জক হার্টলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জক হার্টলি
জক হার্টলি.gif
জক হার্টলির ব্যাঙ্গচিত্র
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজন ক্যাবোর্ন হার্টলি
জন্ম(১৮৭৪-১১-১৫)১৫ নভেম্বর ১৮৭৪
লিঙ্কন, লিঙ্কনশায়ার, ইংল্যান্ড
মৃত্যুমার্চ ৮, ১৯৬৩(1963-03-08) (বয়স ৮৮)
উডহল স্পা, লিঙ্কনশায়ার, ইংল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৫১)
১০ মার্চ ১৯০৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট২ এপ্রিল ১৯০৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৮৪
রানের সংখ্যা ১৫ ১,৩৮০
ব্যাটিং গড় ৩.৭৫ ১২.৮৯
১০০/৫০ ০/০ ০/২
সর্বোচ্চ রান ৮৪*
বল করেছে ১৯২ ১০,৪৮৯
উইকেট ২২৭
বোলিং গড় ১১৫.০০ ২৫.৪০
ইনিংসে ৫ উইকেট ১২
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/৬২ ৮/১৬১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/০ ৫৩/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৭ এপ্রিল, ২০২০

কর্নেল জন ক্যাবোর্ন হার্টলি, ডিএসও (ইংরেজি: Jock Hartley; জন্ম: ১৫ নভেম্বর, ১৮৭৪ - মৃত্যু: ৮ মার্চ, ১৯৬৩) লিঙ্কনের লিঙ্কনশায়ার এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও ব্রিটিশ সেনা কর্মকর্তা ছিলেন।[১] ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯০৬ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে সাসেক্সঅক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ লেগ ব্রেক বোলার ছিলেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন জন হার্টলি নামে পরিচিত জক হার্টলি

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৮৯৫ সাল থেকে ১৯২৬ সাল পর্যন্ত জক হার্টলি’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। টনব্রিজ স্কুলে অধ্যয়ন শেষে অক্সফোর্ডের ব্রাসনোস কলেজে পড়াশুনো করেন।[২] ১৮৯৩ সালে টনব্রিজ একাদশের পক্ষে খেলেন। ১৮৯৬ সালে অক্সফোর্ড থেকে ব্লুধারী হন এবং পরের বছরও খেলেন। কেমব্রিজের বিপক্ষে প্রথম খেলায় দলের চার উইকেটের ব্যবধানে জয়লাভে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ৪৩ রান সংগ্রহের পাশাপাশি ২৩৯ রান খরচায় ১১ উইকেট পান। প্রথম দিনে ১৬১/৮ থাকাকালে তিনি ডব্লিউ. জি. গ্রেস জুনিয়রকে খেলায় দুইবার শূন্য রানের তিক্ত অভিজ্ঞতা লাভের প্রথমটি করেন। ১৮৯৩ সালে ফ্রাঙ্ক মিচেলের নেতৃত্বাধীন দলের সাথে আমেরিকা গমন করেন।

১৮৯৫ থেকে ১৮৯৭ সময়কালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও ১৮৯৫ থেকে ১৮৯৮ সময়কালে সাসেক্সের সদস্যরূপে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। এরপর তিনি মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবের (এমসিসি) পক্ষে ১৯২৬ সাল পর্যন্ত প্রথম-শ্রেণীর খেলাগুলোয় প্রতিনিধিত্ব করেন। ১৯২২-২৩ মৌসুমে এমসিসি’র সহঃঅধিনায়কের দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়ে নিউজিল্যান্ড গমন করেন। তবে, নিয়মিত অধিনায়ক আর্চি ম্যাকলারেনের আঘাতজনিত অনুপস্থিতিতে অধিকাংশ খেলায় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।[৩]

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান গড়েছিলেন। ১৮৯৬ সালে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৮/৬১ লাভ করেন। এছাড়াও, দ্বিতীয় ইনিংসে ৩/৭৮ বোলিং পরিসংখ্যানসহ অক্সফোর্ডের প্রথম ইনিংসে ৪৩ রান তুলে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হন।[৪] ১৯২৫ সালে ৫০ বছর বয়সে এমসিসি’র অধিনায়কের দায়িত্ব পালনকালে ওয়েলস দলের বিপক্ষে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ অপরাজিত ৮৪ রান তুলেন।[৫]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন জক হার্টলি। উভয় খেলাই তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলেছিলেন। ১০ মার্চ, ১৯০৬ তারিখে জোহেন্সবার্গে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ৩০ মার্চ, ১৯০৬ তারিখে কেপ টাউনে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯০৫-০৬ মৌসুমে পি. এফ. ওয়ার্নারের নেতৃত্বে এমসিসি দলের সাথে দক্ষিণ আফ্রিকা গমনার্থে তাকে সদস্য করা হয়। ঐ মৌসুমে ইংল্যান্ড দলের সাথে দক্ষিণ আফ্রিকা গমন করেন। এ সফরে দুইটি টেস্ট খেলায় অংশ নেন। তবে, খুব কমই সফলতার স্বাক্ষর রেখেছিলেন তিনি।[১]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

সেনাবাহিনীতে থাকাকালে রয়্যাল ফুসিলিয়ার্সের সাথে যুক্ত ছিলেন। এ পর্যায়ে দ্বিতীয় বোর যুদ্ধ ও প্রথম বিশ্বযুদ্ধে অংশ নেন। দুইবার আহত হন তিনি ও চারবার তাকে অব্যহতি দেয়া হয়।[২] ১৯১৯ সালে নববর্ষের সম্মাননায় ডিএসও উপাধিতে ভূষিত হন।[৬] আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে উপেক্ষিত হবার পর তিনি মাঝে-মধ্যে সাসেক্সের পক্ষে খেলতেন।

৮ মার্চ, ১৯৬৩ তারিখে ৮৮ বছর বয়সে লিঙ্কনশায়ারের উডহল স্পা এলাকায় জক হার্টলি’র দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Jock Hartley at CricketArchive
  2. "Colonel J.C. Hartley"। The Times। London। ৯ মার্চ ১৯৬৩। পৃষ্ঠা 10। 
  3. Don Neely & Richard Payne, Men in White: The History of New Zealand International Cricket, 1894–1985, Moa, Auckland, 1986, pp. 61–64.
  4. "Oxford University v Cambridge University 1896"অর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজনCricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১ জুলাই ২০১৭ 
  5. "MCC v Wales 1925"অর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজনCricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১ জুলাই ২০১৭ 
  6. "নং. 31092"দ্যা লন্ডন গেজেট (সম্পূরক) (ইংরেজি ভাষায়)। ৩১ ডিসেম্বর ১৯১৮। 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]