফুটনাঙ্ক ও একটি উচ্চ তাপধারণ ক্ষমতা রয়েছে।

জল হল অ্যামফোটেরিক, যার অর্থ এটি যে দ্রবণে রয়েছে তার পিএইচ-এর উপর নির্ভর করে একটি অম্ল বা ক্ষারের বৈশিষ্ট্য প্রদর্শন করতে পারে; এটি সহজেই H+OH− আয়ন উভয়ই উৎপন্ন করে।[ক] এটির অ্যামফোটেরিক চরিত্রের সঙ্গে সম্পর্কিত, এটি স্ব-আয়নকরণের মধ্য দিয়ে যায়। কার্যকলাপের গুণফল, বা আনুমানিক, H+ ও OH− এর ঘনত্ব একটি ধ্রুবক, তাই তাদের নিজ নিজ ঘনত্ব একে অপরের বিপরীতভাবে সমানুপাতিক।[৫]

টীকা[সম্পাদনা]

  1. H+ (হাইড্রন) H
    O+
    (H
    O)
    n
    -এর প্রতিনিধিত্ব করে এবং আরও জটিল আয়ন তৈরি করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Greenwood ও Earnshaw 1997, পৃ. 620।
  2. "Water, the Universal Solvent"। U.S. Department of the Interior। usgs.gov (website) (ইংরেজি ভাষায়)। United States of America: USGS। অক্টোবর ২২, ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০২২ 
  3. Reece et al. 2013, পৃ. 48।
  4. Weingärtner et al. 2016, পৃ. 2।
  5. "Autoprotolysis constant"IUPAC Compendium of Chemical Terminology (ইংরেজি ভাষায়)। IUPAC। ২০০৯। আইএসবিএন 978-0-9678550-9-7ডিওআই:10.1351/goldbook.A00532